advertisement
advertisement
advertisement
advertisement
advertisement

খালেদা জিয়াকে ভিসা দিতে আপত্তি নেই

কূটনৈতিক প্রতিবেদক
১ অক্টোবর ২০২০ ০০:০০ | আপডেট: ১ অক্টোবর ২০২০ ০০:২৯
advertisement

ব্রিটিশ হাইকমিশনার রবার্ট চ্যাটার্টন ডিকসন বলেছেন, বাংলাদেশ সরকারের অনুমতিসাপেক্ষে বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া চাইলে আমরা তার জন্য যুক্তরাজ্যের ভিসার ব্যবস্থা করে দিতে পারি। এ ক্ষেত্রে ব্রিটিশ সরকার সানন্দে রাজি। গতকাল বুধবার ডিপ্লোমেটিক করেসপনডেন্টস অ্যাসোসিয়েশন, বাংলাদেশ (ডিকাব)

আয়োজিত অনলাইন সেমিনারে এক প্রশ্নের জবাবে হাইকমিশনার এ কথা বলেন। ডিকাব সভাপতি আঙ্গুর নাহার মন্টি সেমিনার সঞ্চালনা করেন। সেমিনারে আরেক প্রশ্নের জবাবে অক্সফোর্ডের করোনা ভাইরাসের ভ্যাকসিনে বাংলাদেশ অগ্রাধিকার পাবে বলেও উল্লেখ করেন ডিকসন।

সরকার যদি খালেদা জিয়াকে যুক্তরাজ্যে স্বাস্থ্যসেবা নেওয়ার অনুমতি দেয় তবে ব্রিটিশ সরকার ভিসা দেবে কিনা- এমন পশ্নে হাইকমিশনার বলেন, ‘সাধারণত ব্রিটিশ ভিসা পেতে তার ক্ষেত্রে সমস্যা হওয়ার কথা নয়। যুক্তরাজ্য সফরে তার ক্ষেত্রে কোনো অবজেকশন নেই। এখন এটি নির্ভর করে তিনি ভিসার জন্য পুনরায় আবেদন করবেন কিনা। এ ছাড়া তার পরিবারের সদস্যরাও লন্ডনে বসবাস করছেন।’

অক্সফোর্ডের করোনা ভাইরাসের ভ্যাকসিনে বাংলাদেশ অগ্রাধিকার পাবে বলেও উল্লেখ করেন ডিকসন। তিনি বলেন, ‘ভ্যাকসিন ট্রায়ালে না থাকলেও অক্সফোর্ডের করোনা ভ্যাকসিন পেতে অগ্রাধিকার পাবে বাংলাদেশ। এ ভ্যাকসিন উৎপাদিত হলে তা যেন সবাই পায় সে বিষয়টিতে যুক্তরাজ্য গুরুত্ব দিচ্ছে। ভ্যাকসিনটি তৈরি এবং ব্যবহারের জন্য প্রস্তুত হয়ে গেলে এটি বাংলাদেশেও পাওয়া যাবে।’

রোহিঙ্গা সমস্যা সমাধানে যুক্তরাজ্যের তৎপরতা অব্যাহত রাখার কথাও উল্লেখ করেন হাইকমিশনার। তিনি বলেন, ‘এ নিয়ে যুক্তরাষ্ট্রসহ একই মনোভাবসম্পন্ন দেশগুলোর সঙ্গে যুক্তরাজ্য কাজ করবে। মিয়ানমার সরকার ও রোহিঙ্গা সমস্যার সঙ্গে জড়িত ব্যক্তিদের ওপর চাপ অব্যাহত থাকবে। আগামী নভেম্বরে মিয়ানমারের নির্বাচনের পরে নতুন সম্ভাবনা তৈরি হবে বলে আশা করি। আমরা রোহিঙ্গা সমস্যা সমাধানের জন্য তাদের ওপর মিয়ানমারের নৃশংসতার দায়বদ্ধতা নিশ্চিতের বিষয়ে অঙ্গীকারাবদ্ধ। তাই আমরা আন্তর্জাতিক অপরাধ আদালত ও আন্তর্জাতিক বিচার আদালতে চলমান মামলার প্রক্রিয়াকে সমর্থন করি।’ জলবায়ু সম্পর্কিত চ্যালেঞ্জ মোকাবিলা এবং বাংলাদেশের সঙ্গে বাণিজ্য ও বিনিয়োগের সম্পর্ক আরও গভীরতর করার বিষয়ে যুক্তরাজ্য বাংলাদেশের পাশে রয়েছে বলেও উরেøখ করেন তিনি।

advertisement
Evaly
advertisement