advertisement
advertisement
advertisement
advertisement
advertisement

মুজফ্ফর আহমদের জন্ম

আমাদের সময় ডেস্ক
৫ আগস্ট ২০২০ ০০:০০ | আপডেট: ৫ আগস্ট ২০২০ ০০:৩৭
advertisement

মুজফ্ফর আহমদ (১৮৮৯-১৯৭৩) উপমহাদেশের সমাজতান্ত্রিক আন্দোলনের অন্যতম পুরোধা ব্যক্তিত্ব। ১৯২০ সালের ১৭ অক্টোবর তৎকালীন সোভিয়েত ইউনিয়নের অঙ্গরাজ্য উজবেকিস্তানের রাজধানী তাসখন্দে ভারতের সর্বপ্রথম সমাজতান্ত্রিক দল গঠিত হয়। এর

মাসখানেক পর বঙ্গদেশেও সমাজতান্ত্রিক দল গঠিত হয়। এই সংগঠনের পুরোধা ছিলেন মুজফ্ফর আহমদ। বাংলাদেশ ও পশ্চিমবঙ্গে সমাজতান্ত্রিক আন্দোলন তার হাত ধরেই যাত্রা শুরু করে।

মুজফ্ফর আহমদ ১৮৮৯ সালের ৫ আগস্ট চট্টগ্রাম জেলার সন্দ্বীপের মুসাপুর গ্রামে জন্মগ্রহণ করেন। ১৯০৫ সালে পিতার মৃত্যুর সময় তিনি নোয়াখালীর বামনী মাদ্রাসায় পড়ছিলেন। সন্দ্বীপের কাগিল হাইস্কুলে পড়ার সময় মুজফ্ফর আহমদের সাংবাদিকতায় হাতে খড়ি। মাওলানা মনিরুজ্জামান ইসলামাবাদী সম্পাদিত ‘সাপ্তাহিক সুলতান’ পত্রিকায় সন্দ্বীপের স্থানীয় খবর পাঠাতেন।

১৯১১ সালে কলকাতায় অবস্থানরত বিভিন্ন মুসলিম ছাত্রের উদ্যোগে বঙ্গীয় মুসলিম সাহিত্য সমিতি গঠিত হয়। কলকাতার ৩২ কলেজ স্ট্রিটে এ সাহিত্য সমিতির অফিস ছিল। ১৯১৮ সালে সমিতির উদ্যোগে বের হয় ‘বঙ্গীয় মুসলিম সাহিত্য পত্রিকা’। ১৯১৮ সালে সমিতির সব সময়ের কর্মী হিসেবে তিনি এর অফিসেই থাকা শুরু করেন। তিনি ছিলেন সমিতির সহকারী সম্পাদক। পত্রিকার কাজ পরিচালনার সময় চিঠিপত্রের মাধ্যমে তার কবি কাজী নজরুল ইসলামের সঙ্গে পরিচয় হয়। ১৯২০ সালের শুরুর দিকে ৪৯ নম্বর বেঙ্গল রেজিমেন্ট ভেঙে দেওয়া হলে নজরুলের সৈনিক জীবনের অবসান ঘটে এবং তিনি কলকাতায় মুজফ্ফর আহমদের সঙ্গে সাহিত্য সমিতির অফিসে থাকতে শুরু করেন।

১৯১৯ সালে জালিয়ানওয়ালাবাগ হত্যাকা-ের প্রতিবাদে কলকাতায় অনুষ্ঠিত আন্দোলনে মুজাফ্ফর আহমদ অংশগ্রহণ করেন। ১৯২০ সালে বঙ্গীয় খেলাফত কমিটির সদস্য মনোনীত হলেও তিনি তা প্রত্যাখ্যান করেন। তিনি কাজী নজরুল ইসলামের সঙ্গে একটি ভিন্নধর্মী বাংলা দৈনিক ‘নবযুগ’ প্রকাশ করেন।

তিনি ৪০ বছর ধরে ভারতে কমিউনিস্ট পার্টির কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য, ন্যাশনাল বুক এজেন্সির একজন প্রধান সংগঠক ছিলেন। গণশক্তি প্রিন্টার্স প্রেস তিনিই গড়ে তোলেন। ‘কাকাবাবু’ নামে তিনি কর্মী ও নেতাদের কাছে জনপ্রিয় ছিলেন। মুজাফ্ফর আহমদ ১৯৭৩ সালে কলকাতায় মারা যান। ষ

advertisement
Evaly
advertisement