advertisement
Azuba
advertisement
advertisement
advertisement
advertisement
advertisement

সংকট খুব দ্রুতই কেটে যাবে, আশা মিরাজের

ক্রীড়া প্রতিবেদক
২৫ জুলাই ২০২০ ১৭:৫১ | আপডেট: ২৫ জুলাই ২০২০ ১৮:০৪
মেহেদী হাসান মিরাজ। পুরোনো ছবি।
advertisement

একের পর এক সিরিজ স্থগিত হয়েছে করোনাভাইরাসের মহামারির কারণে। স্থগিত হয়েছে এশিয়া কাপসহ মেগা টুর্নামেন্ট টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপও। দেশের ক্রিকেটে ২২ গজের পিচে কবে বল গড়াবে এখনো তা অন্ধকারে। তবে স্পিনার মেহেদী হাসানের আশা সংকট কেটে যাবে খুব দ্রুতই।  

আজ শনিবার খুলনার শেখ আবু নাসের স্টেডিয়ামে রানিং-জিম শেষে মেহেদী মিরাজ এই প্রত্যাশা করেন। মিরাজ বলেন, ‘আমি মনে করছি বর্তমান যে সংকট চলছে সেটা দ্রুতই কাটিয়ে উঠবো আমরা। আশা করি দ্রুত মাঠে ফিরবো, খেলাধুলা শুরু হবে।’

বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডও (বিসিবি) এখন কাজ করছে স্থগিত হওয়া সিরিজগুলো আয়োজন করার জন্য। অক্টোবরে শ্রীলঙ্কা সফরের জন্য জোর চেষ্টা চালচ্ছে বোর্ড। ঈদের পরে জৈব সুরক্ষিত শুরু হবে ঘরোয়া ক্রিকেটের খেলা। এ জন্যও বিসিবি কাজ চালিয়ে যাচ্ছে।

নির্ধারিত সূচি অনুযায়ী মিরাজ আজ রানিং-জিম করেছেন সকাল ৯টা থেকে। করোনার মধ্যে ঘরে বাসার থাকার কারণে মরচে ধরা শরীরে ধার ফেরাতে অন্যসব ক্রিকেটারের মতো মিরাজও ফিটনেস নিয়ে কাজ করছেন।

‘তিন মাসের মতো ঘরেই বসে ছিলাম। কোনো কিছু করতে পারিনি, এখন একটা সুযোগ হয়েছে। রানিং, জিম এর জন্য যতটুকু সম্ভব মাঠ ব্যবহার করা দরকার ততটুকু করছি। অনেকদিন পর এভাবে মাঠে অনুশীলনের সুযোগ পেয়েছি। আমি এখন ফিটনেস নিয়ে কাজ করছি, কারোনা শেষ চেষ্টা করছি নিজের ফিটনেসটা ধরে রাখার জন্য’- বলছিলেন মিরাজ।

আজ মিরাজের পরে খুলনায় অনুশীলন করেন নুরুল হাসান সোহান। চট্টগ্রামে জহুর আহমেদ চৌধুরী স্টেডিয়ামে অনুশীলন করেন নাঈম হাসান। ঢাকার মিরপুরে শেরে বাংলা জাতীয় স্টেডিয়ামে রানিং করেন শফিউল ইসলাম ও মেহেদী হাসান রানা। এ ছাড়া রানিং-ব্যাটিং করেন মুশফিকুর রহীম ও মোহাম্মদ মিঠুন। সিলেট আন্তর্জাতিক স্টেডিয়ামে রানিং-জিম করেন খালেদ আহমেদ ও নাসুম আহমেদ। অন্যদিকে রাজশাহীতে অনুশীলন করেন নাজমুল হোসেন শান্ত।

advertisement