advertisement
advertisement
advertisement
advertisement
advertisement

আফিফকে সেঞ্চুরি বঞ্চিত করে মুশফিক নিজেও সাজঘরে

ক্রীড়া প্রতিবেদক
১৭ অক্টোবর ২০২০ ১৭:১৭ | আপডেট: ১৭ অক্টোবর ২০২০ ১৭:৫৪
মুশফিকুর রহিম
advertisement

মাত্র দুই রানের জন্য তিন অঙ্কের ম্যাজিক ফিগারের দেখা পেলেন না নাজমুল একাদশের তরুণ তুর্কী আফিফ হোসেন ধ্রুব। সাজঘরে ফিরতে হয়েছে তাও সবচেয়ে দুর্ভাগ্যজনক রানআউট দিয়ে। ব্যাটিং স্ট্রাইকে থাকা মুশফিকুর রহিমের ভুল ডাকে দুর্দান্ত খেলতে থাকা আফিফকে থেমে যেতে হয়েছে সেঞ্চুরির খুব কাছে গিয়ে।

মিরপুর শেরে বাংলা জাতীয় ক্রিকেট স্টেডিয়ামে আজ শনিবার দুপুরে মুখোমুখি হয় নাজমুল একাদশ ও মাহমুদউল্লাহ একাদশ। টস হেরে ব্যাট করতে নেমে শুরুতেই তিন উইকেট হারায় নাজমুলরা। শুরুর ধাক্কা সামলে দলকে বড় রানের দিকে নিয়ে যাচ্ছিলেন আফিফ-মুশফিক। দুজনের দুর্দান্ত ব্যাটিংয়ে ৩১ রানে তিন উইকেট পড়া নাজমুল একাদশের চতুর্থ উইকেট পড়ে ১৭৮ রানে।

দর্শকবিহীন মিরপুরের প্রেসবক্সে সাংবাদিকরা অপেক্ষা করছিলেন তরূণ আফিফের সেঞ্চুরির জন্য। তা আর হলো না। অপেক্ষার ইতি ঘটে হতাশায়। ম্যাচের ৩৮ ওভার ৫ বলের সময় শর্ট মিড উইকেটে বল ঠেলে অপর প্রান্তের ব্যাটসম্যান আফিফ হোসেনকে রানের জন্য ডাক দেন মুশফিকুর রহিম। আফিফও সাড়া দিয়ে এগোচ্ছিলেন।

ততক্ষণে অসম্ভব দ্রুততায় ফিল্ডার মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ বল ধরে দিয়ে দেন বোলিং প্রান্তে থাকা মেহেদী মিরাজকে। আফিফ সামনে এগিয়ে আবারও ফিরছিলেন, কিন্তু মিরাজ সেই সুযোগ দেননি। দ্রুত বল দিয়ে ভাঙেন উইকেট, আবেদনের সঙ্গে সঙ্গেই আম্পায়ার সাড়া দেন রানআউটের। মাত্র দুই রানের জন্য সেঞ্চুরি বঞ্চিত হওয়ার আক্ষেপ নিয়ে আফিফকে ফিরতে হয় সাজঘরে।  আফিফ ১০৮ বলে ১২ চার ও এক ছয়ের মারে ৯৮ রান করেন। মুশফিক-আফিফের জুটি থেকে আসে ১৪৭ রান।

আফিফের আউটের পর স্কোরবোর্ডে ৯ রান যোগ না হতেই নিজেও ফেরেন সাজঘরে। ৯০ বলে ব্যক্তিগত ৫২ রানের মাথায় এবাদতের বলে উইকেটের পেছনে নুরুল হাসান সোহানের হাতে ক্যাচ দেন মুশফিক। দুই সেট ব্যাটসম্যান সাজঘরে ফিরলে ক্রিজে আসেন তৌহীদ হৃদয় ও ইরফান শুক্কুর। গত ম্যাচে ইরফান শুক্কুরও আউট হয়েছেন মুশফিকের ভুল ডাকে। 

advertisement
Evaly
advertisement