advertisement
advertisement
advertisement
advertisement
advertisement

শিক্ষামন্ত্রীর বিরুদ্ধে অপপ্রচারে গ্রেপ্তার ৩ শিক্ষক বরখাস্ত

নিজস্ব প্রতিবেদক
৫ আগস্ট ২০২০ ২৩:৩০ | আপডেট: ৫ আগস্ট ২০২০ ২৩:৩০
advertisement

চাঁদপুরে শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনির বিরুদ্ধে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুকে অপপ্রচারের অভিযোগে গ্রেপ্তার তিন কলেজশিক্ষককে বরখাস্ত করা হয়েছে।

তাদের মধ্যে ফরক্কাবাদ ডিগ্রি কলেজের আইসিটি শিক্ষক (প্রভাষক) মো. নোমান ছিদ্দিকী এবং ইসলামের ইতিহাস ও সংস্কৃতি (প্রভাষক) মো. জাহাঙ্গীর হোসাইনকে সাময়িকভাবে বরখাস্ত করা হয়েছে। এ ছাড়া ওই কলেজের ইংরেজির খণ্ডকালীন প্রভাষক এ বি এম আনিছুর রহমানকে স্থায়ীভাবে বরখাস্ত করা হয়েছে।

কলেজের পরিচালনা পর্ষদ গঠিত তদন্ত কমিটির সুপারিশমতে এ ব্যবস্থা নিয়েছে কলেজ গভর্নিং বডি। আজ বুধবার কলেজের সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়।

এতে বলা হয়েছে, শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনিসহ ফরক্কাবাদ ডিগ্রি কলেজ প্রতিষ্ঠাতা, সভাপতি ও গণ্যমান্যদের বিরুদ্ধে ফেসবুকে ফেক আইডির মাধ্যমে দীর্ঘদিন ধরে অপপ্রচারের অভিযোগে গত ১৯ জুলাই ফরক্কাবাদ ডিগ্রি কলেজের তিন শিক্ষককে পুলিশ কলেজের আইটি বিভাগ থেকে গ্রেপ্তার করে। এ ঘটনার পরিপ্রেক্ষিতে কলেজের পরিচালনা পর্ষদ গত ২২ জুলাই সভাপতির বাসভবনে সন্ধ্যায় এক জরুরি সভার মাধ্যমে ৩ সদস্য বিশিষ্ট একটি তদন্ত কমিটি গঠন করে। কমিটি সরেজমিনে তদন্তের মাধ্যমে জানতে পারে- এলাকার লোকজনের মধ্যে গ্রেপ্তারকৃতদের ব্যাপারে বিরূপ ধারণা রয়েছে। জাতীয় ও স্থানীয় পত্রিকায় ঘটনা প্রকাশের কারণে কলেজের ভাবমূর্তি ও সুনাম মারাত্মকভাবে ক্ষুণ্ন হয়েছে। ওই শিক্ষকদের বিরুদ্ধে পূর্বে ফৌজদারী মামলাও রয়েছে। তদন্ত কমিটির প্রতিবেদন ও সুপারিশের পরিপ্রেক্ষিতে কলেজ গভর্নিং বডি সিদ্ধান্তক্রমে তাদের বরখাস্ত করে।

এ বিষয়ে ফরক্কাবাদ ডিগ্রি কলেজ অধ্যক্ষ ড. হাছান খান বলেন, ‘এ বি এম আনিছুর রহমান মূলত আমাদের শিক্ষক নন। তিনি ফরক্কাবাদ সিনিয়র মাদ্রাসার শিক্ষক। তিনি আমাদের এখানে খণ্ডকালীন শিক্ষক হিসেবে ছিলেন। মাঝেমধ্যে দুই-একটি ক্লাস নিতেন।’

তিনি আরও বলেন, ‘তদন্ত কমিটি গত ৩ আগস্ট তদন্ত প্রতিবেদন দেয়। এরপর অভিযুক্ত তিন শিক্ষককে ৪ আগস্ট বহিষ্কার করা হয়।’

advertisement
Evaly
advertisement