advertisement
advertisement
advertisement
advertisement
advertisement

সীমান্তে উত্তেজনা প্রশমনে ফের বৈঠকে ভারত-চীন

অনলাইন ডেস্ক
২১ সেপ্টেম্বর ২০২০ ১১:৫৯ | আপডেট: ২১ সেপ্টেম্বর ২০২০ ১২:৪৩
পুরোনো ছবি
advertisement

সীমান্ত নিয়ে পূর্ব লাদাখে যে চরম সংঘাতের আবহ তৈরি হয়েছে, তা দূর করতে আজ সোমবার সকালে ফের বৈঠকে বসেছে ভারত ও চীন। এদিন সকাল ৯টায় প্রকৃত নিয়ন্ত্রণরেখার ওপারে চীনের দখলে থাকা মোল্ডোতে দু-দেশের সেনাবাহিনীর মধ্যে কর্পস কমান্ডার পর্যায়ের এই বৈঠক হচ্ছে। মোল্ডো এলাকাটি পূর্ব লাদাখের খুব কাছে অবস্থিত।

টাইমস অব ইন্ডিয়া, ইন্ডিয়া টাইমস এবং এনডিটিভি ভারতের একাধিক সংবাদমাধ্যম জানিয়েছে, আজকের দ্বিপাক্ষিক বৈঠকে ভারতীয় প্রতিনিধি দলের নেতৃত্ব দিচ্ছেন সেনাবাহিনীর ১৪ কর্পসের কমান্ডার লেফটেন্যান্ট জেনারেল হরিন্দর সিং। অন্যদিকে, চীনের সেনাবাহনীর সাউথ শিনচিয়াং রিজিয়নের কমান্ডার মেজর জেনারেল লিউ লিন তাদের দেশের প্রতিনিধি দলের প্রতিনিধি দলের নেতৃত্ব দিচ্ছেন।

এর আগে সীমান্ত সংঘাত এড়াতে দ্বিপাক্ষিক যে সমস্ত চুক্তি ও প্রোটোকল রয়েছে, তা অক্ষরে অক্ষরে মেনে চলা হবে বলে ভারত এবং চীন উভয় দেশই সম্মত হয়েছে। কর্পস কমান্ডার পর্যায়ের বৈঠকে এই সিদ্ধান্ত রূপায়ণ নিয়ে মূলত আলোচনা হতে পারে। আজকের বৈঠকে ইতিবাচক ফলাফলের বিষয়ে আশাবাদী দিল্লি।

এর আগে আরও পাঁচবার ভারত এবং চীনের সেনাবাহিনীর মধ্যে কর্পস কমান্ডার স্তরে বৈঠক হয়েছে। কিন্তু তাতে কোনো ইতিবাচক ফলাফল পাওয়া যায়নি।

সম্প্রতি মস্কোয় সাংহাই কো-অপারেশন অর্গানাইজেশনের বৈঠকের অবসরে চীনের বিদেশমন্ত্রী ওয়াং ই'র সঙ্গে দীর্ঘসময় ধরে কথা হয়েছিল ভারতের বিদেশমন্ত্রী এস জয়শংকরের। সেই আলোচনার পরিপ্রেক্ষিতেই দু'দেশ পাঁচটি বিষয়ে সহমতে আসে।

যার মধ্যে অন্যতম হলো- সীমান্ত ব্যবস্থাপনা নিয়ে বর্তমানে দু-দেশের মধ্যে যে সমস্ত চুক্তি ও প্রোটোকল রয়েছে, তা দু-পক্ষই অক্ষরে অক্ষরে মেনে চলবে। সীমান্তে শান্তি ও স্থিতাবস্থা যাতে বজায় থাকে দু-দেশই সেই মতো চলবে। এবং উত্তেজনা বাড়তে পারে এমন কোন পদক্ষেপ করা থেকে দু'পক্ষই নিজেদের বিরত রাখবে।

কিন্তু লাদাখ সীমান্তের অশান্তির জন্য চীনকে দায়ী করেছে ভারত। সম্প্রতি লাদাখ পরিস্থিতি নিয়ে সংসদে বিবৃতি দেন প্রতিরক্ষামন্ত্রী রাজনাথ সিং। তার দাবি, ঐতিহাসিকভাবে নির্ধারিত প্রকৃত নিয়ন্ত্রণরেখা চীন মানে না বলেই অশান্তি।

রাজনাথ এও স্পষ্ট করে বলেন, ‘সীমান্ত সমস্যার শান্তিপূর্ণ সমাধানই চায় ভারত, কিন্তু সার্বভৌমত্ব ও অখণ্ডতার প্রশ্নে আপোস করে নয়! প্রকৃত নিয়ন্ত্রণরেখায় চীন একপাক্ষিকভাবে স্থিতাবস্থা নষ্টের চেষ্টা করলে ভারত তা মানবে না। সীমান্তে যেকোনো কঠিন পরিস্থিতি মোকাবিলায় প্রস্তুত ভারতীয় সেনা।’

এমন এক আবহে সোমবার ভারত এবং চীনের মধ্যে সামরিক স্তরের বৈঠক থেকে সীমান্তে শান্তি প্রতিষ্ঠার কোনো দিশা দেখা যায় কি না, সেটাই এখন দেখার অপেক্ষা।

advertisement
Evaly
advertisement