advertisement
advertisement
advertisement
advertisement
advertisement

যে স্মৃতি ভুলবেন না সাইফউদ্দিন

ক্রীড়া প্রতিবেদক
১১ জুলাই ২০২০ ০০:০০ | আপডেট: ১১ জুলাই ২০২০ ০৯:৩৪
advertisement

বাংলাদেশ জাতীয় দলের একজন সম্ভাবনাময় ক্রিকেটার মোহাম্মদ সাইফউদ্দিন। ফেনী থেকে উঠে আসা এই পেস অলরাউন্ডারের জাতীয় দলে অভিষেক হয় ২০১৭ সালের এপ্রিলে, কলম্বোয় শ্রীলংকার বিপক্ষে টি-টোয়েন্টিতে। একই বছরের অক্টোবরে কিম্বার্লিতে সাউথ আফ্রিকার বিপক্ষে ওয়ানডেতে অভিষেক হয় তার। প্রতিভাবান এই অলরাউন্ডার এখন পর্যন্ত ২২ ওয়ানডেতে ২৯০ রান করেছেন। উইকেট শিকার করেছেন ৩১টি। টি-টোয়েন্টিতে ১৫ ম্যাচে ১০৮ রান এসেছে তার ব্যাট থেকে। উইকেট পেয়েছেন ১৪টি। এ বছরের মার্চে সব শেষ জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে ওয়ানডে এবং টি-টোয়েন্টিতে খেলেছেন সাইফউদ্দিন।

এর পর ঢাকা প্রিমিয়ার লিগে আবাহনীর হয়ে মাঠে নেমেছিলেন। করোনা ভাইরাসের কারণে লিগের প্রথম রাউন্ড শেষে অনির্দিষ্টকালের জন্য ক্রিকেট বন্ধ ঘোষণা করে বিসিবি। বাসায় থাকলেও সাইফউদ্দিন এখন ফিটনেস নিয়ে কাজ করছেন। অবশ্য বেশ কিছুদিন জ্বর, ঠা-া ও সর্দিতে ভুগেছেন সাইফউদ্দিন। বিসিবির কোভিড-১৯ ওয়েলনেস অ্যাপের কার্যক্রম শুরুর পর পরই রেড ক্যাটাগরিতে পড়ে গিয়েছিলেন তিনি। তবে এখন পুরোপুরি সুস্থ এই পেস অলরাউন্ডার। সাইফউদ্দিন জানিয়েছেন, তিনি এখন ভালো আছেন।

১৯৯৬ সালে ফেনীতে জন্ম নেওয়া সাইফউদ্দিন পড়াশোনা করেছেন শাহীন একাডেমি স্কুল অ্যান্ড কলেজ এবং জয়নাল হাজারী কলেজে। এখন জাতীয় দলে নিজের একটা শক্ত অবস্থান তৈরি করতে পেরেছেন তিনি। তবে আজকের এই অবস্থানে আসার পথটা সহজ ছিল না। সাইফের একটা দুঃখ রয়েছে। তিনি বলেন, ‘সালটা সঠিক মনে নেই। সম্ভবত ২০১২ সাল হবে। আমাকে অনূর্ধ্ব-১৫ খেলে আসার পরও অনূর্ধ্ব-১৬ ডিভিশনাল টিম (চিটাগং) থেকে বাদ দেওয়া হয়েছিল।’ ক্যারিয়ারের টার্নিং পয়েন্ট জানাতে গিয়ে এই পেস অলরাউন্ডার বলেন, ‘২০১৭ ইমার্জিং এশিয়া কাপ, যেটা দেশে খেললাম।’

বর্তমান টেস্ট দলের অধিনায়ক মুমিনুল হকের কাছ থেকে একটা ব্যাট উপহার পেয়েছিলেন সাইফ। সেই ব্যাট হারিয়ে গেছে। স্মৃতির পাতা উল্টে সাইফ ফিরে গেলেন ২০১৪ সালে। তিনি বলেন, ‘আমি যখন প্রথম ন্যাশনাল লিগ খেলি তখন আমার খেলার মতো ব্যাট ছিল না। আমি কার ব্যাট দিয়ে খেলব বা নামব তখন মুমিনুল হক সৌরভ ভাই উনি বিকেএসপির তিন নম্বর মাঠে ব্যাট দিয়েছিলেন। আমি মনে করি, এটাই আমার জীবনে এখন পর্যন্ত সবচেয়ে বড় উপহার বা গিফট। দুঃখজনক, ওই ব্যাট আমি হারিয়ে ফেলেছি।’

প্রতিটা ক্রিকেটারের স্বপ্ন থাকে বিশ্বকাপ খেলার। বাংলাদেশ জাতীয় দলে অভিষেকের দুই বছরের মধ্যে সে স্বপ্ন পূরণ হয়েছে সাইফের। ইংল্যান্ডে অনুষ্ঠিত ২০১৯ ওয়ানডে বিশ্বকাপে বাংলাদেশ দলের গুরুত্বপূর্ণ সদস্য ছিলেন তিনি। ৭ ম্যাচে ২৯ গড়ে ৮৭ রান করেছেন। উইকেট শিকার করেছেন ১৩টি। সাইফ জানান, যেদিন বিশ্বকাপ স্কোয়াডে ডাক পেয়েছিলেন সেদিন খুবই খুশি হয়েছিলেন। তিনি বলেন, ‘বিশ্বকাপ মানে স্পেশাল কিছু। প্রথম ওয়ানডে বিশ্বকাপ খেলেছি ইংল্যান্ডে। যতদিন বেঁচে থাকব প্রথম বিশ্বকাপ খেলার স্মৃতি কখনই ভুলব না।’

করোনা-উত্তর বাংলাদেশে এখনো ক্রিকেট-চর্চা শুরু হয়নি। অবশ্য এ মাসেই মাঠে ফিরতে পারে ক্রিকেট। সাইফ ইতোমধ্যে সতীর্থ সাকিব আল হাসানকে একটা চ্যালেঞ্জ দিয়েছেন। যুক্তরাষ্ট্রে থাকা সাকিব তা গ্রহণও করেছেন। কী ছিল সেই চ্যালেঞ্জ? হোয়াটসঅ্যাপে সাকিবকে সাইফ লিখেছেন, ভাই আগেই বলে রাখলাম ইনশাআল্লাহ সবকিছু যদি ঠিক হয়ে যায় আপনার সাথে চ্যালেঞ্জ খেলব নেটে ২ ওভারে ২২ রান বুকিং দিয়ে রাখলাম। প্রতিউত্তরে সাকিব লিখেছেন, আচ্ছা ইনশাআল্লাহ। আমি বোলিং করব না ব্যাটিং? সাইফ লিখেছেন, থ্যাংকস ভাই তা হলে ওই কথা রইল, আমি তা হলে রেডি থাকলাম, ব্যাটিং করবেন আপনি। জবাবে সাকিব লিখেছেন, ইনশাআল্লাহ। আমার তো তা হলে প্রিপারেশন নিতে হবে এখন।

advertisement
Evaly
advertisement