advertisement
advertisement
advertisement
advertisement
advertisement

ওসি প্রদীপের রোষানলে ২৩ মাস ধরে কারাগারে স্থানীয় সাংবাদিক

নিজস্ব প্রতিবেদক
৭ আগস্ট ২০২০ ০০:০০ | আপডেট: ৭ আগস্ট ২০২০ ১০:৪৯
ওসি প্রদীপ
advertisement

কক্সবাজারের টেকনাফ থানার সদ্য প্রত্যাহার হওয়া ওসি প্রদীপ কুমার দাসের রোষানলে পড়ে ২৩ মাস কারাগারে পড়ে আছেন স্থানীয় সাংবাদিক ফরিদুল মোস্তফা খান। ক্রসফায়ারের ভয় এবং নিরাপত্তার কারণে তাকে জামিনে বের করতেও চাইছেন না পরিবার।

তাদের অভিযোগ, দুর্নীতির সংবাদ প্রকাশের জেরে ‘কক্সবাজার বাণী’ পত্রিকার সম্পাদক ফরিদুলকে মাদক মামলায় ফাঁসিয়েছেন ওসি প্রদীপ। এমনকি কোনো পরোয়ানা ছাড়াই ঢাকার পল্লবী থেকে তাকে ধরে নিয়ে তিন দিন আটকে রাখা হয়। চলে অমানুষিক নির্যাতন। পরে মিথ্যা মামলা দিয়ে আদালতে পাঠানো হয় স্থানীয় এ সাংবাদিককে।

ফরিদুল মোস্তফার স্ত্রী হাসিনা আক্তারের অভিযোগ, তার স্বামী বিভিন্ন সময় টেকনাফ থানার ওসিসহ পুলিশ সদস্যদের নানা অনিয়ম ও দুর্নীতির সংবাদ প্রকাশ করেছেন। এ কারণে তাকে গত বছরের ২১ সেপ্টেম্বর রাজধানীর মিরপুর এলাকার বাসা থেকে ধরে নিয়ে শারীরিক নির্যাতন করে মিথ্যা মামলায় ফাঁসানো হয়। তার চোখে মরিচের গুঁড়া দিয়ে নির্যাতন করায় দুটি চোখই নষ্ট হওয়ার উপক্রম।

থানায় আটকে রেখে হাত-পাও ভেঙে দিয়েছে পুলিশ। চিকিৎসক জানিয়েছেন, ফরিদুলের এক চোখ নষ্ট হয়ে যেতে পারে। তিনি আরও দাবি করেন, তাদের পরিবারের কেউই কোনো মামলার আসামি নয়। কখনো তারা কোনো অনিয়মেও জড়াননি। এর পরও পুলিশ ঠাণ্ডা মাথায় তার স্বামীর বিরুদ্ধে মামলা দিয়ে সমাজে পুরো পরিবারটিকেই হেয় করেছে।

এদিকে সাবেক সেনা কর্মকর্তা মেজর (অব) সিনহা মো. রাশেদ খান হত্যা মামলায় ওসি প্রদীপ কুমার দাস কারাগারে থাকায় এ বিষয়ে তার কোনো বক্তব্য নেওয়া সম্ভব হয়নি।

advertisement
Evaly
advertisement