advertisement
advertisement
advertisement
advertisement
advertisement

সব ফরম্যাটে খেলতে চান মোস্তাফিজ

ক্রীড়া প্রতিবেদক
২১ সেপ্টেম্বর ২০২০ ২০:২০ | আপডেট: ২১ সেপ্টেম্বর ২০২০ ২০:৫২
শেরে বাংলায় অনুশীলনে মোস্তাফিজ। ছবি : বিসিবি।
advertisement

বাংলাদেশ জাতীয় দলের হয়ে তিন ফরম্যাটেই (টেস্ট, ওয়ানডে ও টি-টোয়েন্টি) খেলতে চান মোস্তাফিজুর রহমান। বাঁহাতি এ পেসার এখন ইনসুইং নিয়ে কাজ করছেন। করোনাভাইরাস শুরুর আগে পেস বোলিং কোচ ওটিস গিবসন তাকে বল কীভাবে ভেতরে ঢোকাতে হয়, সে বিষয়ে টিপস দিয়েছিলেন।

কাটার মাস্টার জানিয়েছেন, ইনসুইংটা এখন তার ভালোই হচ্ছে। আরও কাজ করতে পারলে কৌশলটা খুব তাড়াতাড়ি রপ্ত করে ফেলতে পারবেন বলে মনে করছেন তিনি।

করোনা পরবর্তী ক্রিকেট চর্চা শুরু হয়েছে বাংলাদেশে। শ্রীলঙ্কা সফরকে ঘিরে বেড়েছে বিসিবির ব্যস্ততা। সফর নিয়ে কিছুটা অনিশ্চয়তা দেখা দিলেও দলগত অনুশীলন শুরু করে দিয়েছেন টাইগাররা। গতকাল রোববার থেকে শুরু হয়েছে স্কিল ট্রেনিং। ২৭ জন ক্রিকেটারকে এতে রাখা হয়েছে। সব কিছু ঠিকঠাক থাকলে ২৭ সেপ্টেম্বর শ্রীলঙ্কাগামী বিমানে উঠবেন ডমিঙ্গোর শিষ্যরা। মিরপুর শেরেবাংলা স্টেডিয়ামে এখন মুমিনুল, তামিমরা দলগত অনুশীলনের মাধ্যমে নিজেদের প্রস্তুত করে নিচ্ছেন।

শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে ওয়ার্ল্ড টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপের ম্যাচ খেলবে বাংলাদেশ। তিন ম্যাচের প্রথমটা শুরু হতে পারে ২৪ অক্টোবর। সাদা জার্সিতে মাঠে নামার অপেক্ষায় মোস্তাফিজুর রহমান। বাঁহাতি এই পেসার ওয়ানডে এবং টি-টোয়েন্টিতে দলের গুরুত্বপূর্ণ সদস্য হলেও টেস্টে নিজের জায়গাটা পাকাপোক্ত করতে পারেননি সেভাবে। ২৫ বছর বয়সী ‘সাতক্ষীরা এক্সপ্রেস’ এখন পর্যন্ত ৫৮টি ওয়ানডে এবং ৪১টি টি-টোয়েন্টি ম্যাচ খেলেছেন।

আর টেস্ট খেলেছেন মাত্র ১৩টি। সবশেষ গত বছর নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে ওয়েলিংটন টেস্টে খেলেছিলেন মোস্তাফিজ। শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে ওয়ার্ল্ড টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপের ম্যাচ দিয়ে আবারও জাতীয় দলে তার হারানো জায়গাটা ফিরে পেতে চান কাটার মাস্টার। সে লক্ষ্যেই অনুশীলনে কঠোর পরিশ্রম করে চলেছেন। করোনাভাইরাসের সময় ক্রিকেট বন্ধ ছিল। সে সময় ঘরবন্দি ছিলেন খেলোয়াড়রা। বাসায় থাকলেও অনুশীলন বন্ধ রাখেননি মোস্তাফিজ।

ফিটনেসের পাশাপাশি বাড়ির উঠানে নিয়মিত বোলিং অনুশীলন করেছেন। এরপর বিসিবির তত্ত্বাবধানে একক অনুশীলন শুরু হলে কোরবানির ঈদের পর ঢাকায় আসেন মোস্তাফিজ।

মোস্তাফিজ জানান, বাসায় বোলিং নিয়ে কাজ করেছেন নিয়মিত। ঢাকায় আসার পর ফিটনেসের পাশাপাশি বোলিং অনুশীলন করছেন এখন। সব কিছু মিলিয়ে তার মনে হচ্ছে, ভালোই যাচ্ছে। তিনি বলেন, ‘আমি তো চাই সব ফরম্যাটে খেলতে। এখন চেষ্টা করছি ফিটনেস, বোলিং স্কিলে উন্নতি করার। কোন কাজ করলে আমি সব ফরম্যাটে নিয়মিত হতে পারব, সে চেষ্টা করব।’

ক্রিকেট বিশ্বে কাটার মাস্টার হিসেবে পরিচিত মোস্তাফিজ। ভারতের বিপক্ষে অভিষেক ওয়ানডেতে সব আলো কেড়ে নিয়েছিলেন বাংলাদেশের এই পেসার। তার বড় অস্ত্র কাটার। এ ছাড়া বোলিং ভান্ডারে রয়েছে স্লোয়ার এবং ইয়র্কারও। এখন নতুন কোচ ওটিস গিবসনের সঙ্গে ইনসুইং নিয়ে কাজ করছেন।

মোস্তাফিজ বলেন, ‘করোনার আগে গিবসন গ্রিপ দেখিয়ে দিছিল যে, কী করলে বল ভেতরে ঢুকবে। ওটা নিয়েই কাজ করছিলাম। এখন আল্লাহ দিলে খুব ভালো যাচ্ছে। আরও কাজ করা লাগবে। ভালোভাবে কাজ করতে পারলে ভেতরে ঢোকাটা (ইনসুইং) আরও তাড়াতাড়ি আসবে।’

advertisement
Evaly
advertisement