advertisement
advertisement
advertisement
advertisement
advertisement

করোনায় প্রাণ গেছে আরও ৩৪ জনের

দেশে মৃত্যু বাড়লেও ভয় কমেছে

নিজস্ব প্রতিবেদক
১৫ আগস্ট ২০২০ ০০:০০ | আপডেট: ১৪ আগস্ট ২০২০ ২১:৪৪
advertisement

দেশে করোনা ভাইরাসে নিশ্চিত আক্রান্তের সংখ্যা ২ লাখ ৭১ হাজার ৮৮১ জন। এর মধ্যে ৩ হাজার ৫৯১ রোগীর মৃত্যু হয়েছে। টানা বেশ কিছুদিন কমার পর আবার দৈনিক মৃত্যু বাড়তে শুরু করেছে দেশে। গতকাল শুক্রবার কিছুটা কমলেও (৩৪) তার আগের দিন বৃহস্পতিবার ২৪ ঘণ্টায় ৪৪ এবং বুধবার ৪২ জনের মৃত্যুর তথ্য দেয় স্বাস্থ্য অধিদপ্তর। এর আগে বেশ কয়েক দিনই দৈনিক মৃত্যুর হার ছিল ৩০ জনেরও নিচে। এদিকে করোনা নিয়ে ভীতি কমেছে সাধারণ মানুষের মধ্যে। স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের অতিরিক্ত মহাপরিচালক (প্রশাসন) অধ্যাপক ডা. নাসিমা সুলতানা

স্বাক্ষরিত গতকালের বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, দেশে ৮৭টি ল্যাবরেটরিতে করোনা শনাক্তকরণ পরীক্ষা চলছে। এসব ল্যাবে ২৪ ঘণ্টায় নমুনা সংগ্রহ হয় ১৩ হাজার ৭৫৭টি এবং পরীক্ষা হয়েছে ১২ হাজার ৮৫৬টির। এতে ২ হাজার ৭৬৬ রোগী শনাক্ত হয়, যেখানে ২৪ ঘণ্টায় শনাক্তের হার ২১ দশমিক ৫২ শতাংশ। দেশে এখন পর্যন্ত নমুনা পরীক্ষা হয়েছে ১৩ লাখ ২৮ হাজার ৭৫৭টি। মোট রোগী শনাক্ত হয় ২ লাখ ৭১ হাজার ৮৮১ জন, শনাক্তের হার ২০ দশমিক ৪৬ শতাংশ।

স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের তথ্যমতে, ২৪ ঘণ্টায় মারা গেছেন ৩৪ জন। এর মধ্যে ২৮ পুরুষ এবং ৬ জন নারী। দেশে এখন পর্যন্ত করোনায় মারা গেছেন তিন হাজার ৫৯১ জন। এর মধ্যে পুরুষ ২ হাজার ৮৪১ জন, যা মোট মৃতের ৭৯ দশমিক ১১ শতাংশ এবং নারী ৭৫০ জন, মৃতের ২০ দশমিক ৮৯ শতাংশ। নতুন করে মৃতদের বয়স বিশ্লেষণে দেখা যায়, ৩১ থেকে ৪০ বছরের মধ্যে দুজন, ৪১ থেকে ৫০ বছরের মধ্যে চারজন, ৫১ থেকে ৬০ বছরের মধ্যে ছয়জন এবং ৬০ বছরের বেশি বয়সী ২২ জন রয়েছেন। মৃতদের অঞ্চল বিশ্লেষণে দেখা যায়, ঢাকা বিভাগে ১৮ জন, চট্টগ্রাম বিভাগে দুজন, রাজশাহী বিভাগে চারজন, খুলনা বিভাগে একজন, বরিশাল বিভাগে একজন, সিলেট বিভাগে চারজন, রংপুর বিভাগে দুজন ও ময়মনসিংহ বিভাগে দুজন রয়েছেন। শনাক্ত বিবেচনায় মৃত্যুর হার ১ দশমিক ৩২ শতাংশ।

স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের তথ্যমতে, ২৪ ঘণ্টায় সুস্থ হয়েছেন ১ হাজার ৭৫২ জন। দেশে এখন পর্যন্ত সুস্থ হয়েছেন ১ লাখ ৫৪ হাজার ৮৭১ জন। শনাক্ত বিবেচনায় সুস্থতার হার ৫৭ দশমিক ৬১ শতাংশ। অঞ্চল বিশ্লেষণে দেখা যায়, ঢাকা বিভাগে ৬৩০ জন, চট্টগ্রাম বিভাগে ২৮০ জন, রংপুর বিভাগে ১৪০ জন, খুলনা বিভাগে ১৬৯ জন, বরিশাল বিভাগে ৬৪ জন, রাজশাহী বিভাগে ২৯১ জন, সিলেট বিভাগে ৩৬ জন ও ময়মনসিংহ বিভাগে ১৪২ জন রয়েছেন।

অধ্যাপক ডা. নাসিমা সুলতানা বলেন, নতুন করে আইসোলেশনে নেওয়া হয়েছে ৭৩৯ জনকে, মোট ৬০ হাজার ৭৫৯ জন। ২৪ ঘণ্টায় ছাড়া পেয়েছেন ৬৮৪ জন, এখন পর্যন্ত ছাড়া পেয়েছেন ৪০ হাজার ৯৯৬ জন। বর্তমানে আইসোলেশনে আছেন ১৯ হাজার ৭৬৩ জন। ২৪ ঘণ্টায় কোয়ারেন্টিন করা হয়েছে ১ হাজার ৮৯৮ জনকে, মোট পাঠানো হয় ৪ লাখ ৬৩ হাজার ৯৬১ জনকে। নতুন করে ২ হাজার ৭৬ জনসহ এখন পর্যন্ত ছাড়া পেয়েছেন ৪ লাখ ১১ হাজার ২৩৭ জন। বর্তমানে আছেন ৫২ হাজার ৭২৪ জন।

advertisement
Evaly
advertisement