advertisement
advertisement
advertisement
advertisement
advertisement

ধুনটে আ.লীগের দুই নেতার গুদাম থেকে চাল জব্দ

নিজস্ব প্রতিবেদক বগুড়া
২৯ সেপ্টেম্বর ২০২০ ০০:০০ | আপডেট: ২৯ সেপ্টেম্বর ২০২০ ০৩:০৯
advertisement

ধুনট উপজেলায় আওয়ামী লীগের দুই নেতার গুদাম থেকে খাদ্যবান্ধব কর্মসূচির ১০ টাকা কেজি দরের ১০০ মণ চাল ও গরিবের ১৩০টি কার্ড জব্দ করেছেন উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) আব্দুল্লাহ আল রনী। গতকাল সোমবার বিকাল ৪টার দিকে সহকারী কমিশনার (ভূমি) অভিযান চালিয়ে উপজেলার নিমগাছি ইউনিয়নের বাবুবাজার এলাকায় গুদাম থেকে চাল ও কার্ড জব্দ করেন।

এর মধ্যে উপজেলার নিমগাছি ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের যুগ্ম সম্পাদক নবাব আলীর মালিকানাধীন মেসার্স তিন ভাই ট্রেডার্স অ্যান্ড সেমি অটোরাইচ মিলের গুদাম থেকে ১০ টাকা কেজির ১০০ মণ (৫১ বস্তা) চাল এবং একই স্থানে নিমগাছি ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের ধর্মবিষয়ক সম্পাদক আব্দুল হাদি ম-লের ১০ টাকা কেজি দরে চাল বিক্রয়কেন্দ্র থেকে ১৩০টি কার্ড জব্দ করা হয়।

জানা গেছে, ১০ টাকা কেজি দরের চাল বিক্রয়ের পরিবেশক (ডিলার) আব্দুল হাদি ম-ল। তার অধীনে ৭১০টি কার্ড রয়েছে। তিনি সেপ্টেম্বর মাসের ৭১০টি কার্ডের অনুকূলে বরাদ্দকৃত ২১ হাজার ৩০ কেজি চাল ২০ সেপ্টেম্বর উপজেলা খাদ্যগুদাম থেকে উত্তোলন করেন। এর পর বাবুবাজার এলাকায় বিক্রয়কেন্দ্র থেকে কার্ডধারীদের মাঝে চাল বিক্রি করছেন। গতকাল দ্বিতীয় দিনের চাল বিক্রিকালে সেখানে অভিযান চালানো হয়। এ সময় আওয়ামী লীগ নেতা আব্দুল হাদির চাল বিক্রয়কেন্দ্র থেকে অবৈধভাবে রক্ষিত ১৩০টি কার্ড জব্দ করেন। একই সময় আওয়ামী লীগ নেতা নবাব আলীর মালিকানাধীন গুদামে অভিযান চালিয়ে ১০ টাকা কেজি দরের ১০০ মণ চাল জব্দ করা হয়।

এ বিষয়ে আওয়ামী লীগ নেতা নবাব আলী বলেন, এগুলো আমার মিলে ব্যবসায়িক ধান ভাঙিয়ে এই চাল বস্তায় ভরে রাখা হয়েছে; কিন্ত ভুল তথ্যের ভিত্তিতে আমার গুদামে অভিযান চালিয়ে চাল জব্দ করেছে প্রশাসন।

ডিলার আব্দুল হাদি ম-ল বলেন, ১৩০টি কার্ডের নাম পরিবর্তন করার জন্য উপজেলা খাদ্য বিভাগের নির্দেশে আমার কাছে রেখেছিলাম। এসব কার্ডের নাম পরিবর্তন করে কার্ডধারীদের দেওয়ার কথা ছিল। এ বিষয়ে কোনো অসৎ উদ্দেশ্য ছিল না।

ধুনট উপজেলা সহাকারী কমিশনার (ভূমি) আব্দুল্লাহ আলী রনী বলেন, এ ঘটনায় খাদ্য বিভাগের পক্ষ থেকে থানায় মামলা দায়েরের বিষয়টি প্রক্রিয়াধীন।

advertisement
Evaly
advertisement