advertisement
advertisement
advertisement
advertisement
advertisement

ভারতের জুয়াড়ি গ্রেপ্তার

ক্রীড়া ডেস্ক
৮ জুলাই ২০২০ ০০:০০ | আপডেট: ৮ জুলাই ২০২০ ০২:৪৭
advertisement

গত মাসেই খবর বেরিয়েছিল। ভয়ঙ্কর খবর। রাভিন্দর দান্ডিওয়াল নামে এক লোকের ফেসবুক প্রোফাইলে পরিচয় তিনি ‘ইন্ডিয়ান ক্রিকেট কাউন্সিল’-এর প্রধান। এই ইন্ডিয়ান ক্রিকেট কাউন্সিল জিনিসটা কী? জানা গেল লোকটা বড় মাপের জুয়াড়ি। ক্রিকেট ও টেনিসে বিস্তর ম্যাচ পাতানোর সঙ্গে জড়িত এই দান্ডিওয়ালকে আগে থেকেই নজরে রেখেছিল আইসিসি ও ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ড (বিসিসিআই)। আর আন্তর্জাতিক ম্যাচ পাতানো চক্রের ‘কেন্দ্রীয় চরিত্র’ হিসেবে তাকে চিহ্নিত করেছিল অস্ট্রেলিয়া। শেষ পর্যন্ত এই দান্ডিওয়ালকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। পাঞ্জাব পুলিশ তাকে গ্রেপ্তারের খবরটি নিশ্চিত করেছে।

ম্যাচ পাতানোর লক্ষ্যে ২০০৯ সালে ‘ক্রিকেট কাউন্সিল অব ইন্ডিয়া’ নামের একটা ক্লাব খোলেন দান্ডিওয়াল। পরবর্তীতে মোহালি, অমৃতসর এবং ভূপালে সাজানো টুর্নামেন্ট আয়োজন করে ম্যাচ পাতানোর কাজ করতেন দান্ডিওয়াল। ‘দ্য ইন্ডিয়ান এক্সগ্রেস’ শুক্রবার এক প্রতিবেদনে জানায়, গত ২৯ জুন চন্ডিগড়ের নিকটবর্তী সাওয়ারা গ্রামে একটি ম্যাচ আয়োজন করেছিলেন দান্ডিওয়াল। করোনার মধ্যেও স্থানীয় জুয়াড়িদের সঙ্গে নিয়ে সেখানে ৩৩ হাজার রুপি খরচ করে একটি মাঠ ভাড়া করেন দান্ডিওয়াল। পরবর্তীতে সেই ম্যাচ লাইভ স্ট্রিমিং করেন তারা। লাইভে বলা হয়েছিলÑ শ্রীলংকার বাদুল্লায় ‘উভা টি-টোয়েন্টি লিগ’-এর ম্যাচ ছিল এটা।

পরবর্তীতে খোঁজ নিয়ে জানা যায়, শ্রীলংকা ক্রিকেট ও উভা প্রভিন্স ক্রিকেট অ্যাসোসিয়েশন এই টুর্নামেন্টের সঙ্গে জড়িত নয়। পরবর্তীতে গত বৃহস্পতিবার রাজেশ গার্গ ও পঙ্কজ আরোরা নামের দুই বাজিকরকে আটকের ঘটনার পর দান্দিওয়ালকে গ্রেপ্তার করল পুলিশ।

পুলিশের প্রাথমিক তদন্তে দান্ডিওয়ালের আগেও এমন ভুয়া টুর্নামেন্ট আয়োজনের প্রমাণ মিলেছে। পিটিআইকে খারার পুলিশের ডেপুটি সুপরিনটেনডেন্ট পাল সিং জানান, এই ‘মাস্টার মাইন্ডকে’ নিয়ে আরও বিস্তৃত তদন্ত করবেন তারা।

তার ভাষ্যেÑ ‘এই পুরো চক্রের মোড়ল হিসেবে উঠে আসা দান্ডিওয়ালকে সোমবার আটক করা হয়েছে। একটি টি-টোয়েন্টি ম্যাচ নিয়ে চলমান তদন্তের অংশ হিসেবে তাকে আটক করা হয়েছে। পুরো চক্রে তার ভূমিকার আরও তদন্ত করা হবে।’

এদিকে ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ডের (বিসিসিআই) দুর্নীতিবিরোধী ইউনিটের (আকসু) প্রধান অজিত সিং জানিয়েছেন, দান্ডিওয়ালকে জিজ্ঞাসাবাদ করতে চান তারা। অজিত সিং বলেন, ‘আমাদের হাতে যে তথ্য আছে আমরা পাঞ্জাব পুলিশকে জানাব, সেগুলো তাদের তদন্তে কাজে লাগতে পারে। তারা যে তথ্য পেয়েছেন আমরা সেগুলো নেব। আমরা তার সঙ্গে কথা বলতে চাই। এটা নির্ভর করছে পাঞ্জাব পুলিশের ওপর।’

advertisement
Evaly
advertisement