advertisement
advertisement
advertisement
advertisement
advertisement

নুরকে আইনি সহায়তা দেওয়ার আশ্বাস ড. কামালের

নিজস্ব প্রতিবেদক
২২ সেপ্টেম্বর ২০২০ ২১:৪৯ | আপডেট: ২৩ সেপ্টেম্বর ২০২০ ০৮:৪৫
নুরুল হক নুর ও ড. কামাল হোসেন
advertisement

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের কেন্দ্রীয় ছাত্র সংসদের (ডাকসু) সদ্য সাবেক সহসভাপতি (ভিপি) নুরুল হক নুরকে আটক ও হয়রানির নিন্দা জানিয়েছে গণফোরাম। প্রয়োজনবোধে নুরসহ আন্দোলনরত নেতাদের আইনি সহায়তা দেওয়ার আশ্বাসও দেওয়া হয়েছে। গতকাল মঙ্গলবার এ বিষয়ে গণমাধ্যমে কথা বলেন গণফোরাম সভাপতি ড. কামাল হোসেন ও সাধারণ সম্পাদক ড. রেজা কিবরিয়া।

নুরকে আইনি সহায়তা দেওয়ার বিষয়ে জানতে চাইলে ড. কামাল হোসেন বলেন, ‘যাদেরই আইনি সহায়তা প্রয়োজন, আমরা চেষ্টা করি তাদের পাশে দাঁড়ানোর। আমরা প্রাতিষ্ঠানিকভাবে আইনি সহায়তা দিয়ে যাচ্ছি। কারও সামর্থ্য না থাকলেও তাকে সহায়তা দেওয়া হয়। কেউ আমাদের কাছে সহায়তার জন্য আসলে সে ব্যবস্থা করা যাবে।’

নুরুল হক নুরকে আটক ও হয়রানি প্রসঙ্গে রেজা কিবরিয়া বলেন, ‘এ ধরনের হয়রানিমূলক আচরণের নিন্দা জানায় গণফোরাম। শিগগিরই এ বিষয়ে আমরা দলের পক্ষ থেকে আনুষ্ঠানিক বিবৃতি দেব।‘

প্রসঙ্গত, গত রোববার রাতে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের এক ছাত্রী রাজধানীর লালবাগ থানায় ধর্ষণ মামলা দায়ের করেন। মামলায় বাংলাদেশ সাধারণ ছাত্র অধিকার সংরক্ষণ পরিষদের আহ্বায়ক হাসান আল মামুনকে প্রধান করে মোট ছয়জনকে আসামি করা হয়। তাদের মধ্যে ধর্ষণে সহযোগিতাকারী হিসেবে নুরুল হক নুরের নাম উল্লেখ করা হয়েছে।

ওই মামলার প্রতিবাদে গত সোমবার সন্ধ্যায় রাজধানীর মৎস ভবনে বিক্ষোভ মিছিল থেকে নুরসহ সাতজনকে আটক করে পুলিশ। এরপর রাত ১০টার দিকে তাকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালে চিকিৎসার জন্য নেওয়া হয়। পরে ঢামেক হাসপাতাল থেকে রাত পৌনে ১২টার দিকে দ্বিতীয় দফায় নুর ও তার সহযোগী সোহরাবকে ডিবির কার্যালয়ে নেওয়া হয়। সবশেষে রাত পৌনে ১টার সময় ডিবি পুলিশের কার্যালয় থেকে ছেড়ে দেওয়া হয় ডাকসুর সাবেক ভিপি নুরকে।

সোমবার রাতেই নুরুল হক নুরের বিরুদ্ধে তরুণীকে অপহরণ, ধর্ষণ, ধর্ষণে সহযোগিতা ও ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে রাজধানীর কোতোয়ালি থানায় আরেকটি মামলা করা হয়। মামলায় নুরসহ ছয়জনকে আসামি করা হয়েছে।

advertisement
Evaly
advertisement