advertisement
advertisement
advertisement
advertisement
advertisement

এবার ইসরায়েলের সঙ্গে সম্পর্ক স্থাপন করবে ওমান?

অনলাইন ডেস্ক
১৪ সেপ্টেম্বর ২০২০ ১৩:৫৩ | আপডেট: ১৪ সেপ্টেম্বর ২০২০ ১৪:২৮
ওমানের পররাষ্ট্রমন্ত্রীর সঙ্গে ইসরায়েলের প্রধানমন্ত্রী বেনিয়ামিন নেতানিয়াহু। পুরোনো ছবি
advertisement

বিশ্বের একমাত্র ইহুদী রাষ্ট্র ইসরায়েলের সঙ্গে আনুষ্ঠানিকভাবে কূটনৈতিক সম্পর্ক স্থাপন করেছে দুই মুসলিম প্রধান দেশ সংযুক্ত আরব আমিরাত ও ওমান। এবার দেশটির সঙ্গে আরেক আরব দেশ ওমান সম্পর্ক স্থাপন করতে পারে ধারণা করা হচ্ছে।

দুবাইভিত্তিক সংবাদমাধ্যম আরব নিউজের খবরে বলা হয়, সম্প্রতি ইসরায়েলের সঙ্গে বাহরাইন ও আরব আমিরাতের কূটনৈতিক সম্পর্ক স্থাপনকে স্বাগত জানিয়েছে ওমান। বিষয়টি নিয়ে রাষ্ট্রীয়ভাবে বিবৃতিও দিয়েছে তারা। আর ইসরায়েলি গোয়েন্দামন্ত্রীর বিবৃতি অনুযায়ী ওমানও তাদের সঙ্গে কূটনৈতিক সম্পর্ক স্থাপন করতে পারে বলে ধারণা করা হচ্ছে।

ওমান সরকার তাদের বিবৃতিতে বলেছে, কিছু আরব দেশের নতুন কৌশলগত পদক্ষেপে ফিলিস্তিনের ভূমি ইসরায়েলের দখলদারিত্ব বন্ধ ও পূর্ব জেরুজালেক রাজধানী করে স্বাধীন ফিলিস্তিন রাষ্ট্র গঠনের মধ্য দিয়ে শান্তি স্থাপিত হবে।’

গত ১৩ আগস্ট সংযুক্ত আরব আমিরাতের সঙ্গে ইসরায়েলের সম্পর্ক স্থাপনের কয়েক দিন পর ইসরায়েলের গোয়েন্দামন্ত্রী বলেছিলেন, ওমান আনুষ্ঠানিকভাবে তাদের সঙ্গে সম্পর্ক স্থাপন করতে পারে। সংযুক্ত আরব আমিরাত ও বাহরাইনের সঙ্গে সম্পর্ক স্থাপনে ওমান স্বাগত জানিয়েছে, কিন্তু তারা সম্পর্ক নমনীয় করার ব্যাপারে কোনো মন্তব্য করেনি।

২০১৮ সালে ইসরায়েলের প্রধানমন্ত্রী বেনিয়ামিন নেতানিয়াহু ওমান সফরে গিয়েছিলেন। তিনি ওমানের তৎকালীন সুলতান কাবুস বিন সাঈদের সঙ্গে মধ্যপ্রাচ্যে শান্তি স্থাপনের বিষয়ে আলোচনা করেন।

এদিকে ইসরায়েলের সঙ্গে আরব দেশগুলোর সম্পর্ক স্থাপনের ঘোষণাকে ফিলিস্তিনিদের অধিকার ও আল-আকসা মসজিদের সঙ্গে ‘বিশ্বাসঘাতকতা’ এবং ফিলিস্তিনিদের ‘পিঠে ছুরি মারার’ শামিল বলে মন্তব্য করেছেন ফিলিস্তিনি নেতারা।

advertisement
Evaly
advertisement