advertisement
advertisement
advertisement
advertisement
advertisement

মায়ের সঙ্গে অভিমান করে বের হলো স্কুলছাত্রী, ফিরল লাশ হয়ে

ধামরাই (ঢাকা) প্রতিনিধি
১৩ আগস্ট ২০২০ ১৬:৩৪ | আপডেট: ১৩ আগস্ট ২০২০ ১৬:৩৭
নদীতে ভাসমান মৃতদেহ। ছবি : আমাদের সময়
advertisement

ঢাকার ধামরাই উপজেলার দেপাশাই বংশী নদী থেকে মনিরা আক্তার (১৪) নামে দশম শ্রেণির এক ছাত্রীর মরদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ। আজ বৃহস্পতিবার দুপুরে উপজেলার সোমভাগ ইউনিয়নের দেপাশাই এলাকায় বংশী নদী থেকে তার মরদেহ উদ্ধার করা হয়।

জানা যায়, নিহত মনিরা রাজধানীর হাজারীবাগে পরিবারের সঙ্গে বসবাস করত। সে উপজেলার দেপাশাই গ্রামের মনির হোসেনের মেয়ে। নিহতের মরদেহ ময়নাতদন্তের জন্য শহীদ সোহরাওয়ার্দী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

পারিবারিক সূত্রে জানা যায়, গত মঙ্গলবার মায়ের সঙ্গে ঝগড়া হয় মনিরা আক্তারের। মায়ের সঙ্গে অভিমান করে সারা দিন না খেয়ে বিকেলবেলা বাড়ি থেকে বের হয়ে যায় সে। এরপর থেকে নিখোঁজ হয় মনিরা। এরপর অনেক খোঁজাখুঁজির পরও তার সন্ধান পান না তারা। পরে আজ দেপাশাই বংশী নদীতে ভাসমান অবস্থায় তার লাশ দেখতে পায় স্থানীয়রা।

নিহত মনিরা আক্তারের বাবা মনির হোসেন দৈনিক আমাদের সময়কে বলেন, ‘গত দুদিন পূর্বে আমার মেয়ে তার মায়ের সাথে অভিমান করে বাড়ি থেকে বের হয়। তারপর আর বাড়ি ফিরেনি। আমরা অনেক খোঁজাখুজি করেছি। আজ দুপুরে নদীতে থেকে মেয়ের লাশ উদ্ধার করেছি।’

বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন ধামরাই থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) দীপক চন্দ্র সাহা। তিনি বলেন, ‘আমরা যতটুকু জানতে পেরেছি তার মায়ের সাথে অভিমান করে ভালুম ব্রিজ হতে নদীর পানিতে পড়ে আত্মহত্যা করেছে। তারপর লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য মর্গে পাঠিয়েছি। রিপোর্ট পাওয়ার পর মৃত্যুর আসল কারণ নিশ্চিত হওয়া যাবে।’

এ ঘটনায় একটি ইউডি (অপমৃত্যু) মামলা নেওয়া হবে বলেও জানান ওসি।

advertisement
Evaly
advertisement