advertisement
advertisement
advertisement
advertisement
advertisement

স্বাধীনতার পর সর্বনিম্ন এডিপি বাস্তবায়ন

নিজস্ব প্রতিবেদক
১৬ জুলাই ২০২০ ০০:০০ | আপডেট: ১৫ জুলাই ২০২০ ২৩:২১
advertisement

করোনা ভাইরাসের ধাক্কা লেগেছে উন্নয়ন কর্মকা-ে। ফলে গত ২০১৯-২০ অর্থবছরে সংশোধিত বার্ষিক উন্নয়ন কর্মসূচির (আরএডিপি) বাস্তবায়ন হয়েছে ৮০.১৮ শতাংশ। এতে করে গত অর্থবছরের এডিপির বরাদ্দের প্রায় ৪০ হাজার কোটি টাকা অব্যহৃত থেকে গেছে। পরিসংখ্যান বলছে, স্বাধীনতার পর এত কম এডিপি আর কোনো অর্থবছরে বাস্তবায়িত হয়নি। এর আগে সর্বনিম্ন ৮০.৬৬ শতাংশ এডিপি বাস্তবায়িত হয়েছিল ১৯৯২-৯৩ অর্থবছরে।

এর আগের সর্বশেষ ২০১৮-১৯ অর্থবছরে এডিপি বাস্তবায়নের পরিমাণ ছিল ৯৪.৬৬ শতাংশ। সংশ্লিষ্টরা বলছেন, করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ বিস্তারের প্রেক্ষাপটে অর্থবছরের শেষ তিন মাসে প্রকল্পের কাজ বাধাগ্রস্ত হওয়ায় এ বছরে আরএডিপি বাস্তবায়নের হার কমেছে ১৪.৪৮ শতাংশ পয়েন্ট।

আইএমইডি সূত্র জানায়, স্বাধীনতার পর ১৯৯২-৯৩ অর্থবছরে সর্বনিম্ন ৮০.৬৬ শতাংশ আরএডিপি বাস্তবায়ন হয়েছিল। গত অর্থবছরে আরএডিপি বাস্তবায়নের হার ওই বছরের চেয়েও কম। গত অর্থবছর ২ লাখ ১৫ হাজার ১১৪ কোটি টাকার বার্ষিক উন্নয়ন কর্মসূচি (এডিপি) প্রণয়ন করা হলেও বাস্তবায়নে ধীরগতির কারণে কাটছাঁট করে তা ২ লাখ ১ হাজার ১৯৯ কোটি টাকায় নামিয়ে আনা হয়।

এর মধ্যে সারাবছরে সবগুলো মন্ত্রণালয় ও বিভাগ ব্যয় করেছে ১ লাখ ৬১ হাজার ৩২১ কোটি টাকা। এ হিসাবে আরএডিপি বরাদ্দ থেকে অব্যয়িত রয়েছে ৩৯ হাজার ৮৭৮ কোটি টাকা। গত ২০১৮-১৯ অর্থবছরে ১ লাখ ৭৬ হাজার ৬২০ কোটি টাকার আরএডিপি বরাদ্দ থেকে ব্যয় হয়েছিল ১ লাখ ৬৭ হাজার ১৮৬ কোটি টাকা। বাস্তবায়নের হার ছিল ৯৪.৬৬ শতাংশ।

তবে পরিসংখ্যান বলছে, অর্থবছরের শেষ মাস অর্থাৎ জুনে করোনা ভাইরাসের প্রাদুর্ভাবের মধ্যেও অনেক?উন্নয়ন প্রকল্পের কাজ এগিয়ে নিয়ে যাওয়ার সিদ্ধান্ত হয়। সে কারণে শেষ পর্যন্ত এডিপি বাস্তবায়ন অনেকটাই এগিয়েছে। নইলে আইএমইডির তথ্য অনুযায়ী অর্থবছরের ১১ মাস অর্থাৎ চলতি বছরের মে মাস পর্যন্ত এডিপির বাস্তবায়ন ছিল মাত্র ৫৭.৩৭ শতাংশ। টাকার অঙ্কে এর পরিমাণ ছিল ১ লাখ ১৫ হাজার ৪২১ কোটি টাকা। অর্থাৎ ১১ মাস শেষেও এডিপিতে বরাদ্দের ৮৫ হাজার ৭৭৮ কোটি টাকা অব্যয়িত ছিল। সে হিসাবে অর্থবছরের শেষ মাস জুনে খরচ হয়েছে ৪৫ হাজার ৯০০ কোটি টাকা।

advertisement