advertisement
advertisement
advertisement
advertisement
advertisement

বার্সায় আসছেন গুস্তাভো মাইয়া

ক্রীড়া ডেস্ক
১৬ জুলাই ২০২০ ০০:০০ | আপডেট: ১৬ জুলাই ২০২০ ০০:০৯
advertisement

ফুটবল বিশ্বে একের পর এক বিস্ময়কর প্রতিভা উপহার দিতে জুড়ি নেই ব্রাজিলের। জন্মের পর থেকেই ব্রাজিলের শিশুরা বেড়ে ওঠে ফুটবল পায়ে নিয়ে। যার সুবাদে দেখা মেলে নেইমার জুনিয়র, রবিনহো, উইলিয়ান, গ্যাব্রিয়েল জেসুস, ভিনিসিয়াস জুনিয়রদের মতো প্রতিভাবান খেলোয়াড়দের।

সে তালিকায় সম্ভাব্য নাম সাও পাওলোর ১৯ বছর বয়সী উইঙ্গার গুস্তাভো মাইয়া ডি সিলভা। খেলার ধরন দেখে অনেকেই আদর করে ডাকেন নতুন নেইমার। তার পেছনে বার্সেলোনার নজর গত মৌসুম থেকেই। তাকে পেতে জানুয়ারিতে কিছু অগ্রিমও করে রেখেছিল কাতালানরা। কিন্তু গ্রীষ্মের ট্রান্সফার উইন্ডো খোলার পরও চুক্তি নিয়ে কোনো আলোচনা নেই। তাতে গুঞ্জন উঠেছে আর্থিক সংকটে থাকা দলটি হয়তো শেষ পর্যন্ত নাও কিনতে পারে সাও পাওলোর তরুণ তারকা গুস্তাভো মাইয়াকে। কিন্তু এমন গুঞ্জন উড়িয়ে দিয়েছেন মাইয়ার মুখপাত্র দানিলো সিলভা। খুব শিগগিরই চুক্তি হবে বলে জানান তিনি।

নেইমারের পর সরাসরি ব্রাজিল থেকে কোনো ফরোয়ার্ড না কেনা বার্সার নজর পড়েছিল তরুণ স্ট্রাইকার গুস্তাভো মাইয়ার দিকে। তাকে তাদের এতটাই ভালো লেগেছিল যে, গত জানুয়ারিতে ১০ লাখ ইউরো (সাড়ে ৯ কোটি টাকা) দিয়ে মাইয়ার জন্য ‘অগ্রিম বুকিং’ দিয়ে রেখেছিল বার্সেলোনা। কিন্তু অগ্রিম বুকিং দিলেই তো আর হয় না, কোনো ফুটবলারকে কিনতে হলে পুরো টাকাটাই দিতে হয়। আর সেটি দিতেই একটু গড়িমসি করছিল বার্সা।

শর্ত অনুযায়ী, জুলাই মাসের ১৫ তারিখের মধ্যে বাকি ৩৫ লাখ ইউরো পরিশোধ করে মাইয়াকে ঘরে তোলার কথা বার্সেলোনার। সে সময়সীমা শেষ হচ্ছে গতকাল। কিন্তু সময়সীমা প্রায় শেষের দিকে আসার পরও বার্সা চুক্তি পূরণের ব্যাপারে আগ্রহ না দেখানোয় সংশয় দেখা দিয়েছিল মাইয়ার ভবিষ্যৎ নিয়েই। যদিও মাইয়ার মুখপাত্র দানিলো সিলভা নিঃসন্দেহ ছিলেন গোটা সময়।

গত মাসে তিনি বলেছিলেন, ‘আমরা নিশ্চিত, বার্সেলোনা মাইয়াকে কিনে নেবে। এর মধ্যেই ক্লাবটি এ ব্যাপারে আমাদের ইঙ্গিত দিয়েছে, মাইয়াও ঘরে বসে স্প্যানিশ ভাষা শেখা শুরু করে দিয়েছে।’

দানিলোর কথাই সত্যি হয়েছে। একটু দেরি হলেও মাইয়াকে দলে ভিড়িয়েছে বার্সা এবং সেটি পুরো ৪৫ লাখ ইউরো পরিশোধ করেই। ইএসপিএন, ফোর্বসসহ বেশ কিছু গণমাধ্যম নিশ্চিত করেছে চুক্তির খবর। পরবর্তীতে বার্সা যদি মাইয়াকে অন্য কোনো ক্লাবের কাছে বিক্রি করে দেয়, তবে যত টাকায় বিক্রি করবে, তার ৩০ শতাংশ সাও পাওলোকে দিতে হবে বার্সেলোনার, এমন শর্তও দেওয়া হয়েছে চুক্তিতে। সাও যুব ফুটবল কাপে দুর্দান্ত পারফরম্যান্স দেখিয়ে নজর কেড়েছিলেন মাইয়া। ১৯ বছর বয়সী উইঙ্গার সাত ম্যাচে গোল করেছিলেন তিনটি। অ্যাটলেটিকো মাদ্রিদ ও লিভারপুলের মতো ক্লাবগুলো চেয়েছিল মাইয়াকে। কিন্তু বার্সা ছাড়া অন্য কোনো ক্লাবের কথা মাথাতেই আনেননি এ তারকা। সাও পাওলোর অ্যাকাডেমি থেকে এর আগে আলো ছড়িয়েছিলেন কাকা, কাসেমিরোর মতো তারকারা। দেখা যাক, মাইয়াও সে পথে হাঁটেন কি না।

advertisement
Evaly
advertisement