advertisement
advertisement

যমুনা গ্রুপ চেয়ারম্যান বাবুল আর নেই

নিজস্ব প্রতিবেদক
১৪ জুলাই ২০২০ ০০:০০ | আপডেট: ১৩ জুলাই ২০২০ ২৩:১০
advertisement

দেশের শীর্ষস্থানীয় ব্যবসায়ী যমুনা গ্রুপের চেয়ারম্যান মুক্তিযোদ্ধা নুরুল ইসলাম বাবুল করোনা আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন। গতকাল সোমবার বিকাল ৩টা ৪০ মিনিটে রাজধানীর এভারকেয়ার হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন (ইন্না লিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাহি রাজিউন)। তার বয়স হয়েছিল ৭৪ বছর। তিনি স্ত্রী, এক ছেলে ও তিন মেয়েসহ অসংখ্য গুণগ্রাহী রেখে গেছেন।

নুরুল ইসলাম বাবুলের মৃত্যুতে রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ শোক প্রকাশ

করেছেন। শোকবার্তা পাঠিয়েছেন জাতীয় সংসদের স্পিকার ড. শিরিন শারমীন চৌধুরী, জাতীয় সংসদের বিরোধীদলীয় নেতা বেগম রওশন এরশাদ, মন্ত্রী, সংসদ সদস্য, ব্যবসায়ী, বিভিন্ন সামাজিক সংগঠনসহ সমাজের বিশিষ্টজনরা। ইউনিক গ্রুপের ব্যবস্থাপনা পরিচালক মোহা. নূর আলী এবং আমাদের সময়ের ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক মোহাম্মদ গোলাম সারওয়ার গভীর শোক ও দুঃখ প্রকাশ করেছেন।

যমুনা গ্রুপের এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়েছে, নুরুল ইসলাম বাবুলের মরদেহ গতকাল সোমবার রাতে এভার কেয়ার হাসপাতালের হিমঘরে রাখা হয়েছে। আজ মঙ্গলবার বাদ যোহর যমুনা ফিউচার পার্কের জামে মসজিদে সীমিত পরিসরে নামাজ অনুষ্ঠিত হবে। এরপর রাজধানীর বনানী গোরস্তানে রাষ্ট্রীয় মর্যাদায় চিরনিদ্রায় শায়িত করা হবে।

যমুনা ফিউচার পার্কে কার্যরত অবস্থায় গত ১৪ জুন হঠাৎ অসুস্থ হয়ে পড়েন ব্যবসায়ী নুরুল ইসলাম বাবুল। এরপর তাকে দ্রুত রাজধানীর এভার কেয়ার হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। যমুনা গ্রুপের পরিচালক ড. মো. আলমগীর আলম বলেন, বিশিষ্ট এই শিল্পোদ্যোক্তার চিকিৎসায় বাংলাদেশ, চীন এবং সিঙ্গাপুর-এই তিন দেশের চিকিৎসকদের নেতৃত্বে বোর্ড গঠন করা হয়েছিল। বাংলাদেশের ১০ জন বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকের পাশাপাশি চীনের তিনটি হাসপাতাল এবং সিঙ্গাপুরের মাউন্ট এলিজাবেথ হাসপাতালের বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকরা টেলিমেডিসিনের মাধ্যমে চিকিৎসা পরামর্শ দিয়েছেন।

নুরুল ইসলাম বাবুলের স্ত্রী সাবেক প্রতিমন্ত্রী ও বর্তমানে সংরক্ষিত নারী আসনের সংসদ সদস্য অ্যাডভোকেট সালমা ইসলাম। তিনি যুগান্তর প্রকাশকও। ছেলে শামীম ইসলাম যমুনা গ্রুপের ব্যবস্থাপনা পরিচালক। তার তিন মেয়ে- সারীয়াত তাসরীন সোনিয়া, মনিকা নাজনীন ইসলাম এবং সুমাইয়া রোজালিন ইসলাম যমুনা গ্রুপের পরিচালক।

১৯৪৬ সালের ৩ মে জš§গ্রহণ করেন নুরুল ইসলাম বাবুল। তিনি দৈনিক যুগান্তর ও যমুনা টেলিভিশনের স্বত্বাধিকারী।

নুরুল ইসলাম বাবুলের প্রতিষ্ঠিত যমুনা গ্রুপ বাংলাদেশের অন্যতম বৃহৎ শিল্পগ্রুপ। ১৯৭৪ সালে তিনি এই গ্রুপ প্রতিষ্ঠা করেন। মেধা, দক্ষতা, পরিশ্রম ও সাহসিকতার মাধ্যমে একে একে শিল্প এবং সেবা খাতে গড়ে তোলেন ৪১টি প্রতিষ্ঠান। এশিয়ার সবচেয়ে বড় শপিংমল যমুনা ফিউচার পার্ক, নির্মাণাধীন যমুনা হোটেল অ্যান্ড রিসোর্টসহ শিল্প ও সেবা খাতে শীর্ষস্থান ধরে রেখেছে গ্রুপটি। এছাড়া ইলেকট্রনিকস সামগ্রী, বস্ত্র, গার্মেন্টস, রাসায়নিক, চামড়া, মোটরসাইকেল, বেভারেজ, টয়লেট্রিজ, নির্মাণ এবং আবাসন খাতে ব্যবসা রয়েছে এই গ্রুপের। তার বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের মাধ্যমে এক লাখের বেশি মানুষ কর্মসংস্থান করেছেন। সর্বশেষ করোনার চিকিৎসায় কুড়িলে ৩০০ ফিটের কাছে আন্তর্জাতিক মানের হাসপাতাল করার উদ্যোগ নিয়েছিলেন তিনি।

জাতীয় সংসদের ডেপুটি স্পিকার অ্যাডভোকেট ফজলে রাব্বী মিয়া, প্রবীণ আওয়ামী লীগ নেতা ও ১৪ দলের সমন্বয়ক আমীর হোসেন আমু, আওয়ামী লীগের উপদেষ্টাম-লীর সদস্য ও সাবেক মন্ত্রী তোফায়েল আহমদ, আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের, স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল, অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল, তথ্যমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ, বাণিজ্যমন্ত্রী টিপু মুনশি, পরিকল্পনামন্ত্রী এমএ মান্নান, স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক, প্রবাসী কল্যাণমন্ত্রী ইমরান আহমদ, মৎস ও প্রাণিসম্পদমন্ত্রী শ ম রেজাউল করিম, স্থানীয় সরকারমন্ত্রী তাজুল ইসলাম, ত্রাণ ও দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা প্রতিমন্ত্রী ডা. এনামুর রহমান, যুব ও ক্রীড়া প্রতিমন্ত্রী জাহিদ আহসান রাসেল, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় বিভাগের প্রতিমন্ত্রী স্বপন ভট্টাচার্য শোক জানিয়েছেন। আরও শোক জানিয়েছেন ঢাকা দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশনের মেয়র ব্যারিস্টার শেখ ফজলে নূর তাপস ও উত্তর সিটির মেয়র আতিকুল ইসলাম। এছাড়াও চিফ হুইপ নুর-ই আলম চৌধুরী লিটন, জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান ও বিরোধী দলীয় উপনেতা জি এম কাদের এমপি শোক জানান।

শোক জানিয়েছেন বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমান, মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর, স্থায়ী কমিটির সদস্য ড. খন্দকার মোশাররফ হোসেন, মির্জা আব্বাস, গয়েশ্বর চন্দ্র রায়, আমীর খসরু মাহমুদ চৌধুরী, বরকত উল্লাহ বুলু, আবদুল আউয়াল মিন্টু, রিজভী আহমেদ, মোয়াজ্জেম হোসেন আলাল, তাবিথ আউয়াল, নিপুণ রায় চৌধুরী প্রমুখ। জাতীয় পার্টির কো-চেয়ারম্যান ব্যারিস্টার আনিসুল ইসলাম মাহমুদ, এ বি এম রুহুল আমীন হাওলাদার, জিয়াউদ্দিন আহমেদ বাবলু, সৈয়দ আবু হোসেন বাবলা, মুজিবুল হক চুন্নু, মহাসচিব মশিউর রহমান রাঙ্গাসহ পার্টির নেতাকর্মীরা শোক জানিয়েছেন।

আরও শোক প্রকাশ করেছেন সাবেক রাষ্ট্রপতি ও বিকল্প ধারা বাংলাদেশের সভাপতি অধ্যাপক ডা. এ কিউ এম বদরুদ্দোজা চৌধুরী, সংবিধান বিশেষজ্ঞ ও গণফোরাম সভাপতি ড. কামাল হোসেন, বাংলাদেশের ওয়ার্কার্স পার্টির সভাপতি রাশেদ খান মেনন এমপি ও সাধারণ সম্পাদক ফজলে হোসেন বাদশা এমপি, জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দল-জাসদ সভাপতি হাসানুল হক ইনু এমপি ও সাধারণ সম্পাদক শিরীন আক্তার এমপি, জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দল-জেএসডির সভাপতি আ স ম আবদুর রব, জেএসডির সাবেক সাধারণ সম্পাদক আবদুল মালেক রতন, বাংলাদেশের কমিউনিস্ট পার্টি-সিপিবির সভাপতি মুজাহিদুল ইসলাম সেলিম প্রমুখ।

দৈনিক যুগান্তর সম্পাদক ও জাতীয় প্রেস ক্লাবের সভাপতি সাইফুল আলম, সাধারণ সম্পাদক ফরিদা ইয়াসমীন, অ্যাসোসিয়েশন অব টেলিভিশন ওনার্স-অ্যাটকো, প্রধানমন্ত্রীর সাবেক তথ্য উপদেষ্টা ও সাংবাদিক নেতা ইকবাল সোবহান চৌধুরী, প্রধানমন্ত্রীর সাবেক উপদেষ্টা ডা. মোদাচ্ছের আলী, রিয়েল অ্যাস্টেট অ্যান্ড হাউজিং অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশের (রিহ্যাব) প্রেসিডেন্ট আলমগীর শামসুল আলামিন নুরুল ইসলাম বাবুলের মৃত্যুতে শোক প্রকাশ করেছেন।

advertisement