advertisement
advertisement
advertisement
advertisement
advertisement

দেশে করোনায় আরও ৩৭ মৃত্যু শনাক্ত ২৯৪৯

নিজস্ব প্রতিবেদক
১১ জুলাই ২০২০ ০০:০০ | আপডেট: ১০ জুলাই ২০২০ ২৩:১৫
advertisement

দেশে ২৪ ঘণ্টায় করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে ৩৭ জনের মৃত্যু হয়েছে। শনাক্ত করা হয়েছে দুই হাজার ৯৪৯ জন। সুস্থ হয়েছেন ৮৬ হাজার ৪০৬ জন। এ নিয়ে দেশে করোনায় মৃত্যু হয়েছে দুই হাজার ২৭৫ জনের, আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়াল এক লাখ ৭৮ হাজার ৪৪৩ এবং সুস্থ হয়েছেন এক হাজার ৮৬২ জন। স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের অতিরিক্ত মহাপরিচালক (প্রশাসন) অধ্যাপক ডা. নাসিমা সুলতানা গতকাল শুক্রবার দুপুর আড়াইটায় কোভিড-১৯ পরিস্থিতি নিয়ে স্বাস্থ্য বুলেটিনে এসব তথ্য জানান। নাসিমা সুলতানা জানান, বর্তমানে দেশের ৭৭টি ল্যাবরেটরিতে করোনার পরীক্ষা হচ্ছে। এর মধ্যে সরকারি ল্যাব ৪৭টি ও বেসরকারি ল্যাব ৩০টি। এসব ল্যাবে ২৪ ঘণ্টায় নমুনা সংগ্রহ করা হয়েছে ১৪ হাজার ৩৭৭টি এবং পরীক্ষা করা হয়েছে ১৩ হাজার ৪৮৮টি নমুনা। এসব নমুনা পরীক্ষায় রোগী শনাক্ত হয়েছে দুই হাজার ৯৪৯ জন। ২৪ ঘণ্টার নমুনা পরীক্ষায় রোগী শনাক্তের হার ২১ দশমিক ৮৬ শতাংশ। দেশে এখন পর্যন্ত নুমনা পরীক্ষা করা হয়েছে ৯ লাখ ১৮ হাজার ২৭২টি। এসব নমুনা পরীক্ষায় রোগী শনাক্ত হয়েছে এক লাখ ৭৮ হাজার ৪৪৩ জন। মোট নমুনা পরীক্ষায় রোগী শনাক্তের হার ১৯ দশমিক ৪৩ শতাংশ। শনাক্ত বিবেচনায় সুস্থতার হার ৪৮ দশমিক ৪২ শতাংশ এবং মৃত্যু এক দশমিক ২৭ শতাংশ। ডা. নাসিমা জানান, ২৪ ঘণ্টায় মারা গেছেন ৩৭ জন। এর মধ্যে পুরুষ ২৯ জন এবং নারী আট জন। মৃতদের বয়স বিশ্লেষণে দেখা গেছে, ২১ থেকে ৩০ বছরের মধ্যে একজন, ৩১ থেকে ৪০ বছরের মধ্যে একজন, ৪১ থেকে ৫০ বছরের মধ্যে সাত জন, ৫১ থেকে

৬০ বছরের মধ্যে ৯ জন, ৬১ থেকে ৭০ বছরের মধ্যে ১৫ জন এবং ৭১ থেকে ৮০ বছরের মধ্যে চার জন রয়েছেন। অঞ্চল বিবেচনায় দেখা গেছে, যারা মারা গেছেন তাদের মধ্যে ঢাকা বিভাগে ১২ জন, চট্টগ্রাম বিভাগে ১৭ জন, সিলেট বিভাগে দুই জন, রংপুর বিভাগে দুই জন, রাজশাহী বিভাগে দুই জন, বরিশাল বিভাগে একজন ও ময়মনসিংহ বিভাগে একজন রয়েছেন। তিনি জানান, দেশে এখন পর্যন্ত মারা গেছেন দুই হাজার ২৭৫ জন। এর মধ্যে পুরুষ এক হাজার ৭৯৯ জন এবং নারী ৪৭৬ জন। মৃতের মধ্যে পুরুষ ৭৯ দশমিক শূন্য ৮ শতাংশ এবং নারী ২০ দশমিক ৯২ শতাংশ। এখন পর্যন্ত যারা মারা গেছেন তাদের বয়স বিবেচনায়, শূন্য থেকে ১০ বছরের মধ্যে শূন্য দশমিক ৬২ শতাংশ, ১১ থেকে ২০ বছরের মধ্যে ১ দশমিক ১৪ শতাংশ, ২১ থেকে ৩০ বছরের মধ্যে ৩ দশমিক ২৫ শতাংশ, ৩১ থেকে ৪০ বছরের মধ্যে ৭ দশমিক ৩০ শতাংশ, ৪১ থেকে ৫০ বছরের মধ্যে ১৪ দশমিক ৬৮ শতাংশ, ৫১ থেকে ৬০ বছরের মধ্যে ২৯ দশমিক ৮০ শতাংশ এবং ৬০ বছরের বেশি বয়সী ৪৩ দশমিক ৪৭ শতাংশ।

নাসিমা সুলতানা আরও জানান, ২৪ ঘণ্টায় আইসোলেশন করা হয়েছে ৮৯৩ জন এবং ছাড়া পেয়েছেন ৭৬৮ জন। এখন পর্যন্ত আইসোলেশনে নেওয়া হয়েছে ৩৪ হাজার ৯১৫ জন এবং ছাড়া পেয়েছেন ১৭ হাজার ৭২৩ জন। বর্তমানে আইসোলেশনে রয়েছেন ১৭ হাজার ১৯২ জন। ২৪ ঘণ্টায় কোয়ারেন্টিনে নেওয়া হয়েছে দুই হাজার ৬০০ জন এবং ছাড়া পেয়েছেন দুই হাজার ১৬৯ জন। এখন পর্যন্ত কোয়ারেন্টিনে নেওয়া হয়েছে তিন লাখ ৮৯ হাজার ১৯১ জন। ছাড়া পেয়েছেন তিন লাখ ২৫ হাজার ৬৪৪ জন। বর্তমানে কোয়ারেন্টিনে আছেন ৬৩ হাজার ৫৩৭ জন।

advertisement