advertisement
advertisement
advertisement
advertisement
advertisement

আইপিএল আয়োজক হতে পারে নিউজিল্যান্ড

ক্রীড়া ডেস্ক
৮ জুলাই ২০২০ ০০:০০ | আপডেট: ৮ জুলাই ২০২০ ০২:৪৭
advertisement

টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ হচ্ছে না এমন ধারণা আগে থেকেই ছিল। ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়ার সভাপতি গত মাসে জানিয়েছেন, এমন পরিস্থিতিতে তারা টুর্নামেন্ট আয়োজন করতে আগ্রহী নন। কারণ একসাথে এতগুলো দলের নিরাপত্তা নিশ্চিত করা অনেক কঠিন ব্যাপার। শেষ পর্যন্ত বিশ্বকাপ না হলে কপাল খুলে যাবে আইপিএলের। এমন একটা সিদ্ধান্তের জন্যই অপেক্ষা করছিল বিসিসিআই।

অক্টোবরের ১৮ তারিখ অস্ট্রেলিয়ায় শুরু হওয়ার কথা টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের এবারের আসর। এরই মধ্যে অস্ট্রেলিয়ার সংবাদমাধ্যম জানিয়েছে, সিএ এবং আইসিসির বৈঠকে হবে এ সপ্তাহেই। আর সেখানেই বিশ্বকাপ স্থগিতের আনুষ্ঠানিক ঘোষণা আসতে যাচ্ছে।

দেশের মাটিতেই আইপিএল করা বিসিসিআইয়ের প্রথম পছন্দ হলেও দেশে যেভাবে করোনা সংক্রমণের মাত্রা বাড়ছে তাতে শেষ পর্যন্ত বিদেশের মাটিতেও হতে পারে আইপিএল। ইতোমধ্যে আইপিএল আয়োজন করার জন্য শ্রীলংকা, সংযুক্ত আরব আমিরাত প্রস্তাব দিয়েছে। এর সঙ্গে এবার যুক্ত হয়েছে নিউজিল্যান্ডও। আইপিএল আয়োজনে আগ্রহী তারাও।

ইতোমধ্যে সম্পূর্ণ করোনামুক্ত দেশ হিসেবে নজির গড়েছে নিউজিল্যান্ড। বিশ্বজুড়ে যেখানে দর্শকশূন্য গ্যালারিতে চলছে খেলা, সেখানে কিউইদের দর্শকভর্তি গ্যালারিতে খেলা শুরুর কথা ভাবা হচ্ছে। ফলে বিসিসিআই যদি চায় তা হলে আইপিএল আয়োজন করতে কিউই ক্রিকেট বোর্ড যে প্রস্তুত তা সাফ জানিয়ে দিয়েছেন বোর্ডের এক কর্তা। এক বিসিসিআই কর্তা এক সংবাদ সংস্থাকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে এই কথা জানান। তিনি বলেন, ‘ভারতেই আইপিএল আয়োজন করা আমাদের প্রাথমিক লক্ষ্য। যদি নিতান্তই ভারতে টুর্নামেন্ট আয়োজন করা নিরাপদ মনে না হয়, তবে আমরা বিদেশের কথা বিবেচনা করব। আমিরাত ও শ্রীলংকার পর নিউজিল্যান্ডও আইপিএল আয়োজনের প্রস্তাব দিয়েছে।’

সেই কর্মকর্তা আরও বলেন, ‘আমরা আমাদের সব স্টেকহোল্ডারের (ব্রডকাস্টার, ফ্রাঞ্চাইজি মালিক ইত্যাদি) সঙ্গে বৈঠকে বসে সিদ্ধান্ত নেব এ ব্যাপারে। খেলোয়াড়দের নিরাপত্তাই সবার আগে। এর সঙ্গে কোনো আপস করব না আমরা।’

যদিও বিসিসিআই, আরব আমিরাত এবং শ্রীলংকার প্রস্তাবকে নাকচ করে দিয়েছে তবে যত প্রস্তাব কিংবা যত আলোচনাই হোক, আইপিএল আয়োজন তখনই সম্ভব হবে, যদি টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ স্থগিত করার ঘোষণা আসে। যদিও ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ড এরই মধ্যে সেপ্টেম্বরের শেষ সপ্তাহ থেকে নভেম্বরের প্রথম সপ্তাহকে এবারের আইপিএলের জন্য সূচি তৈরি করে নিচ্ছে।

বিসিসিআইয়ের প্রথম লক্ষ্য হচ্ছে, আইপিএল ভারতেই আয়োজন করার। কিন্তু দেশটিতে যেভাবে করোনা ভাইরাসের বিস্তার ঘটছে, সে কারণে আইপিএল ভারতে আয়োজন করা সম্ভব না-ও হতে পারে। কারণ যুক্তরাষ্ট্র, ব্রাজিলের পর করোনা সংক্রমণে তৃতীয় বৃহত্তম দেশ এখন ভারত। ৭ লাখের বেশি করোনা আক্রান্ত এখন ভারতে।

তবে নিউজিল্যান্ডের প্রস্তাবে কতটা সাড়া দেয় আইপিএল কর্তৃপক্ষ তা নিয়ে সন্দেহ আছে। কারণ দেশটির সাথে ভারতের সময়ের বড় একটা ব্যবধান, তাতে দর্শকরা ম্যাচ দেখা থেকে বঞ্চিত হবে। এ ছাড়াও সেখানকার ভেন্যু দূরত্বও একটা বড় বিষয়। এর আগে ২০০৯ সালে আইপিএলের আসর বসে দক্ষিণ আফ্রিকায়। ২০১৪ সালে টুর্নামেন্টটির কিছু অংশ হয় সংযুক্ত আরব আমিরাতে।

advertisement
Evaly
advertisement