advertisement
advertisement

ধর্ষণের ছবি ছড়িয়ে দেওয়ার ভয় দেখিয়ে টাকা আদায়ের ধান্দা

মাদারীপুর প্রতিনিধি
১২ জুলাই ২০২০ ০০:০০ | আপডেট: ১২ জুলাই ২০২০ ০০:১৪
advertisement

চাকরির প্রলোভন দেখিয়ে এক কলেজছাত্রীর সঙ্গে সুসম্পর্ক গড়ে তোলেন শরীয়তপুরের এক লম্পট। পরে চাকরির ব্যাপারে ‘আলাপের’ কথা বলে তাকে মাদারীপুরে ডেকে একটি হোটেলে নিয়ে ধর্ষণ করে। এ সময় গোপনে মোবাইলে ধর্ষণের ছবি তুলে ও ভিডিও ধারণ করে ওই যুবক। পরে ওই ভিডিও সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ছড়িয়ে দেওয়ার ভয় দেখিয়ে পাঁচ লাখ টাকা হাতিয়ে নেওয়ার ধান্দা করে লম্পট। কিন্তু তার এই ফন্দি সফল হয়নি। কলেজছাত্রীর এমন অভিযোগের ভিত্তিতে র‌্যাবের হাতে ধরা পড়ে সে এখন কারাগারে।

র‌্যাব-৮ শুক্রবার রাতে এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে জানায়, মাদারীপুর র‌্যাব সদস্যরা বৃহস্পতিবার দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে শরীয়তপুর জেলার জাজিরা উপজেলার কাজীকান্দি গ্রামে অভিযান চালিয়ে বেলাল হোসেন মাদবরকে (২৬) আটক করেন। আটক ওই লম্পট শরীয়তপুর জেলার পালং থানার কাশাভোগ গ্রামের মৃত সেকেন্দার আলী মাদবরের ছেলে। ঘটনাস্থল মাদারীপুর শহরে হওয়ায় আসামিকে মাদারীপুর সদর থানায় হস্তান্তর করা হয়েছে। এ ঘটনায় নির্যাতিতা নিজেই বাদী হয়ে মাদারীপুর সদর থানায় একটি মামলা দায়ের করেন।

ঘটনার বিবরণে জানা যায়, নির্যাতিতা একটি সরকারি কলেজের ছাত্রী এবং জাজিরার একটি ক্লিনিকে রিসিপশনিস্ট পদে চাকরি করেন। শরীয়তপুর কলেজে যাওয়ার পথে বেলাল মাদবরের সঙ্গে পরিচয় হয় তার। পরিচয়ের সূত্রে সেনাবাহিনীর বিশেষায়িত হাসপাতালে (সিএমএইচ) চাকরি দেওয়ার প্রলোভন দেখিয়ে সুসম্পর্ক গড়ে তোলে। এ সম্পর্কের জের ধরে গত ২১ জুন দুপুরে ওই কলেজছাত্রীর সাথে চাকরির বিষয়ে আলাপের কথা বলে মাদারীপুর শহরের পুরাতন বাসস্ট্যান্ডের ‘মোটেল মতি (আবাসিক)’ এ নিয়ে যায়। সেখানে তাকে ভয়ভীতি দেখিয়ে ধর্ষণ করে। এ সময় গোপনে মোবাইল ফোনের মাধ্যমে ধর্ষণের ছবি ও নগ্ন ভিডিও ধারণ করে। পরে ওই ছবি ও নগ্ন ভিডিও দেখিয়ে বারবার কুপ্রস্তাব দেয় এবং তার কাছে ৫ লাখ টাকা দাবি করে। মেয়েটি রাজি না হওয়ায় ওই ভিডিওটি কাছের কয়েক বন্ধুকে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ছড়িয়ে দেয় লম্পট। প্রতিকার পাওয়ার জন্য গত বুধবার র‌্যাব-৮, মাদারীপুর ক্যাম্পে অভিযোগ দায়ের করেন ছাত্রী।

advertisement