advertisement
advertisement
advertisement
advertisement

প্রয়োজন পরিকল্পিত ছাদ বাগান

নিজস্ব প্রতিবেদক
২৬ সেপ্টেম্বর ২০২০ ০০:০০ | আপডেট: ২৬ সেপ্টেম্বর ২০২০ ০০:৪৭
advertisement

পরিকল্পিত উপায়ে ছাদ কৃষি করতে হবে। তা না হলে তা যে কোনো ভবনের জন্য দুর্ঘটনার কারণ হতে পারে। অন্যদিকে পরিকল্পিত না হলে তাতে কাক্সিক্ষত ফলও মিলবে না।

ছাদ কৃষির কারণে ছাদে বাড়তি ভার সংযোজন করা হয়। চাষের মাটি, গাছ ছাড়াও সবজির বেড ইত্যাদির জন্য অস্থায়ী কাঠ, বাঁশ ও ইস্পাত কাঠামো স্থাপিত হয়। এ ছাড়া বাগানের জন্য কংক্রিটের বক্স, জালের জন্য অস্থায়ী স্থাপনা, সবজি চাষের জন্য পোস্ট ও ফ্রেমের স্থাপনা সংযোজন করা হয়। যখন অতিরিক্ত ভার একটি ভবনে স্থাপন করা হয়, যা ভবনের নকশায় ছিল না, তখন ভবনটির ভার ধারণক্ষমতার চেয়ে বেশি হতে পারে। এ কারণে দুর্ঘটনা ঘটতে পারে। ক্ষতিগ্রস্ত হতে পারে প্রতিবেশী ভবনগুলো। ছাদ কৃষিতে সরবরাহ করা অতিরিক্ত পানি এবং নিষ্কাশিত বর্জ্যমিশ্রিত পানির নিষ্কাশনব্যবস্থা অবকাঠামো তৈরির আগেই গুরুত্বসহকারে মূল্যায়ন করতে হবে। পানি নিষ্কাশন ব্যবস্থা যথাযথ না হলে তাতে ছাদ ক্ষতিগ্রস্ত হতে পারে। আবার জমে থাকা পানি এডিস মশা প্রজননস্থল হিসেবে ব্যবহার করে। এতে ডেঙ্গু রোগের ঝুঁকি বাড়বে। গত বছর ঢাকায় ডেঙ্গুর প্রকোপ বৃদ্ধি পাওয়ায় অনেক বাড়িতেই অভিযান চালিয়ে জমে থাকা পানিতে এডিসের লার্ভা পায় সিটি করপোরেশন। ছাদ বাগানের ওপর প্রশিক্ষণ নেওয়া মালি কামরুল হোসেন জানান, আমি ছাদ বাগান পরিচর্যার ওপর প্রশিক্ষণ নিয়েছি। বর্তমানে আমি ধানম-ি, মোহাম্মদপুর ও মহাখালী ডিওএইচএস এলাকার ২৫টি বাগান পরিচর্যার কাজ করছি। শুধু পরিচর্যাই করি না, কেউ বাগান করে দিতে বললেও সেটা করে দেই। প্রতিটি বাগান দেখাশোনার জন্য মাসে চার থেকে পাঁচ দিন করে বাগানগুলোতে কাজ করি। এ জন্য প্রতি মাসে ১৫০০-২০০০ টাকা করে নেই। আর বাগান করে দিতে হলে সেটা আলোচনা করে টাকার পরিমাণ ঠিক করি। যে যেভাবে চায় সেই পরিকল্পনা অনুযায়ী বাগান করে দেই। কখনো আবার আমি নিজেও পরামর্শ দেই কোনটা করলে ভালো হবে। তিনি আরও বলেন, আপনার ছাদ বাগানে কী কী গাছ লাগাবেন, কীভাবে মাটি নির্বাচন করবেন, পানি সেচ বা নিষ্কাশন ঠিক আছে কি না, কখন কী বীজ লাগাবেন এবং কখন কোন সার ব্যবহার করবেন ইত্যাদি বিষয় ভালোভাবে জানতে ও খেয়াল রাখতে হবে।

advertisement
Evaly
advertisement