advertisement
Azuba
advertisement
advertisement
advertisement
advertisement
advertisement

আল জাজিরায় সাক্ষাৎকার দিয়ে গ্রেপ্তার
রায়হানের সঙ্গে দেখা করতে পারেননি আইনজীবীরা

অনলাইন ডেস্ক
২৭ জুলাই ২০২০ ১৭:১৪ | আপডেট: ২৭ জুলাই ২০২০ ২০:০৭
রায়হান কবির
advertisement

কাতারভিত্তিক সংবাদমাধ্যম আল জাজিরাকে সাক্ষাৎকার দিয়ে মালয়েশিয়ায় গ্রেপ্তার রায়হান কবিরের সঙ্গে দেখা করতে পারেননি তার আইনজীবীরা। পূর্ব নির্ধারিত সময় অনুযায়ী আজ সোমবার দুপুর ২টায় আইনজীবীরা মালয়েশিয়ান ইমিগ্রেশন কর্তৃপক্ষের কাছে গিয়ে রায়হানের সঙ্গে দেখা করতে চান। তখন তাদের জানানো হয়, পরে তারা দেখা করার জন্য তারিখ দেবেন।

রায়হানের আইনজীবী সুমিতা শান্তিনি কিষনা (চেম্বারস অফ সুমিতা) এবং সেলভারাজ চিন্নিয়াহ (মেসার্স সিআর সেলভা) জানান,  মালয়েশিয়ান পুলিশ ও ইমিগ্রশন বিভাগকে তারা শনিবারই দেখা করার জন্য আবেদন জানিয়েছেন। সে অনুযায়ী আজকে দেখা করতে গেলে তাদের জানানো হয় যে, দেখা করা যাবে না। কবে দেখা করা যাবে জানতে চাইলে কর্তৃপক্ষ তাদের জানিয়েছে, তারা আরেকটি তারিখ দেবে।

আইনজীবীরা দেখা করতে না পারলেও হাইকমিশনের কর্মকর্তারা আজ রায়হানের সঙ্গে দেখা করবেন বলে জানা গেছে।

রায়হানের আইনজীবী সুমিতা বলেন, ‘রায়হানের পরিবার যেহেতু তাদের নিয়োগ দিয়েছে, কাজেই তারা চান হাইকমিশনের কর্মকর্তারা যেন আইনজীবী হিসেবে তাদের সঙ্গে রাখে। এ ব্যাপারে তারা বাংলাদেশের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় ও হাইকমিশনের সহায়তা চেয়েছেন।’

আল জাজিরায় প্রচারিত ‘১০১ ইস্ট’ অনুষ্ঠানে ২৫ মিনিট ৫০ সেকেন্ডের ওই প্রতিবেদন প্রচারিত হয়। করোনাভাইরাসের প্রাদুর্ভাবের সময় চলাকালীন লকডাউনে গরীব, দুস্থ, সহায়তাকামী অবৈধ অভিবাসীদের সঙ্গে সেখানকার পুলিশের আচরণ নিয়ে কথা বলেন রায়হান।

আল জাজিরাকে রায়হান বলেন, ‘পুলিশ তাদের ধোঁকা দিচ্ছে। খাবার, পানি, সহায়তা দেওয়া হবে বলে তাদের ডেকে নিয়ে যাচ্ছে। তারা জানেও না তাদের গ্রেপ্তার করা হবে। তাদের একটাই দোষ, তাদের কাছে কোনো বৈধ কাগজ নেই।’

তার এক বন্ধুকেও গ্রেপ্তার করে নিয়ে গেছে মালয়েশিয়া পুলিশ। রায়হান বলেন, ‘আমি থানায় গিয়েছিলাম, ইমিগ্রেশনে গিয়েছি। তাদের কাছে অনুরোধ করেছি; একটা বার অন্তত আমার বন্ধুর সাথে দেখা করতে দিন। তারা শোনেননি।’

সংবাদমাধ্যমটির ইউটিউব চ্যানেলে প্রতিবেদনটি প্রকাশের পর থেকে সমালোচনা শুরু হয়। তবে দেশটির সরকার এমন অভিযোগ সরাসরি অস্বীকার করেছে।

দ্য স্টার’র খবরে বলা হয়েছে, মালয়েশিয়ার অভিবাসন আইন ১৯৫৯/৬৩’র আওতায় তদন্তের জন্য রায়হান কবিরের সন্ধান চাইছে কর্তৃপক্ষ। এ ছাড়া অভিবাসন কর্তৃপক্ষ তাদের বিবৃতিতে রায়হান কবিরের অবস্থান সম্পর্কে কোনো তথ্য জানা থাকলে ফোন দিয়ে জানানোর জন্য অনুরোধ করেছে।

এ ছাড়া আল জাজিরার ওই প্রতিবেদককে ডাকা হবে বলে জানিয়েছেন মালয়েশিয়া পুলিশের মহাপরিদর্শক আব্দুল হামিদ বাদর। তিনি বলেন, ‘দেশ বিরোধিতাসহ কয়েকটি অপরাধের বিষয়ে তদন্ত করা হচ্ছে। আল জাজিরার বিরুদ্ধে বেশ কয়েকটি অভিযোগ দায়ের হয়েছে। ওই প্রতিবেদককে দ্রুত কয়েকটি প্রশ্নের জবাব দেওয়ার জন্য ডাকা হবে। দণ্ডবিধি, দেশবিরোধিতাসহ বেশ কয়েকটি আইনের আওতায় তারা তদন্তের মুখোমুখি হবেন। আমাদের প্রশ্নের জবাব দেওয়ার পর আমরা দেখব তাদের বিরুদ্ধে অভিযোগ আনা হবে কি না।’

আল জাজিরার বিরুদ্ধে মিথ্যা প্রতিবেদন প্রকাশের অভিযোগ তুলে মালয়েশিয়া নাগরিকদের কাছে ক্ষমা চাওয়ার আহ্বান জানিয়েছেন দেশটির প্রতিরক্ষামন্ত্রী ইসমাইল সাবরি বিন ইয়াকুব।

গত শুক্রবার সন্ধ্যায় রায়হানকে গ্রেপ্তার করে মালয়েশিয়ার পুলিশ। 

advertisement