advertisement
advertisement
advertisement
advertisement
advertisement

জুলাইয়ে রেমিট্যান্সে নতুন রেকর্ড

নিজস্ব প্রতিবেদক
৫ আগস্ট ২০২০ ০০:০০ | আপডেট: ৫ আগস্ট ২০২০ ০১:৩৫
প্রতীকী ছবি
advertisement

 

করোনা সংক্রমণে দেশের অর্থনীতি নানা সংকটে থাকলেও রেকর্ড গড়ে চলেছে রেমিট্যান্স আহরণ। গত অর্থবছরের শেষ মাস জুনে সর্বোচ্চ রেমিট্যান্স আসে। নতুন অর্থবছরও শুরু হলো সর্বোচ্চ রেমিট্যান্স দিয়ে। ঈদের আগের মাস জুলাইয়ে প্রায় ২৬০ কোটি ডলার রেমিট্যান্স এসেছে, যা একক মাসে সর্বোচ্চ।

জানা যায়, করোনার প্রকোপের মধ্যে গত জুন মাসে প্রবাসীরা ১৮৩ কোটি ডলার আয় পাঠান। এর আগে কোনো একক মাসে এত আয় আসেনি। সব মিলিয়ে ২০১৯-২০ অর্থবছরে প্রবাসীদের ১ হাজার ৮২০ কোটি ডলার আয় দেশে আসে, যা আগের অর্থবছরের তুলনায় প্রায় ১১ শতাংশ বেশি। গত জুলাইয়ে সেই রেকর্ড ভেঙে প্রবাসী আয় এসেছে ২৫৯ কোটি ৯৫ লাখ ডলার। বাংলাদেশি টাকায় যার পরিমাণ ২২ হাজার ৯৫ কোটি টাকা। কোনো একক মাসে এত বেশি প্রবাসী আয় আগে আসেনি।

করোনার মধ্যে এত রেমিট্যান্স আসায় ব্যাংকগুলোয় ডলারের উদ্বৃত্ত দেখা দিয়েছে। এ জন্য বাংলাদেশ ব্যাংক ডলার কিনে দাম স্বাভাবিক রাখার চেষ্টা করছে। এর মধ্যে ডলারের বিপরীতে টাকা কিছুটা শক্তিশালী হয়েছে। দীর্ঘদিন ৮৪ টাকা ৯৫ পয়সায় প্রতি ডলারের দাম আটকে রেখেছিল কেন্দ্রীয় ব্যাংক, এখন কমে হয়েছে ৮৪ টাকা ৮০ পয়সা। এ ছাড়া রেমিট্যান্স বেশি হওয়ায় বৈদেশিক মুদ্রার রিজার্ভ ৩৭ বিলিয়ন ডলার অতিক্রম করেছে।

তবে সংশ্লিষ্টরা বলছেন, যা আয় আসছে, তা সাময়িক। এতে উচ্ছ্বাসের কিছু নেই। করোনার কারণে অনেক প্রবাসীকে দেশে ফেরত আসতে হচ্ছে। তারা সঞ্চয় ভেঙে টাকা দেশে ফেরত পাঠাচ্ছেন। বিদেশে যা সম্পদ করেছেন, সবকিছু বিক্রি করে দেশে ফেরত আসছেন। দেশ ফেরত এসব মানুষকে কাজে লাগানো এখন বড় চ্যালেঞ্জ।

ইসলামী ব্যাংকের মাধ্যমে সবচেয়ে বেশি আয় আসে। আর জুলাই মাসে ব্যাংকটির মাধ্যমে এসেছে ৮০ কোটি ডলার, যা যে কোনো সময়ের তুলনায় সর্বোচ্চ। রাষ্ট্র মালিকানাধীন অগ্রণী ব্যাংকের মাধ্যমে জুলাই মাসে ৪২ কোটি ডলার আয় আসে। যা যে কোনো মাসের চেয়ে বেশি।

যেসব দেশ থেকে সবচেয়ে বেশি রেমিট্যান্স বা প্রবাসী আয় আসে, সেসব দেশে করোনার সংক্রমণ ঠেকাতে রেমিট্যান্স হাউস ও ব্যাংকগুলো বন্ধ করা হয়েছিল। এখন অনেক দেশ খুলে দিয়েছে। তবে বাংলাদেশি শ্রমিকরা পড়েছেন বিপদের মুখে। অনেকে কাজও হারিয়েছেন। ফিরে আসছেন অনেকে। প্রবাসী আয় আহরণের শীর্ষ ১৫টি উৎস দেশ হলো- সৌদি আরব, সংযুক্ত আরব আমিরাত (ইউএই), যুক্তরাষ্ট্র, কুয়েত, যুক্তরাজ্য, মালয়েশিয়া, ওমান, কাতার, ইতালি, বাহরাইন, সিঙ্গাপুর, দক্ষিণ আফ্রিকা, ফ্রান্স, দক্ষিণ কোরিয়া ও জর্ডান।

 

 

advertisement
Evaly
advertisement