advertisement
advertisement
advertisement
advertisement
advertisement

সারাদেশে ৮৬ প্রতিষ্ঠানকে ৩ লাখ টাকা জরিমানা

সাপ্তাহিক ছুটির দিনে ভোক্তা অধিদপ্তরের অভিযান

নিজস্ব প্রতিবেদক
১২ জুলাই ২০২০ ০০:০০ | আপডেট: ১২ জুলাই ২০২০ ০০:১৩
advertisement

বৈশ্বিক মহামারী করোনা ভাইরাসের উদ্ভূত পরিস্থিতিতে নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্যের মূল্য স্থিতিশীল ও সহনীয় রাখাসহ নকল ও ভেজাল প্রতিরোধে রাজধানীসহ সারাদেশে বাজার তদারকিমূলক কার্যক্রম পরিচালনা করছে জাতীয় ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তর। এর অংশ হিসেবে গতকাল সারাদেশে অভিযান চালিয়ে ভোক্তা ঠকানোর অভিযোগে ৮৬টি প্রতিষ্ঠানকে মোট ৩ লাখ ১৪ হাজার ৩০০ টাকা জ?রিমানা করেছে অধিদপ্তরটি। গতকাল গণমাধ্যমে পাঠানো এক বার্তায় এ তথ্য জানানো হয়। এ বিষয়ে অধিদপ্তরের প্রধান কার্যালয়ের উপপরিচালক মো. মাসুম আরেফিন আমাদের সময়কে বলেন, অধিদপ্তরের মহাপরিচালক বাবলু কুমার সাহার সরাসরি নির্দেশনায় ও পরিচালক (প্রশাসন) শামীম আল মামুনের তত্ত্বাবধানে সারাদেশে এদিন ৮১টি বাজারে (পাইকারি ও খুচরা) তদারকিমূলক অভিযান পরিচালিত হয়। অভিযানে ৮৬টি প্রতিষ্ঠানকে মোট ৩ লাখ ১৪ হাজার ৩০০ টাকা জ?রিমানা আরোপ ও আদায় করা হয়। ঢাকা মহানগরীর বিভিন্ন বাজারে বিকাশ চন্দ্র দাস, সহকারী পরিচালক আবদুল জব্বার ম-ল ও আমার নেতৃত্বে অভিযান পরিচালিত হয়। ঢাকার বাইরে ৪২ জন কর্মকর্তা বিভাগে উপপরিচালক ও জেলায় সহকারী পরিচালকগণের নেতৃত্বে বাজার অভিযান পরিচালিত হয়।

তদারকিকালে পণ্যের মূল্য তালিকা প্রদর্শন না করা, অধিকমূল্যে পণ্য ও ওষুধ বিক্রয় করা, মেয়াদোত্তীর্ণ পণ্য ও ওষুধ বিক্রি করাসহ ভোক্তাস্বার্থবিরোধী বিভিন্ন অপরাধের জন্য প্রশাসনিক ব্যবস্থায় জরিমানা আরোপ ও আদায় করা হয় বলে জানান তিনি।

মাসুম আরেফিন আরও জানান, এদিন রাজধানীর কারওরান বাজারে নকল স্যাভলন (স্যালভি, স্যালভো, স্যালভন নামযুক্ত) বিক্রয়কারী ৩টি পাইকারি প্রতিষ্ঠান ও গোডাউনে অভিযান পরিচালনা করে ১২ কার্টুন নকল জীবাণুনাশক জব্দ ও ধ্বংস করা হয় এবং ৬৫ হাজার টাকা জরিমানা আরোপ ও আদায় করা হয়।

বাণিজ্যমন্ত্রী টিপু মুনশি নিয়মিতভাবে অধিদপ্তরের ঢাকাসহ সারাদেশের বাজার তদারকি কার্যক্রম প্রত্যক্ষভাবে মনিটরিং করছেন এবং সময়ে সময়ে প্রয়োজনীয় দিকনির্দেশনা প্রদান করছেন। তার নির্দেশনা অনুযায়ী অভিযান পরিচালিত হচ্ছে বলে জানান তিনি।

অভিযান প্রসঙ্গে অধিদপ্তরের মহাপরিচালক বাবলু কুমার সাহা বলেন, করোনা ভাইরাসের কারণে উদ্ভূত পরিস্থিতিতে ঢাকাসহ সারাদেশে অধিদপ্তরের নিয়মিত ও বিশেষ বাজার তদারকি কার্যক্রম চলছে। দেশের এই ক্রান্তিকালে নিত্যপণ্যের বাজার স্থিতিশীল রাখতে সহায়তা করার জন্য ব্যবসায়ীদের আন্তরিক ধন্যবাদ ও সাধুবাদ জানান তিনি।

এ ছাড়া নিত্যপণ্যের উৎপাদনকারী, আমদানিকারক, পাইকারি ও খুচরা ব্যবসায়ীদের নিত্যপণ্যের ক্রয়মূল্যের ভাউচার এবং মূল্য তালিকা সংরক্ষণ ও প্রদর্শন ও ন্যায্যমূল্যে পণ্য বিক্রয় করতে ও নকল-ভেজাল পণ্য উৎপাদন, সরবরাহ ও বিক্রয় করা থেকে বিরত থাকার জন্য সংশ্লিষ্ট সবার প্রতি উদাত্ত আহ্বান জানান তিনি। একই সঙ্গে করোনা পরিস্থিতিতে দেশের সব ভোক্তা সাধারণ ও ব্যবসায়ীদের স্বাস্থ্যবিধি মেনে বাজারে পণ্য ক্রয়-বিক্রয়ের অনুরোধ জানান তিনি।

advertisement
Evaly
advertisement