advertisement
advertisement
advertisement
advertisement
advertisement

ফাইজারের করোনা ভ্যাকসিন ট্রায়ালে বাংলাদেশি

কৌশলী ইমা,নিউইয়র্ক
১৪ সেপ্টেম্বর ২০২০ ১২:২৭ | আপডেট: ১৪ সেপ্টেম্বর ২০২০ ১২:২৭
তিতাস মাহমুদ
advertisement

বিখ্যাত ওষুধ কোম্পানি ফাইজার তাদের করোনাভাইরাসের টিকার তৃতীয় ধাপের ট্রায়াল শুরু করেছে। এতে অংশ নিয়েছেন যুক্তরাষ্ট্রের যুক্তরাষ্ট্রের ওহাইয়ো অঙ্গরাজ্যের একটি হাসপাতালে কর্মরত বাংলাদেশি চিকিৎসক তিতাস মাহমুদ। তিনি বিখ্যাত নাট্যকার অধ্যাপক মমতাজ উদদীন আহমদের ছেলে। নিজেই ট্রায়ালে অংশ নেওয়ার কথা জানান তিতাস।

বিষয়টি নিয়ে কথা হলে তিতাস বলেন, ‘আমি যে হাসপাতালে কাজ করি, সেটি একটি রিসার্চ হাসপাতাল। এখানে প্রায় ত্রিশ হাজার লোক কাজ করে। আমাদের সবার কাছে একটি ইমেইল করা হয়, ফাইজারের রিসার্চ সেন্টার সাড়ে ৫শ স্বেচ্ছাসেবক নেবে। ওয়েবসাইটেও দেওয়া হয়। আমি নিজ উদ্যোগে পরবর্তী খোঁজগুলো নিতে শুরু করি। তাদের চিফকে ফোন করে বলি- আমি অংশ নিতে আগ্রহী। তারা আমার সঙ্গে প্রাথমিকভাবে কথা বলা শুরু করে।’

বাংলাদেশি এ চিকিৎসক বলেন, ‘ফাইজার থেকে প্রথমে ফোনে কথা বলে আমার পার্সোনাল তথ্যগুলো নেয়, আমার কোনো রোগ আছে কিনা, কোনো ধরনের ওষুধ সেবন করি কিনা। সেসব খুব জরুরি না, কারণ ফেইজ-থ্রি ট্রায়ালে ওরা সবধরনের রোগীই থাকুক সেটা চায়। ১৮ থেকে ৮২ বছর বয়সীদের মধ্যে এটি করা হচ্ছে। এরপর তারা আমাকে ইমেইলে ২৬/২৭ পাতার একটি শর্তনামা পাঠায় যেখানে প্রধান হলো- আমি একেবারেই স্বপ্রণোদিত হয়ে স্বেচ্ছায় এতে অংশ নিতে রাজি হয়েছি সেটা ঘোষণা দিতে হবে।’

এর আগে ট্রায়ালে অংশ গ্রহণের বিষয়টি নিশ্চিত হয়ে সামাজিকমাধ্যম ফেসবুকে একটি পোস্ট করে বিষয়টি নিশ্চিত করেন তিতাস মাহমুদ। গত শুক্রবার দেওয়া পোস্টে তিনি লেখেন- “করোনা মহামারির শুরু থেকে সবাই অত্যন্ত শ্রদ্ধাভরে আমাদের ‘ফ্রন্ট লাইন হিরো’ বলে আসছেন। এই ঢালাওভাবে বলার ব্যাপারটিতে সত্যি ব্যক্তিগতভাবে আমি কখনোই আহ্লাদিত হইনি। কিন্তু আজ করোনা ভ্যাকসিন আবিষ্কারে ‘ফাইজারের ফেইজ থ্রি ট্রায়াল’ এর একজন সাবজেক্ট হতে পেরে নিজেকে বেশ ভাগ্যবান মনে হচ্ছে।”

advertisement
Evaly
advertisement