advertisement
advertisement
advertisement
advertisement
advertisement

মানহানিকর মন্তব্য : মহিলা লীগ নেত্রীর মামলায় ছাত্রলীগ নেতাসহ আসামি ১৫

নিজস্ব প্রতিবেদক
২৩ সেপ্টেম্বর ২০২০ ১৩:০০ | আপডেট: ২৩ সেপ্টেম্বর ২০২০ ১৩:৪০
advertisement

ফেসবুকে মানহানিকর মন্তব্যের অভিযোগে চুয়াডাঙ্গা সদর থানায় বাদী হয়ে একটি মামলা দায়ের করেন জেলা যুব মহিলা লীগের আহ্বায়ক আফরোজা পারভীন। গতকাল মঙ্গলবার ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে দায়ের করা এ মামলায় আসামি করা হয়েছে চুয়াডাঙ্গা পৌর ছাত্রলীগের সহসভাপতি জাহাঙ্গীর হোসেনকে। এ ছাড়া মামলার এজাহারে চুয়াডাঙ্গা পৌর এলাকার শান্তিপাড়ার মানিক খান, পৌর ছাত্রলীগের সহসভাপতি জাহাঙ্গীর হোসেন, বাহাদুরপাড়ার এলাকার রাকিবুল ইসলাম নিপ্পন ও আরামপাড়ার ফয়সাল খানের নামও উল্লেখ করেছেন পারভীন। রয়েছেন আরও কজন অজ্ঞাতনামা।

পারভীন তার মামলার এজাহারে উল্লেখ করেছেন, গত ১৮ সেপ্টেম্বর মানিক খান তার ফেসবুক অ্যাকাউন্টে মানহানিকর একটি পোস্ট দেন। জেলা যুব মহিলা লীগ নেত্রী আফরোজা পারভীনকে গত ১৯ সেপ্টেম্বর একই ধরনের পোস্ট দেন জাহাঙ্গীর হোসেন। এসব পোস্টে রাকিবুল ইসলাম ও ফয়সাল খানসহ আরও ১০-১৫ জন আপত্তিকর মন্তব্য করেন। আফরোজা পারভীনের দাবি, সামাজিকভাবে মর্যাদা ক্ষুণ্ন করার উদ্দেশ্যে মিথ্যা ও বানোয়াট তথ্য তার বিরুদ্ধে ফেসবুকে প্রচার করা হয়েছে।

পরে মামলাটি আমলে নিয়ে তদন্ত শুরু করে সদর থানা-পুলিশ। সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আবু জিহাদ ফকরুল আলম খান এ তথ্য নিশ্চিত করেন। এ বিষয়ে জানতে আসামিদের মুঠোফোন নম্বরে কল করে যোগযোগের চেষ্টা করা হলেও তাদের পাওয়া যায়নি।

ওসি আবু জিহাদ জানান, তাদের থানায় ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে মোট মামলা হয়েছে চারটি। অন্য তিনটি মামলার বাদী ও বিবাদী ক্ষমতাসীন দল আওয়ামী লীগ ও সহযোগী সংগঠনের নেতা-কর্মীরা। প্রথম মামলাটি করেন সদর হাসপাতালের আবাসিক চিকিৎসা কর্মকর্তা (আরএমও) শামীম কবির। মানহানিকর সংবাদ প্রকাশ ও তা ফেসবুকে পোস্ট করার অভিযোগ তুলে দুজন সাংবাদিকের বিরুদ্ধে মামলা করেন তিনি। মামলা তিনটির তদন্তের কাজ শেষ পর্যায়ে।

advertisement
Evaly
advertisement