advertisement
advertisement
advertisement
advertisement

হ্যাকারদের ফাঁদে পা দিচ্ছেন না তো!

অনলাইন ডেস্ক
২৯ জুলাই ২০২০ ১৬:৪২ | আপডেট: ২৯ জুলাই ২০২০ ১৬:৪২
প্রতীকী ছবি
advertisement

আপনার ব্যবহৃত ল্যাপটপ বা মুঠোফোনের হোয়াটসঅ্যাপে ‘কিউআর কোড’ স্ক্যানে ফাঁস হচ্ছে ব্যক্তিগত তথ্য। আপনি কি জানেন, আপনার মুঠোফোনের হোয়াটসঅ্যাপ তৃতীয় কোনো ব্যক্তি দেখছেন? হ্যাঁ, আপনি একটি ভুল পদক্ষেপ করলেন আপনার হোয়াটসঅ্যাপ অ্যাকাউন্ট ‘হ্যাক’ হতে পারে! ভাবছেন কি করে?

এই হ্যাকিং হয়ে থাকে ‘কিউআর হাইজ্যাক’ কোডের মাধ্যমে। সাধারণত আমরা ল্যাপটপ বা কম্পিউটারে কিংবা মুঠোফোনে হোয়াটসঅ্যাপ অ্যাকাউন্ট চালু করি হোয়াটসঅ্যাপ ওয়েবের মাধ্যমে। সেটা তো সুরক্ষিত।

কিন্তু অনেক ক্ষেত্রে দেখা যায়, অফার সংক্রান্ত প্রতিদিন কোনো না কোনো ইমেইল আসে। যেখানে অফার নিতে হলে কিউআর কোড দেওয়া হয়। সেটা আপনাকে আপনার হোয়াটসঅ্যাপের মাধ্যমে স্ক্যান করতে বলা হয়। সেটি স্ক্যান করলেই আপনার অ্যাকাউন্টের সব তথ্য চলে যাবে হ্যাকারের কাছে, অনেক সময় বিভিন্ন পার্টির কাছে কিউআর কোড থাকে। যেটা স্ক্যান করে নাম নথিভুক্ত করতে বলা হয়। তাহলে পাওয়া যায় লোভনীয় ছাড়।

আসলে অনেক ক্ষেত্রে হ্যাকাররা হোয়াটসঅ্যাপের মধ্যে একটি কৃত্রিম কিউআর কোড তৈরি করে। যেটা আসলে ‘কিউআর হাইজ্যাক’ কোড।

ইতিমধ্যে দেখা যায়, হ্যাকারের ফাঁদে পরেছেন বেশ কয়েকজন। এই ধরন একদম নতুন। কোনো ব্যক্তির যাবতীয় তথ্য হ্যাকার পেয়ে যাচ্ছে। ইচ্ছা মতো ব্যবহার করতে পারে। করতে পারে ব্ল্যাকমেলও!

হ্যাক হলে যা করবেন

আপনার অ্যাকাউন্ট হ্যাক হলে প্রথমেই হোয়াটসঅ্যাপটি আনইনস্টল করতে হবে। পুনরায় নতুন করে ইনস্টল করতে হবে। এর ফলে আপনার সিকিউরিটি কোড বদলে যাবে। অথবা অন্য ডিভাইস লগ অন থাকলে সেটা লগ আউট করে দিন। সেটা না করলে হ্যাকার তার ইচ্ছা মতো যতদিন খুশি আড়ি পাততে পারে।

advertisement
Evaly
advertisement