advertisement
advertisement
advertisement
advertisement
advertisement

জয়ে শুরু চেলসির

ক্রীড়া ডেস্ক
১৬ সেপ্টেম্বর ২০২০ ০০:০০ | আপডেট: ১৫ সেপ্টেম্বর ২০২০ ২২:৫১
advertisement

সোমবার ব্রাইটনের বিপক্ষে ৩-১ গোলের জয় দিয়ে প্রিমিয়ার লিগ মৌসুম শুরু করেছে বড় ব্যয়ের ক্লাব চেলসি। ক্লাবটির বস ফ্রাংক ল্যাম্পার্ড বিশ্বাস করেন ট্রান্সফার মার্কেটে ২০০ মিলিয়ন পাউন্ড ব্যয়ের কার্যকারিতা ইতোমধ্যেই দেখতে শুরু করেছে ব্লুজরা। প্রথম ম্যাচেই ল্যাম্পার্ড তার নতুন খেলোয়াড়দের পরখ করে নিয়েছেন। একই সঙ্গে করোনা মহামারীর কারণে আর্থিকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হওয়া সত্ত্বেও ট্রান্সফার মার্কেটের এই সফলতার প্রমাণ দেওয়াটাও জরুরি ছিল। জার্মান স্ট্রাইকার টিমো ওয়ার্নারকে আরবি লিপজিগ থেকে ৫৩ মিলিয়ন পাউন্ডে দলে ভিড়িয়েছে চেলসি। তার আদায় করা পেনাল্টি থেকেই জর্জিনহো ২৩ মিনিটে সফরকারী চেলসিকে এগিয়ে দেন। বায়ার লেভারকুজেন থেকে ৭০ মিলিয়ন পাউন্ডে দলে আসা আরেক স্ট্রাইকার কেই হাভার্টজ অবশ্য নিজেকে সেভাবে মেলে ধরতে পারেননি। কিন্তু ল্যাম্পার্ড বিশ^াস করেন এ তরুণ ফরোয়ার্ডের কাছ থেকে আগামী ম্যাচগুলোতে অবশ্যই ভালো কিছু দেখতে পারবে। ল্যাম্পার্ড বলেন, ‘টিমোর পেনাল্টি আদায় এটাই প্রমাণ করে যে সে কেমন খেলোয়াড়। পুরো ম্যাচেই সে নিজেকে প্রমাণ করেছে। তার পারফরম্যান্স আমার খুব ভালো লেগেছে। কেই আজ ভালো না করলেও এ দুজনই ক্লাবের সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ খেলোয়াড় হয়ে উঠবেন, এতে কোনো সন্দেহ নেই।’ ৫৪ মিনিটে লিনার্দো ট্রোসার্ড ব্রাইটনের পক্ষে সমতা ফেরান। এ গোলের পেছনে গোলরক্ষক কেপা আরিজাবালাগাকেই দায়ী করা যায়। কিন্তু দুই মিনিট পরেই রিস জেমসের শক্তিশালী স্ট্রাইকের পর ৬৬ মিনিট কার্ট জুমা চেলসির জয় নিশ্চিত করেন। এবারের গ্রীষ্মকালীন ট্রান্সফার উইন্ডোতে বিশে^র অন্য যে কোনো ক্লাবের তুলনায় এখন পর্যন্ত সবচেয়ে বেশি অর্থ ব্যয় করেছে চেলসি। আর এ কারণে শীর্ষ লড়াইয়ে টিকে থাকা নিয়ে ল্যাম্পার্ডও বেশ চাপের মধ্যে আছেন। চেলসি বস বলেন, ‘প্রথম দিনেই সব কিছু এক সঙ্গে সফল হবে এমন আশা করাটা কঠিন। কিন্তু তার পরও নতুনরা যেভাবে খেলেছে তাতে ভবিষ্যতের ইঙ্গিত পাওয়া যায়। আন্তর্জাতিক বিরতির পর আমরা মাত্র চার দিন এক সঙ্্েগ কাজ করেছি। এর আগে বেশ কিছু দিন নতুন খেলোয়াড়রা কোয়ারেন্টিনে ছিল।’

গত মৌসুমে চ্যাম্পিয়ন লিভারপুলের থেকে ৩৩ পয়েন্ট পিছিয়ে চতুর্থ স্থান লাভ করেছিল চেলসি। এর পর এফএ কাপের ফাইনালে আর্সেনালের কাছে পরাজিত হয়ে হতাশ হতে হয়। ওয়ার্নার ও হাভার্টজ ছাড়াও আয়াক্স থেকে প্লেমেকার হাকিম জিয়েচ ও লেস্টার থেকে লেফট-ব্যাক বেন চিলওয়েলকে উড়িয়ে এনেছেন ল্যাম্পার্ড।

advertisement
Evaly
advertisement