advertisement
advertisement
advertisement
advertisement

চাঁদে যাচ্ছেন নারী

আমাদের সময় ডেস্ক
২৫ সেপ্টেম্বর ২০২০ ০০:০০ | আপডেট: ২৪ সেপ্টেম্বর ২০২০ ২৩:১৭
advertisement

চাঁদে এই প্রথম পা পড়তে যাচ্ছে কোনো নারীর। ১৯৬৯ সালে চাঁদে মানুষ প্রথম পদার্পণ করে। এর ৫৫ বছর পর ২০২৪ সালে আবারও চাঁদের মাটিতে হাঁটবেন দুজন- একজন নারী ও একজন পুরুষ। তারা হাঁটবেন চাঁদের দক্ষিণ মেরুতে। যুক্তরাষ্ট্রের মহাকাশ গবেষণা সংস্থা নাসার চিফ অ্যাডমিনিস্ট্রেটর জিম

ব্রিডেনস্টাইন আনুষ্ঠানিকভাবে এ ঘোষণা দিয়েছেন।

ব্রিডেনস্টাইন জানিয়েছেন, এবার টানা সাত দিন ধরে চাঁদের মাটিতে হাঁটাহাঁটি, নুড়ি-পাথর কুড়ানো ও নানা ধরনের গবেষণা চালাবেন দুই মহাকাশচারী। বহু বৈজ্ঞানিক আবিষ্কার, পৃথিবীতে অর্থনৈতিক সুফল পাওয়ার লক্ষ্যে এ যাত্রা। এভাবে পরবর্তী প্রজন্মকেও আমরা অনুপ্রাণিত করতে চাইছি।

এক দশকের মধ্যে লাল গ্রহ মঙ্গলের বুকে মানুষের পদার্পণের জন্য জরুরি গবেষণা ও প্রস্তুতি শুরু হবে চাঁদের মাটিতে এবারের পদার্পণ থেকেই। তারপর মহাকাশযানে চেপে পৃথিবীতে ফিরে আসবেন দুজন। তবে চাঁদে পদার্পণের জন্য কোন দুজনকে বেছে নেওয়া হয়েছে তাদের নাম জানায়নি নাসা। শুধুই খোলাসা করেছে চন্দ্রাভিযান আর্টেমিস মিশনের প্রথম পর্যায়ের পরিকল্পনা। পৃথিবী থেকে চাঁদে যেতে ১৯৬৯ সালে লেগেছিল তিন দিন। এবার আড়াই দিনেই তা করা যাবে।

নাসা জানায়, চাঁদে দ্বিতীয়বার মানুষের পদার্পণের জন্য অত্যন্ত শক্তিশালী ‘স্পেস লঞ্চ সিস্টেম (এসএলএস)’ ও মহাকাশযান ‘ওরিয়ন’ তৈরির কাজ প্রায় শেষ পর্যায়ে। ওরিয়নের চারটি ইঞ্জিনকে পরখ করে দেখার কাজও চূড়ান্ত পর্যায়ে। আগামী মাসেই ওই ইঞ্জিনগুলোর ‘হট ফায়ার টেস্ট’ (প্রচুর তাপমাত্রাতেও সেগুলো যাতে গলে না যায়) হবে। এর পরেই ওরিয়ন মহাকাশযানের কোর স্টেজটি (ভেতরের অংশ) পাঠানো হবে ফ্লোরিডায় নাসার কেনেডি স্পেস সেন্টারে। সেটিকে মহাকাশযানের মূল অংশের সঙ্গে জোড়া দেওয়া হবে।

advertisement
Evaly
advertisement