advertisement
advertisement

করোনায় মারা গেলেন যমুনা গ্রুপের চেয়ারম্যান বাবুল

নিজস্ব প্রতিবেদক
১৩ জুলাই ২০২০ ১৬:২২ | আপডেট: ১৩ জুলাই ২০২০ ২২:২৭
যমুনা গ্রুপের চেয়ারম্যান, বিশিষ্ট শিল্পপতি ও মুক্তিযোদ্ধা নুরুল ইসলাম বাবুল। পুরোনো ছবি
advertisement

করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে মারা গেলেন যমুনা গ্রুপের চেয়ারম্যান, বিশিষ্ট শিল্পপতি ও মুক্তিযোদ্ধা নুরুল ইসলাম বাবুল (ইন্না লিল্লাহি...রাজিউন)। আজ সোমবার রাজধানীর একটি হাসপাতালে তিনি শেষ নিশ্বাস ত্যাগ করেন। মৃত্যুকালে তার বয়স হয়েছিল ৭৪ বছর।

এর আগে গত ১৪ জুন অফিস করার সময় নুরুল ইসলাম বাবুল হঠাৎ অসুস্থ হয়ে পড়েন। তারপর তাকে এভার কেয়ার (সাবেক অ্যাপোলো) হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। পরদিন ১৫ জুন বাবুলের করোনাভাইরাস পরীক্ষার ফল ‘পজিটিভ’ আসে। তবে অসুস্থ হয়ে হাসপাতালে ভর্তির আগে দুবার তার করোনা টেস্ট করা হয়েছিল। তবে দুবারই ফলাফল নেগেটিভ এসেছিল।

নুরুল ইসলাম ১৯৪৬ সালের ৩ মে এক সম্ভ্রান্ত মুসলিম পরিবারে জন্মগ্রহণ করেন। তার পৈতৃক নিবাস ঢাকা জেলার দোহারে। ১৯৭১ সালে পাক হানাদার বাহিনীর নাগপাশ থেকে স্বাধীনতা ছিনিয়ে আনতে মুক্তিযুদ্ধে ঝাঁপিয়ে পড়েন তিনি। স্বাধীন বাংলাদেশে কর্মসংস্থানের মাধ্যমে দেশের অর্থনীতিতে ইতিবাচক ভূমিকা রাখতে ১৯৭৪ সালে যমুনা গ্রুপের প্রতিষ্ঠা করেন।

তার স্ত্রী অ্যাডভোকেট সালমা ইসলাম একজন সংসদ সদস্য। দেশের গুরুত্বপূর্ণ সময়ে প্রতিমন্ত্রী দায়িত্ব পালন করা সালমা ইসলাম জাতীয় পার্টির একজন শীর্ষ নেতা। এ দম্পতির সংসারে আছে এক পুত্র ও তিন কন্যা। তারা হলেন- শামীম ইসলাম, সোনিয়া ইসলাম, মনিকা ইসলাম ও রোজালিন ইসলাম। তারা প্রত্যেকেই উচ্চতর শিক্ষা অর্জনের পর স্ব স্ব ক্ষেত্রে সাফল্যের স্বাক্ষর রেখে চলেছেন।

নিজ যোগ্যতায় অল্পদিনেই নুরুল ইসলাম বাংলাদেশের অন্যতম প্রধান শিল্প উদ্যোক্তা হয়ে ওঠেন। তার প্রতিষ্ঠিত যমুনা গ্রুপ দেশের অন্যতম প্রধান ব্যবসায়ী গ্রুপ। বস্ত্র, রাসায়নিক, চামড়া, মোটর সাইকেল, ইলেকট্রনিক্স, বেভারেজ, টয়লেট্রিজ উৎপাদন করছে এই গ্রুপটি। দৈনিক যুগান্তর ও যমুনা টেলিভিশন এই গ্রুপের মালিকানাধীন।

advertisement