advertisement
advertisement
advertisement
advertisement
advertisement

বরগুনাবাসীর প্রতিক্রিয়া
গ্যাং কালচার রোধ করতে হবে

মোহাম্মদ কাজী রাকিব,পাথরঘাটা বরগুনা
১ অক্টোবর ২০২০ ০০:০০ | আপডেট: ১ অক্টোবর ২০২০ ০০:৪৪
প্রতীকী ছবি
advertisement

সারা দেশে অসংখ্য কিশোর গ্যাং রয়েছে। তারা অপরাধ করছে। এর পর উল্টো দাপিয়েও বেড়াচ্ছে; অধরা থাকছে আইনের জালে। সারাদেশের এসব কিশোর গ্যাংগুলো নিয়ন্ত্রণ না করা গেলে রিফাত হত্যার মতো ঘটনা দিন দিন বেড়েই চলবে। রিফাত শরীফ হত্যা মামলার রায় যা-ই হোক, কিশোর অপরাধ ও গ্যাং কালচার রোধ করা না গেলে এমন ঘটনা ঘটতেই থাকবে। রিফাত হত্যা মামলায় সর্বোচ্চ রায় শুনে এমনটাই বললেন পাথরঘাটা উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মোস্তফা গোলাম কবির। শুধু তিনিই নন, গতকাল রায় ঘোষণার পর আলোচনায় আড্ডায় তো বটেই, সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমেও অনেকে তাদের প্রতিক্রিয়া তুলে ধরেন। এর মধ্যে অধিকাংশই সন্তোষ প্রকাশ করেছেন রায়ে মিন্নিসহ ৬ আসামিকে মৃত্যুদ- দেওয়ায়।

রফিকুল ইসলাম কাঁকন তার ফেসবুক স্টেটাসে লিখেছেন ‘আলহামদুলিল্লাহ! মিন্নিসহ ৬ জনের ফাঁসি। ধন্যবাদ বিচারক মহোদয়কে। এখন অপরাধীরা ভয় পাবে।’ আনোয়ারুল রশিদ সবুজ মন্তব্য করেছেন, ‘অসাধারণ সিদ্ধান্ত, আমি তাদের চিনি। তারা খুবই খারাপ ছিল তাই ফাঁসিই প্রাপ্য।’ আদালতকে ধন্যবাদ জানিয়ে নুরুজ্জামান নোমানী লিখেছেন ‘প্রত্যাশা ছিল এটাই। ধন্যবাদ মাননীয় আদালতকে।’ মিন্নির বাবাকে

উদ্দেশ করে এমডি সানি মন্তব্য করেছেন, ‘মেয়ের বিয়ের খবর গোপন করে আবার বিয়ে দেওয়ার জন্য তোমারও বিচার হওয়া প্রয়োজন।’ এ রকম অসংখ্য মন্তব্য ভাইরাল হয় সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে।

বরগুনায় রিফাত শরীফকে কুপিয়ে হত্যার পর প্রধান আসামি নয়ন বন্ড পুলিশের সঙ্গে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ নিহত হওয়ার খবর ছড়িয়ে পড়লে বরগুনা শহরসহ আশপাশের এলাকার মানুষের মনে এক ধরনের স্বস্তি নেমে আসে। গতকাল ৬ আসামির সর্বোচ্চ শাস্তি ঘোষণার পরও তেমনই এক স্বস্তিদায়ক পরিবেশ বিরাজ করতে দেখা গেছে বরগুনাবাসীর মধ্যে।

 

 

 

advertisement
Evaly
advertisement