advertisement
advertisement
advertisement
advertisement
advertisement

রিজেন্টের সঙ্গে চুক্তি বক্তব্যের ব্যাখ্যা দিলেন স্বাস্থ্যের ডিজি

নিজস্ব প্রতিবেদক
১৬ জুলাই ২০২০ ০০:০০ | আপডেট: ১৫ জুলাই ২০২০ ২৩:২১
advertisement

স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের মহাপরিচালক অধ্যাপক ডা. আবুল কালাম আজাদ করোনা চিকিৎসার জন্য রিজেন্ট হাসপাতালের সঙ্গে চুক্তি বিষয়ে নিজ বক্তব্যের ব্যাখ্যা দিয়েছেন স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়কে। গতকাল বুধবার দুপুরে তিনি সচিবালয়ে স্বাস্থ্যসেবা বিভাগের সচিব আবদুল মান্নানের কাছে ব্যাখ্যা দাখিল করেন।

স্বাস্থ্যসেবা বিভাগের সচিব আবদুল মান্নান জানান, স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের মহাপরিচালক অধ্যাপক ডা. আজাদ লিখিত জবাব দিয়েছেন, আমরা সেটি পেয়েছি। সেই জবাবের

সঙ্গে তিনি অনেক কাগজ সংযুক্তি দিয়েছেন। সেগুলো পর্যালোচনা করা হবে। আমরা দেখব, তার কাছে যা জানতে চেয়েছি সেগুলো জবাবে আছে কিনা। জবাবে সন্তুষ্ট হলেও আমরা লিখিতভাবে জানাব এবং সন্তুষ্ট না হলে ব্যবস্থা নেব, তা আপনারা জানবেন।

করোনা ভাইরাসের পরীক্ষা নিয়ে রিজেন্ট হাসপাতাল ও জেকেজি গ্রুপের প্রতারণা বিষয়ে নিজেদের অবস্থান ব্যাখ্যা করে গত ১১ জুলাই একটি প্রেস বিজ্ঞপ্তি দেয় স্বাস্থ্য অধিদপ্তর। প্রতিষ্ঠানটির সহকারী পরিচালক (সমন্বয়) ডা. মো. জাহাঙ্গীর কবির স্বাক্ষরিত ওই প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে, সম্প্রতি রিজেন্ট হাসপাতালের বিরুদ্ধে কিছু আইনি ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়েছে। প্রতিষ্ঠানটির মালিক মো. সাহেদ করিমের বিভিন্ন প্রতারণার তথ্য বেরিয়ে আসছে। স্বাস্থ্য অধিদপ্তর এই সম্পর্কে অবগত ছিল না। মার্চ মাসে করোনা আক্রান্ত রোগীদের যখন কোনো হাসপাতাল ভর্তি নিচ্ছিল না তখন রিজেন্ট হাসপাতাল কোভিড ডেডিকেটেড হিসেবে চুক্তি করার আগ্রহ প্রকাশ করে। তখন স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের নির্দেশে স্বাস্থ্য অধিদপ্তর রিজেন্ট হাসপাতালের সঙ্গে চুক্তি করে। তবে মন্ত্রণালয়ের নির্দেশে রোগী ভর্তি নেওয়ার বিষয়ে সমঝোতা স্বাক্ষর চুক্তির উদ্যোগ নেওয়া হয়। তবে তার আগে ক্লিনিক দুটি পরিদর্শন করে চিকিৎসার পরিবেশ উপযুক্ত দেখতে পেলেও তাদের লাইসেন্স নবায়ন ছিল না। লাইসেন্স নবায়নের শর্ত দিয়ে ২১ মার্চ রিজেন্টের সঙ্গে সমঝোতা চুক্তি হয়।

এই বক্তব্য প্রকাশের একদিন পর ১২ জুলাই ‘স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষ’ বলতে কী বোঝাতে চেয়েছেন, সে বিষয়ে ব্যাখ্যা চাওয়া হয় অধিদপ্তর মহাপরিচালকের কাছে। স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের উপসচিব শারমিন আকতার জাহান স্বাক্ষরিত এই অফিস আদেশে বলা হয়, বিভিন্ন পত্রিকায় প্রকাশিত স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের সংবাদ বিজ্ঞপ্তির প্রতি মন্ত্রণালয়ের দৃষ্টি আকৃষ্ট হয়েছে। ওই সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে, স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের নির্দেশে স্বাস্থ্য অধিদপ্তর রিজেন্ট হাসপাতালের সঙ্গে চুক্তি করেছে। কিন্তু যে কোনো হাসপাতালের সঙ্গে চুক্তির আগে তা সরেজমিন পরিদর্শন, হাসপাতাল পরিচালনার অনুমতি পরীক্ষা-নিরীক্ষার যন্ত্রপাতি, জনবল ও ল্যাব ফ্যাসিলিটি বিশ্লেষণ করে উত্তীর্ণ বিবেচিত হলেই চুক্তি করার সুযোগ রয়েছে। তাই রিজেন্টের সঙ্গে চুক্তির আগে কী কী বিষয় বিবেচনা করা হয়েছিল, চুক্তি করার শর্তগুলো প্রতিপালনে কী কী পদক্ষেপ নেওয়া হয়েছিল আর স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষ বলতে কী বোঝানো হয়েছে এ বিষয়ে সুস্পষ্ট ব্যাখ্যা পরবর্তী তিন কার্যদিবসের মধ্যে জমা দেওয়ার জন্য বলা হয়।

advertisement
Evaly
advertisement