advertisement
advertisement
advertisement
advertisement
advertisement

সাবেক মন্ত্রী কামরুলের মামলায় ডিশ ব্যবসায়ী রিমান্ডে

আদালত প্রতিবেদক
২২ সেপ্টেম্বর ২০২০ ২০:৪১ | আপডেট: ২৩ সেপ্টেম্বর ২০২০ ০০:৩৭
advertisement

সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ছড়িয়ে পড়া একটি ফোনালাগ ফাঁস হওয়া নিয়ে ঢাকা-২ আসনের সংসদ সদস্য ও সাবেক মন্ত্রী অ্যাডভোকেট কামরুল ইসলামের দায়ের করা একটি মামলায় আলী আহম্মেদ নামের এক ডিস ব্যবসায়ীর ছয় দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেছেন আদালত। গতকাল মঙ্গলবার ঢাকা অতিরিক্ত মুখ্য মহানগর হাকিম মোহাম্মদ আসাদুজ্জামান নূর এ রিমান্ডের আদেশ দিয়েছেন।

মামলার তদন্ত কর্মকর্তা ডিবি পুলিশের সাইবার অ্যান্ড স্পেশাল ক্রাইম বিভাগের পুলিশ পরিদর্শক (নি.) মুহাম্মদ সাইফুল ইসলাম ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনের এ মামলায় আসামির ১০ দিনের রিমান্ড আবেদন করেন।

আসামিরপক্ষে অ্যাডভোকেট জায়েদুর রহমান রিমান্ড বাতিল চেয়ে জামিনের আবেদন করেন। রাষ্ট্রপক্ষে ঢাকা বারের সাবেক সভাপতি গাজী শাহআলমসহ কয়েকজন আইনজীবী এর বিরোধধীতা করেন। উভয়পক্ষের শুনানি শেষে আদালত জামিন নামঞ্জুর করে রিমান্ডের  আদেশ দেন।

এর আগে গত ১১ সেপ্টেম্বর রাতে স্থানীয় ফিড অপারেটর আলী আহম্মেদ ও দেশত্যাগী সাংবাদিক কনক সারোয়ারের নামে রাজধানীর কামরাঙ্গীরচর থানায় অ্যাডভোকেট কামরুল ইসলাম বাদী হয়ে এ মামলাটি দায়ের করেন।

মামলায় বলা হয়, কামরাঙ্গীরচরের খলিফাবাগ ও রসুলপুর এলাকায় কেবল নেটওয়ার্কের লাইন সংযোগ রয়েছে ঢাকা টোটাল কেবল নেটওয়ার্কের। প্রতিষ্ঠানটির পাওনা টাকা আটকে রেখেছেন ফিড অপারেটর এবং ডিশ ব্যবসায়ী আলী আহাম্মেদ। বিষয়টি নিয়ে প্রতিষ্ঠানটি  বাদীর কাছে নালিশ দেন। নালিশের পর বাদী আসামি আলী আহম্মেদকে ফোন করে কেন টাকা দিচ্ছেন না, তা জানতে চান। ফোনে কথোপকথনটি ওই রেকর্ডকে বাদীর চাঁদাবাজি হিসেবে উল্লেখ করে সামাজিকমাধ্যম ফেসবুক ও ইউটিউবে প্রকাশ করেন দেশত্যাগী সাংবাদিক কনক সারোয়ার ও বিএনপির জলবায়ু পরিবর্তন বিষয়ক সম্পাদক একেএম ওয়াহিদুজ্জামান। তবে মামলায় ওয়াহিদুজ্জামানকে আসামি করা হয়নি।

advertisement
Evaly
advertisement