advertisement
advertisement
advertisement
advertisement
advertisement

বগুড়ার বিয়াম স্কুল অ্যান্ড কলেজে যৌন হয়রানি

দুই শিক্ষককে স্থায়ী বহিষ্কারের সুপারিশ

নিজস্ব প্রতিবেদক বগুড়া
১৯ সেপ্টেম্বর ২০২০ ০০:০০ | আপডেট: ১৮ সেপ্টেম্বর ২০২০ ২১:৪১
advertisement

বগুড়ার বিয়াম মডেল স্কুল অ্যান্ড কলেজের নারী শিক্ষার্থীদের যৌন হয়রানির অভিযোগে সাময়িক বরখাস্তকৃত দুই শিক্ষককে স্থায়ী বহিষ্কারের সুপারিশ করে বিয়াম ফাউন্ডেশনে প্রতিবেদন পাঠিয়েছে জেলা প্রশাসনের তদন্ত কমিটি।

তদন্ত কমিটির প্রধান অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (শিক্ষা ও আইসিটি) মাসুম আলী বেগ বৃহস্পতিবার রাতে বিষয়টি নিশ্চিত করেন। অভিযুক্ত দুই শিক্ষক হলেন- বাংলা বিভাগের প্রভাষক আব্দুল্লাহ আল মাহমুদ এবং ইংরেজি বিভাগের শিক্ষক আব্দুল মোত্তালিব।

জানা গেছে, বগুড়া বিয়াম মডেল স্কুল অ্যান্ড কলেজের বাংলা বিভাগের প্রভাষক আব্দুল্লাহ আল মাহমুদের বিরুদ্ধে যৌন হয়রানির অভিযোগ করে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে স্ট্যাটাস দেন সাবেক এক ছাত্রী। ওই পোস্টে ঘটনা ধামাচাপা দেওয়ার অনুরোধ করার অডিও রেকর্ড সংযুক্ত করেন ওই ছাত্রী। পোস্ট দেওয়ার মুহূর্তেই এ ঘটনা সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ভাইরাল হয়ে যায়। পরে ওই শিক্ষক নানাভাবে ছাত্রী ও তার পরিবারকে হুমকি-ধমকি দিচ্ছেন বলে জানা গেছে।

এ ছাড়া আব্দুল মোতালেব নামে আরেক শিক্ষকের বিরুদ্ধেও একই অভিযোগ আনেন আরেক ছাত্রী। এই দুই প্রভাষকের যৌন হয়রানির বিষয়টি ২৮ আগস্ট ভাইরাল হয়। পরে ২৯ আগস্ট অভিযোগের ভিত্তিতে ওই দুই শিক্ষককে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়।

এ ছাড়া অভিযোগ তদন্তে বগুড়ার অতিরিক্ত জেলা প্রশাসককে (শিক্ষা ও আইসিটি) প্রধান করে তিন সদস্যের তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়। কমিটির অন্য দুই সদস্য হলেন- বগুড়া সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) আজিজুর রহমান এবং বিয়াম মডেল স্কুল অ্যান্ড কলেজের অধ্যক্ষ মোস্তাফিজুর রহমান।

মাসুম আলী বেগ জানান, তদন্ত কমিটি বাংলা বিভাগের শিক্ষক আবদুল্লাহ আল মাহমুদ ও ইংরেজি বিভাগের শিক্ষক আবদুল মোত্তালিবের বিরুদ্ধে অভিযোগের সত্যতা পেয়েছে। ছাত্রীদের সঙ্গে ওই দুই শিক্ষকের আচরণ শিক্ষাসুলভ ছিল না। তদন্ত কমিটি দুই শিক্ষককে সর্বোচ্চ শাস্তি প্রদানের সুপারিশ করে জেলা প্রশাসকের কাছে প্রতিবেদন জমা দিয়েছে।

advertisement
Evaly
advertisement