advertisement
advertisement
advertisement
advertisement
advertisement

ঢাকায় প্রতি লাখে হাজার ছাড়িয়েছে শনাক্ত

আহমদুল হাসান আসিক
৮ জুলাই ২০২০ ০০:০০ | আপডেট: ৮ জুলাই ২০২০ ০২:০৯
advertisement

ঢাকা মহানগরীতে বসবাসকারী প্রতি দশ লাখ মানুষের মধ্যে গড়ে করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন ১০ হাজার ৪৬৭ দশমিক ৫ জন। এ মহানগরীর বাইরে নারায়ণগঞ্জ, মুন্সীগঞ্জ, ফরিদপুর, চট্টগ্রাম ও কক্সবাজার জেলায় প্রতি দশ লাখ মানুষের মধ্যে এক হাজারেরও বেশি এবং দেশের ১৭ জেলায় প্রতি দশ লাখে পাঁচ শতাধিক করোনা রোগী শনাক্ত হয়েছে। বাংলাদেশে কোভিড ১৯-এর সর্বশেষ পরিস্থিতি সম্পর্কিত বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার (ডব্লিউএইচও) প্রতিবেদনে এসব তথ্য তুলে ধরা হয়েছে। ৬ জুলাই পর্যন্ত সারাদেশে করোনা ভাইরাসে আক্রান্তের চিত্র পর্যালোচনা করে এ রিপোর্ট তৈরি করেছে বৈশ্বিক এ সংস্থাটি। গতকাল মঙ্গলবার প্রকাশিত সর্বশেষ এ সিচুয়েশন রিপোর্ট বলছে, ৬ জুলাই পর্যন্ত দেশে করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন ১ লাখ ৬৫ হাজার ৬১৮ জন। সেই হিসাবে দেশে প্রতি দশ লাখ মানুষের মধ্যে আক্রান্তের সংখ্যা ৯৭২ দশমিক ৪ জন। আক্রান্তদের মধ্যে সুস্থ হয়েছেন ৭৬ হাজার ১৪৯ জন, মারা গেছেন ২ হাজার ৯৬ জন। সুস্থতার হার ৪৫ দশমিক ৯ শতাংশ এবং মৃত্যুহার ১ দশমিক ২৭ শতাংশ। ঢাকার পর নারায়ণগঞ্জে আক্রান্তের হার সর্বাধিক। নারায়ণগঞ্জে বসবাসকারী প্রতি দশ লাখ মানুষের মধ্যে এক হাজার ৫২৭ দশমিক ১ জন আক্রান্ত হয়েছেন। প্রতি দশ লাখ মানুষের মধ্যে এক হাজারের বেশি রোগী শনাক্ত হওয়া অন্য জেলাগুলোর মধ্যে মুন্সীগঞ্জে ১ হাজার ৩১৬ দশমিক ৪ জন, ফরিদপুরে এক হাজার ৮০ দশমিক ৬ জন, চট্টগ্রামে এক হাজার ৯৮ দশমিক ১ জন এবং কক্সাবাজারে এক হাজার ২১ দশমিক ২ জন শনাক্ত হয়েছেন।

প্রতি দশ লাখ মানুষের মধ্যে পাঁচ শতাধিক রোগী শনাক্ত হওয়া আরও ১২ জেলার মধ্যে ঢাকা বিভাগের ৪টি জেলা রয়েছে। এর মধ্যে গাজীপুরে ৯২২ দশমিক ৬ জন, মাদারীপুরে ৬০৩ দশমিক ৫ জন, গোপালগঞ্জে ৫৭৬ দশমিক ৪ জন এবং ঢাকা জেলায় (মহানগরী বাদে) ৫৬১ দশমিক ৯ জন শনাক্ত হয়েছে। অন্য জেলাগুলোর মধ্যে চট্টগ্রাম বিভাগে রয়েছে বান্দরবান (৮৮৮.৬ জন), কুমিল্লা (৬০৬.৬ জন), ফেনী (৫৩১.৪ জন) ও রাঙামাটি (৫১৫.২ জন)। সিলেট বিভাগে শুধু সিলেটে প্রতি ১০ লাখে পাঁচ শতাধিক (৬৩১.২ জন) রোগী শনাক্ত হয়েছে। এর বাইরে প্রতি দশ লাখ মানুষের মধ্যে বরিশাল বিভাগে বরিশাল জেলায় (৬১৩.২ জন), রাজশাহী বিভাগে বগুড়ায় (৮২৬.৭ জন) এবং খুলনা বিভাগের খুলনা

জেলায় (৬৯১.৩ জন) পাঁচ শতাধিক করোনা রোগী শনাক্ত হয়েছে।

‘রাষ্ট্র করোনা নিয়ন্ত্রণ ব্যবস্থাপনায় সম্পূর্ণ ব্যর্থ’

ডব্লিউএইচওর দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়া অঞ্চলের সাবেক উপদেষ্টা মোজাহেরুল হক আমাদের সময়কে বলেন, রাষ্ট্র করোনা নিয়ন্ত্রণ ব্যবস্থাপনায় সম্পূর্ণ ব্যর্থ। দেশে সংক্রমণ বেড়েই চলেছে, এটা নিয়ন্ত্রণে নেই। করোনা রোগী শনাক্তে পরীক্ষা বাড়ানোর কথা ছিল, সেটা তো বাড়েইনি বরং কমেছে। পাশাপাশি আমরা বলেছিলাম অ্যান্টিবডি ও অ্যান্টিজেন পরীক্ষা করার জন্য। সেটি এখনো শুরু করা যায়নি। এ অবস্থায় আগামী দিনে সংক্রমণের মাত্রা বাড়বে। পাশাপাশি সংক্রমণ নিয়ন্ত্রণে যে পন্থা সেগুলো অবলম্বন না করার কারণে সংক্রমিত ব্যক্তির কাছ থেকে এটি আরও ব্যাপক হারে ছড়াবে। পরবর্তীতে আমাদের স্বাস্থ্যব্যবস্থার ওপর আরও চাপ পড়বে। সেই চাপ সামলানোর ক্ষমতা বর্তমানে স্বাস্থ্যসেবা ব্যবস্থার নেই। এ পরিস্থিতিতে স্বাস্থ্যসেবা ব্যবস্থায় আরও ধস নামবে।

advertisement
Evaly
advertisement