advertisement
advertisement
advertisement
advertisement
advertisement

বগুড়া-১ ও যশোর-৬ উপনির্বাচন আজ
ভোটার উপস্থিতি নিয়ে চিন্তিত নয় ইসি

আসাদুর রহমান
১৪ জুলাই ২০২০ ০০:০০ | আপডেট: ১৩ জুলাই ২০২০ ২৩:২৭
advertisement

করোনা ভাইরাস প্রাদুর্ভাব ও বন্যা পরিস্থিতির মধ্যেও যশোর-৬ ও বগুড়া-১ আসনে উপনির্বাচনে আজ ভোট গ্রহণ করা হবে। এর আগে দেশে করোনা ভাইরাস সংক্রমণের শুরুর দিকে উপনির্বাচনের আয়োজন করে সামালোচিত হয়েছিল নির্বাচন কমিশন (ইসি)। সেই নির্বাচনে ঢাকা-১০ আসনে সোয়া ৩ লাখ ভোটারের মধ্যে ভোট দিয়েছিলেন মাত্র ১৬ হাজার ভোটার। সাংবিধানিক বাধ্যবাধকায় অনুষ্ঠিতব্য আজকের নির্বাচনেও ভোটারখড়া দেখা যেতে পারে বলে মনে করেন সংশ্লিষ্টরা।

ইসি কর্মকর্তারা বলেন, নির্বাচনে প্রার্থীদের জামানত রক্ষার ভোট প্রাপ্তির সংখ্যার ক্ষেত্রে বাধ্যবাধকতা রয়েছে। তবে নির্বাচনের বৈধতা পেতে ভোটার উপস্থিতির সংখ্যা নিয়ে কোনো বাধ্যবাধকতা নেই। ফলে সাংবিধানিক নিয়মরক্ষার উপনির্বাচনে ভোটার উপস্থিতি নিয়ে চিন্তিত নয় ইসি।

নির্বাচন কমিশনার মো. রফিকুল ইসলাম

আমাদের সময়কে বলেন, সাধারণত উপনির্বাচনে ভোটার উপস্থিতি তুলনামূলক কম হয়ে থাকে। এখন তো করোনা ভাইরাসের মহামারী চলছে। সুতারাং ভোটার উপস্থিতি কেমন হতে পারে, তা নিয়ে আগাম ধারণা করা সমীচীন হবে না। দেখা যাক কত ভোটার উপস্থিতি হয়।

জাতীয় নির্বাচন পর্যবেক্ষক পরিষদের (জানিপপ) চেয়ারম্যান অধ্যাপক নাজমুল আহসান কলিমুল্লাহ বলেন, এটা নিয়মরক্ষার নির্বাচন। মহামারীর এই সময়ে ভোটার উপস্থিতি তুলনামূলকভাবে কম হতে পারে। উপনির্বাচনে কমই হয় ভোটার, তবু তা বিষয় নয়। যে কজন ভোটার থাকবে, ভোট দেবে; তাতে জয়-পরাজয় নির্ধারণ করা হবে। কেননা নির্বাচনের জন্য কতো শতাংশ ভোটার উপস্থিত থাকতে হবে, তার কোনো বাধ্যবাধকতা নেই।

যশোর-৬ আসনের উপনির্বাচনের রিটার্নিং অফিসার হুমায়ুন কবির বলেন, মহামারীর মধ্যে সবাই তো ঘরে থাকতে চায়। আমরা ভোটারদের উদ্বুদ্ধ করার চেষ্টা করছি; মাইকিং করছি। তাদের উপস্থিতি তো এবার বেশ চ্যালেঞ্জিং।

বগুড়া-১ উপনির্বাচনের রিটার্নিং অফিসার মাহবুব আলম শাহ বলেন, বন্যাকবলিত এলাকা হওয়ায় বগুড়ার অন্তত ১০টি ভোটকেন্দ্র স্থানান্তরিত করে উঁচু ও নিরাপদ জায়গায় স্থাপন করা হয়েছে। কোনোভাবেই ভোটের আর অসুবিধা হবে না, ভোটাররাও নির্বিঘেœ আসতে পারবেন। এখন দেখা যাক কেমন উপস্থিতি হয়।

গত ১৮ জানুয়ারি সংসদ সদস্য আব্দুল মান্নানের মৃত্যুতে বগুড়া-১ এবং ২১ জানুয়ারি ইসমাত আরা সাদেকের মৃত্যুতে যশোর-৬ আসন শূন্য হয়। গত ২৯ মার্চ এ দুটি উপনির্বাচন হওয়ার কথা থাকলেও করোনা মহামারীর কারণে তা স্থগিত করা হয়। সাংবিধানিক বাধ্যবাধকতার কারণে আসন শূন্য হওয়ার পরবর্তী ৯০ দিন এবং দৈব-দুর্বিপাকে আরও ৯০ দিনের মেয়াদ শেষ হওয়ার আগেই আজ ১৪ জুলাই উপনির্বাচন হচ্ছে। ২ লাখ ৩ হাজার ১৮ ভোটারের যশোর-৬ আসনে প্রতিদ্বন্দ্বিতায় রয়েছেনÑ শাহীন চাকলাদার (নৌকা), আবুল হোসেন আজাদ (ধানের শীষ) ও হাবিবুর রহমান হাবিব (লাঙ্গল)। আর ৩ লাখ ৩০ হাজার ৮৯৩ ভোটারের বগুড়া-১ আসনে প্রতিদ্বন্দ্বিতায় রয়েছেনÑ সাহাদারা মান্নান (নৌকা), একেএম আহসানুল তৈয়ব জাকির (ধানের শীষ), মোকছেদুল আলম (লাঙ্গল), মো. রনি (বাঘ), নজরুল ইসলাম (বটগাছ) ও ইয়াসির রহমতুল্লাহ ইন্তাজ (স্বতন্ত্র-ট্রাক)। ভোটে প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থী থাকলেও উপনির্বাচন নিয়ে অনীহা প্রকাশ করছে বিএনপি-জাপা। ব্যালট পেপারে থাকলেও মহামারীর মধ্যে ভোটে অংশ না নেওয়ার ঘোষণা দিয়েছেন বিএনপির মহাসচিব। আর ভোট পেছানোর অনুরোধ জানিয়েছে জাতীয় পার্টি। দলগুলোর অনিহা, করোনা ভাইরাস প্রাদুর্ভাব ও বন্যা পরিস্থিতির মধ্যে ভোটার উপস্থিতির হার তুলনামূলক কম হতে পারে আশঙ্কা প্রকাশ করছেন অনেকে।

দেশে করোনা ভাইরাস সংক্রমণের শুরুর দিকে গত ২১ মার্চ অনুষ্ঠিত তিনটি উপনির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়। এর মধ্যে ইভিএমে অনুষ্ঠিত ঢাকা-১০ আসনে ভোট পড়েছিল মাত্র ৫ শতাংশ। আর ব্যালটে অনুষ্ঠিত গাইবান্ধা-৩ ও বাগেরহাট-৪ আসনে উপস্থিতি ছিল যথাক্রমে ৬০ ও ৬৯ শতাংশ।

বগুড়া : গতকাল সোমবার সকাল থেকেই ছিল বৃষ্টি। কখনো মুষলধারে আবার কখনো থেমে থেমে। সোনাতলায় দুপুর পর্যন্ত চলে এমন অবস্থা। এই বৈরী আবহাওয়ার মধ্যেই চলে নির্বাচনী সরঞ্জাম বিতরণ, সরবরাহ এমনকি নিরাপত্তাকর্মীদের ডিউটি বণ্টন।

সকালে নির্বাচনী কেন্দ্রে দায়িত্বপ্রাপ্ত প্রিজাইডিং অফিসারদের উপজেলা নির্বাচন অফিস থেকে প্রত্যেকটি কেন্দ্রের জন্য স্বচ্ছ ব্যালট বাক্স, হ্যান্ডগ্লাভস, হ্যান্ড স্যানিটাইজার বিতরণ করা হয়।

সারিয়াকান্দি উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তা সাখাওয়াত হোসেন জানান, নির্বাচন কমিশনের সিদ্ধান্ত অনুযায়ী এবার নির্বাচনী কেন্দ্রে ভোটের ব্যালট যাবে নির্বাচনের দিন সকালে। ১০টি পয়েন্ট থেকে ভোটের দিন অন্যান্য কেন্দ্রে ব্যালট বিতরণ করা হবে। ভোটকেন্দ্রে গতকাল সোমবার সকালে উপজেলা পরিষদ চত্বরে পুলিশ ও আনসার বাহিনীর সদস্যদের ব্রিফিং করেন গাবতলী সার্কেলের এএসপি সাবিনা ইয়াসমিন।

যশোর : গতকাল সকাল থেকে উপজেলার ৩৭৪টি ভোটকেন্দ্রে ব্যালট ও ব্যালট বাক্সসহ নির্বাচনী উপকরণ পাঠানো হয়েছে। জেলা নির্বাচন কমিশন সূত্রে মতে, সুষ্ঠু ও শান্তিপূর্ণ পরিবেশে নির্বাচন অনুষ্ঠানের জন্য আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর বিপুলসংখ্যক সদস্য নিয়োজিত থাকছে। নির্বাচনী এলাকায় ২ জন জুডিসিয়াল ও ১৪ জন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট দায়িত্ব পালন করবেন। ছয় প্লাটুন বিজিবি মোতায়েন থাকবে। ১৮টি মোবাইল টিম ও স্ট্রাইকিং ফোর্সের ৬টি টিম নির্বাচনের মাঠে সার্বক্ষণিক কাজ করবে। প্রতিটি কেন্দ্রে পুলিশ, আনসার-ভিডিপি সদস্যদের নিয়োজিত রাখা হবে। এ ছাড়া ভোটের দিন নির্বাচনী এলাকায় যান চলাচল বন্ধ থাকবে। নির্বাচন কমিশন ভোটারদের জন্য অবশ্য প্রতিটি কেন্দ্রে ব্যানারসহ হ্যান্ড স্যানিটাইজার, সাবান, টিসু পেপারের ব্যবস্থা রেখেছে। পরামর্শ দেওয়া হয়েছে ভোট দিয়েই দ্রুত স্থান ত্যাগ করার।

Ñপ্রতিবেদন তৈরিতে সহায়তা করেছেন বগুড়া থেকে নিজস্ব প্রতিবেদক প্রদীপ মোহন্ত, যশোর প্রতিনিধি উত্তম ঘোষ, সারিয়াকান্দি প্রতিনিধি মো. মঞ্জু মিয়া ও সোনাতলা প্রতিনিধি আব্দুল্লাহ আল মামুন

advertisement
Evaly
advertisement