advertisement
advertisement
advertisement
advertisement
advertisement

সুনামগঞ্জে জনস্বাস্থ্যের জনবান্ধব কর্মসূচি

সুনামগঞ্জ প্রতিনিধি
১০ জুলাই ২০২০ ০০:০০ | আপডেট: ১০ জুলাই ২০২০ ০০:০৪
advertisement

সুনামগঞ্জে বন্যা পরিস্থিতি ও বন্যাপরবর্তী দুর্যোগ মোকাবিলায় জনস্বাস্থ্য প্রকৌশল অধিদপ্তর জনবান্ধব কর্মসূচি হাতে নিয়েছে। ফলে জেলায় এখন পর্যন্ত পানিবাহিত কোনো রোগবালাই ছড়িয়ে পড়ার খবর পাওয়া যায়নি।

গত জুন মাসের শেষ সপ্তাহে টানা বৃষ্টিপাত ও পাহাড়ি ঢলে সুনামগঞ্জের প্রায় সব উপজেলা বন্যাকবলিত হয়। শহরের পাশাপাশি প্লাবিত হয় জেলার নি¤œাঞ্চল। উঁচু এলাকার পানি কমলেও নিচু এলাকায় এখনো পানি রয়েছে। তবে জেলা-উপজেলা প্রশাসন, স্থানীয় জনপ্রতিনিধি ও জনস্বাস্থ্য প্রকৌশল অধিদপ্তরের সচেতনতায় বন্যায় বিশুদ্ধ পানি সংকট ও কোনো রোগবালাই হয়নি।

জেলা জনস্বাস্থ্য প্রকৌশল অধিদপ্তর সূত্রে জানা যায়, বন্যার সময় জেলার সব উপজেলা ও চার পৌরসভায় এক লাখ ৫০ হাজার পানি বিশুদ্ধকরণ ট্যাবলেট বিতরণ করা হয়। বিভিন্ন আশ্রয়কেন্দ্রে হাইজিন কিট দেওয়া হয় ৮০টি। নলকূপ জীবাণুমুক্তকরণ, উঁচুকরণ ও মেরামত করা হয়েছে এক হাজার ১২৪টি। ব্লিচিং পাউডার বিতরণ করা হয়েছে ২০০ কেজি। বন্যাপরবর্তী পরিস্থিতি মোকাবিলায় প্রস্তুতি হিসেবে স্থাপনের জন্য ১০০টি নলকূপের মালামাল মজুদ রাখা হয়েছে। নির্মাণের জন্য ৪০০টি অস্থায়ী ল্যাট্রিন, বিশুদ্ধ পানি সরবরাহের মোবাইল ট্রিটমেন্ট প্ল্যান্ট ১টি, তিন লাখ ১০ হাজার পানি বিশুদ্ধকরণ ট্যাবলেট ও পানিবাহিত জীবাণু প্রতিরোধে ৫০০ কেজি ব্লিচিং পাউডার মুজদ রাখা হয়েছে।

জেলা জনস্বাস্থ্য প্রকৌশল অধিদপ্তরের নির্বাহী প্রকৌশলী মো. আবুল কাশেম বলেন, সুনামগঞ্জে হঠাৎ করেই বন্যা দেখা দিয়েছিল। তবে পরিস্থিতি মোকাবিলায় আমাদের সব ধরনের প্রস্তুতি ছিল। পরবর্তী পরিস্থিতি মোকাবিলার জন্যও আমাদের প্রস্তুতি রয়েছে।

advertisement