advertisement
Azuba
advertisement
advertisement
advertisement
advertisement
advertisement

কলেজছাত্রীকে ধর্ষণ, ছবি-ভিডিও প্রকাশের ভয় দেখিয়ে অর্থ দাবি

মাতুব্বর শফিক স্বপন,মাদারীপুর
১১ জুলাই ২০২০ ২০:১১ | আপডেট: ১১ জুলাই ২০২০ ২০:৩৪
ধর্ষণের অভিযোগে গ্রেপ্তার বেলাল। ছবি : আমাদের সময়
advertisement

মাদারীপুরে কলেজছাত্রীকে ধর্ষণ করার অভিযোগে মো. বেলাল হোসেন মাদবর (২৬) নামে এক যুবককে গ্রেপ্তার করেছে র‌্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়ন (র‌্যাব-৮)। ধর্ষণের সময় ঘটনার ছবি ও ভিডিও ধারণ করে রাখেন তিনি। পরে এসব প্রকাশ করার ভয় দেখিয়ে ভুক্তভোগীর কাছ থেকে ৫ লাখ টাকা দাবি করেন বেলাল।

এ ঘটনায় কলেজছাত্রী নিজেই বাদী হয়ে মাদারীপুর সদর থানায় একটি মামলা দায়ের করেন। বেলালের বাবার নাম সেকেন্দার আলী মাদবর (মৃত)। তাদের বাড়ি শরীয়তপুর জেলার পালং থানার কাশাভোগ গ্রামে। তবে ঘটনাস্থল মাদারীপুর শহর ও মামলা সেখানে হওয়ায় গ্রেপ্তার বেলালকে মাদারীপুর সদর থানায় হস্তান্তর করা হয়েছে।

গতকাল শুক্রবার রাতে র‌্যাব-৮’র প্রেস বিজ্ঞপ্তি থেকে জানা গেছে, মাদারীপুর ক্যাম্পের কোম্পানি অধিনায়ক অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মোহাম্মদ তাজুল ইসলামের নেতৃত্বে র‌্যাব সদস্যরা বৃহস্পতিবার দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে শরীয়তপুর জেলার জাজিরা উপজেলার কাজীকান্দি গ্রামে অভিযান চালিয়ে মো. বেলাল হোসেন মাদবরকে আটক করে।

গত শুক্রবার মাদারীপুর সদর মডেল থানায় মামলা হওয়ায় বেলালকে গ্রেপ্তার দেখিয়ে থানায় হস্তান্তর করা হয়।

কলেজছাত্রীর মামলা এজাহার থেকে জানা গেছে, তিনি একটি সরকারি কলেজের ছাত্রী। একই সঙ্গে জাজিরায় একটি প্রতিষ্ঠানের রিসিপসনিস্ট পদে চাকরি করেন। শরীয়তপুর কলেজে যাওয়ার পথে মো. বেলাল হোসেন মাদবরের সঙ্গে তার পরিচয় হয়। এর সূত্র ধরে তরুণীকে সম্মিলিত সামরিক হাসপাতালে (সিএমএইচ) চাকরি দেওয়ার প্রলোভন দেখান বেলাল। তাদের মধ্যে সম্পর্ক হয়। গত ২১ জুন দুপুরে তরুণীকে চাকরির বিষয়ে আলাপ করার জন্য ফুঁসলিয়ে মাদারীপুর শহরের পুরাতন বাসস্ট্যান্ডের মোটেল মতির (আবাসিক) একটি কক্ষে নিয়ে যান বেলাল। সেখানে তাকে বিভিন্নরকম ভয় দেখিয়ে ধর্ষণ করেন। এ ছাড়া মোবাইলে ছবি ও ভিডিও ধারণ করে নেন।

এজাহারে উল্লেখ রয়েছে, ভুক্তভোগীকে প্রায় চার ঘণ্টা নগ্ন রেখে শারীরিক ও মানসিক নির্যাতন করেন বেলাল। এ ছাড়া ধর্ষণের এ ঘটনা কাউকে বললে ছবি ভিডিও প্রকাশ করা ও মেরে ফেলার ভয় দেখান তিনি। ঘটনার পর ওই তরুণী বিষয়টি চেপে গেলেও কলেজ বা চাকরিতে যাতায়াতের সময় তাকে উত্ত্যক্ত করতেন বেলাল। ছবি-ভিডিও দেখিয়ে বারবার শারীরিক সম্পর্ক স্থাপনের জন্য চাপ দেন। কয়েক দফা ৫ লাখ টাকা দাবি করেন। রাজী না হওয়ায় তরুণীর নগ্ন ছবি ও ভিডিও বেলাল তার কাছের কয়েকজন বন্ধুর সামাজিকমাধ্যমে পাঠান।

এজাহারে আরও উল্লেখ রয়েছে, মানসিকভাবে নির্যাতন সহ্য না পেরে গত বুধবার র‌্যাব-৮’র মাদারীপুর ক্যাম্পে অভিযোগ দায়ের করেন ভুক্তভোগী। পরে অভিযান চালিয়ে বেলাল মাদবরকে আটক করে র‌্যাব। পরে গত শুক্রবার দুপুরে মাদারীপুর সদর মডেল থানায় মামলা করেন ভুক্তভোগী। এতে বেলালকে গ্রেপ্তার দেখানো হয়। এ ছাড়া মামলায় আরও চারজনকে আসামি করা হয়ছে। বেলালকে সদর মডেল থানা পুলিশ মাদারীপুর আদালতের মাধ্যমে জেলে পাঠিয়েছে।

মাদারীপুর সদর মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. কামরুল ইসলাম মিঞা এসব তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

advertisement