advertisement
advertisement

ওসি প্রদীপসহ ৩ পুলিশ রিমান্ডে

নিজস্ব প্রতিবেদক
৬ আগস্ট ২০২০ ২১:০০ | আপডেট: ৭ আগস্ট ২০২০ ০৮:৪১
প্রদীপ কুমার দাশ
advertisement

সাবেক সেনা কর্মকর্তা মেজর (অবসরপ্রাপ্ত) সিনহা মো. রাশেদ খান হত্যা মামলায় টেকনাফ থানার প্রত্যাহার হওয়া ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) প্রদীপ কুমার দাশ, বাহারছড়া তদন্ত কেন্দ্রের ইনচার্জ পরিদর্শক লিয়াকত আলিসহ তিন আসামিকে জিজ্ঞাসাবাদ করতে সাত দিনের জন্য র‌্যাব হেফাজতে পাঠিয়েছেন আদালত।

আজ বৃহস্পতিবার রাতে কক্সবাজারের জ্যেষ্ঠ বিচারিক হাকিম আদালতের বিচারক মো. হেলাল উদ্দিন র‌্যাবের দশ দিনের রিমান্ড আবেদনের শুনানি করে সাত দিন মঞ্জুর করেন।

প্রদীপ ও লিয়াকতের সঙ্গে রিমান্ডে পাঠানো হয়েছে এসআই দুলাল রক্ষিতকে। এ মামলায় আত্মসমর্পণ করা বাকি চার আসামি কনস্টেবল সাফানুর করিম, কামাল হোসেন, আব্দুল্লাহ আল মামুন এবং এএসআই লিটন মিয়াকে দুই দিন জেল গেটে জিজ্ঞাসাবাদের অনুমতি দিয়েছেন বিচারক।

মামলার বাকি দুই আসামি এসআই টুটুল ও কনস্টেবল মো. মোস্তফা এখনো পলাতক। আদালত তাদের বিরুদ্ধে গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারির আদেশ দিয়েছেন।

গত ৩১ জুলাই খুন হওয়ার পর মেজর সিনহার বড় বোন শারমিন শাহরিয়ার ফেরদৌস বাদী হয়ে ওসি প্রদীপ, লিয়াকতসহ ৯ পুলিশ সদস্যের বিরুদ্ধে টেকনাফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে গতকাল বুধবার মামলাটি দায়ের করেন।

টেকনাফে সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতের আদেশ মতে টেকনাফ মডেল থানা বুধবার রাত সাড়ে ১০টার দিকে এ মামলাটি রুজু করে। এরপর আসামিদের বিরুদ্ধে গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারি হয়। আর এই গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারির ১৪ ঘণ্টা পর চট্টগ্রামের দামপাড়া পুলিশ লাইন হাসপাতাল থেকে পুলিশের কাছে ধরা দিয়ে আত্মসমর্পণ করার কথা জানান টেকনাফ থানার প্রত্যাহারকৃত ওসি প্রদীপ কুমার দাশ।

আজ দুপুর ২টায় প্রদীপ কুমারকে পুলিশ প্রহরায় কক্সবাজারে নিয়ে আসা হয়। বিকেল সোয়া ৫টার দিকে দিকে প্রদীপ কুমারকে বহনকারী পুলিশের গাড়িগুলো কক্সবাজার আদালত প্রাঙ্গণে এসে পৌঁছে। এ সড়কের দুই পাশে শত শত উৎসুক জনতা প্রদীপ কুমারকে দেখতে ভিড় জমায়।

এর আগে বিকেল সাড়ে ৪টার দিকে মামলার প্রধান আসামি ইন্সপেক্টর লিয়াকতসহ ছয় পুলিশ সদস্য আদালতে হাজির হন।

পরে প্রদীপ কুমারসহ সাত আসামি টেকনাফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতের সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট মোহাম্মদ হেলাল উদ্দিনের আদালতে আত্মসমর্পণ করে জামিনের আবেদন করেন তাদের আইনজীবীরা।

সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট মো. হেলাল উদ্দিন আত্মসমর্পণকারীদের জামিন আবেদন নাকচ করে তাদের জেলা কারাগারে পাঠানোর আদেশ দেন। এরপর র‌্যাবের পক্ষ থেকে রিমান্ডের আবেদন জানানো হয়।

প্রসঙ্গত, গত শুক্রবার রাতে কক্সবাজার টেকনাফ মেরিন ড্রাইভের বাহারছড়া পুলিশ চৌকিতে পুলিশের গুলিতে নিহত হন অবসরপ্রাপ্ত সেনা কর্মকর্তা সিনহা মোহাম্মদ রাশেদ।

advertisement
Evaly
advertisement