advertisement
advertisement
advertisement
advertisement
advertisement

বোলিং ভালো হচ্ছে তাই ব্যাটসম্যানরা রান পাচ্ছে না : প্রধান নির্বাচক

ক্রীড়া প্রতিবেদক
১৭ অক্টোবর ২০২০ ২০:১৮ | আপডেট: ১৭ অক্টোবর ২০২০ ২১:৩৩
বিসিবি'র প্রধান নির্বাচক মিনহাজুল আবেদীন নান্নু
advertisement

বিসিবি প্রেসিডেন্টস কাপের মধ্য দিয়ে করোনাকালের স্থবিরতা কাটিয়ে মাঠে ফিরেছে দেশের ক্রিকেট। এতে অনেকেই স্বস্তির নিঃশ্বাস ফেলছেন, কিন্তু শেরে বাংলায় তারকা ব্যাটসম্যানদের রান খরা দেখলে অস্বস্তির সঙ্গে আসবে বিরক্তিও। পরীক্ষিত ক্রিকেটারদের দিকে তাকালেই বিষয়টি পরিষ্কার বোঝা যায়। প্রধান নির্বাচক মিনহাজুল আবেদীন নান্নু মনে করেন, বোলিং ভালো হচ্ছে তাই ব্যাটসম্যানরা রান পাচ্ছে না।

বিসিবি প্রেসিডেন্টস কাপের খেলা চলাকালীন আজ শনিবার দুপুরে মিরপুর শেরে বাংলা জাতীয় ক্রিকেট স্টেডিয়ামে সংবাদমাধ্যমের মুখোমুখি হয়ে এ মন্তব্য করেন বিসিবি'র প্রধান নির্বাচক মিনহাজুল আবেদীন নান্নু।

তিনি বলনে, ‘কিছু কিছু জায়গাতো আপনাকে দেখতে হবে, বোলার যদি ভালো বল করে তাহলে টপ অর্ডার (ব্যাটসম্যানরা) ব্যর্থ হবে, আবার ব্যাটসম্যানরাও যদি ভালো করে তবে বোলাররাও ব্যর্থ হবে। সবমিলিয়ে এই কয়দিন যেটা দেখেছি, আমাদের পেসাররা বেশ ভালো ফিটনেসের ছাপ রেখেছে। তাদের যে স্কিলেও উন্নতি হয়েছে, সেটা বোঝা যাচ্ছে। ধারাবাহিকভাবে যথেষ্ট ভালো লাইনে বল করছে।’

তামিম-মুশফিক-রিয়াদ-মুমিনুলের মতো জাতীয় দলের নিয়মিত খেলোয়াড়দের মধ্যে একমাত্র বলার মতো রান করেছেন মুশফিক। প্রথম ম্যাচে ব্যর্থ হলেও পরের দুই ম্যাচে পেয়েছেন সেঞ্চুরি-হাফ সেঞ্চুরি। অন্যদিকে তামিম-রিয়াদ-মিথুনরা কেউই অর্ধশতকের দেখা পাননি কোনো ম্যাচে। ব্যর্থ সৌম্য সরকার, লিটন দাসের মতো ব্যাটসম্যানরাও। অন্যদিকে রান পেয়েছেন মেহেদী হাসান, আফিফ হোসেন ও তৌহিদ হৃদয়ের মতো তরুণ তুর্কীরা।

সামনে আরও ভালো হবে জানিয়ে নান্নু বলেন, ‘টপ অর্ডারে যারা ব্যর্থ হচ্ছে, আগামীতে আরও কয়েকটা ম্যাচ আছে সেখানে সুযোগ আছে। কন্ডিশনও এখন ভালো। মাঝখানে বৃষ্টি ছিল, উইকেটে ময়েশ্চার ছিল, পেস বোলাররা বাড়তি সুবিধা পেয়েছে, টাইমিং করা একটু কঠিন ছিল ব্যাটসম্যানদের জন্য। এখন এটা কাটিয়ে উঠেছে, আজকেও দেখলাম ফ্ল্যাট উইকেট। আমার মনে হয় আগামী ম্যাচগুলোতে আরও ভালো করবে।’

এই টুর্নামেন্টকে খেলোয়াড়দের দেখার মঞ্চ হিসেবে উল্লেখ করেছেন প্রধান নির্বাচক। সব ক্রিকেটারদের পারফর্মেন্স দেখা হচ্ছে জানিয়ে নান্নু আরও বলেন, ‘এই টুর্নামেন্টটা আমাদের জন্য খেলোয়াড়দের দেখার একটা মঞ্চকে কেমন পারফর্ম করছে, কাকে কোন পজিশনে খেলাতে পারব দেখার জায়গা। সব প্লেয়ারের পারফরম্যান্সই দেখা হচ্ছে।’

তামিম-মুশফিকসহ দেশের ক্রিকেটাররা ভাগ হয়ে নিজেরাই লড়ছেন বিসিবি প্রেসিডেন্টস কাপে। তিন দলীয় দিবারাত্রির এই টুর্নামেন্টের পর্দা উঠেছে গত রোববার। টুর্নামেন্টে চ্যাম্পিয়ন দল পাবে ১৫ লাখ টাকা, রানার্স আপ সাড়ে ৭ লাখ টাকা। পুরো টুর্নামেন্তের প্রাইজমানি প্রায় ৩৭ লাখ টাকা।

advertisement
Evaly
advertisement