advertisement
advertisement

গণফোরাম থেকে সুব্রত মন্টুসহ ৮ জন বহিষ্কার

মামুন স্ট্যালিন
১৮ অক্টোবর ২০২০ ০০:০০ | আপডেট: ১৮ অক্টোবর ২০২০ ০০:০৪
advertisement

গণফোরামের সাবেক সাধারণ সম্পাদক মোস্তফা মহসিন মন্টু, সাবেক নির্বাহী সভাপতি অধ্যাপক আবু সাইয়িদ ও অ্যাডভোকেট সুব্রত চৌধুরীসহ আটজনকে বহিষ্কার করলেন দলটির একাংশের নেতারা।

গতকাল শনিবার জাতীয় প্রেসক্লাবে গণফোরামের (ড. কামাল-রেজা কিবরিয়ার নেতৃত্বাধীন অংশের) কেন্দ্রীয় কমিটির সভায় এ বহিষ্কার করা হয়। এ ছাড়া ১২ ডিসেম্বর দলের জাতীয় কাউন্সিল অনুষ্ঠানের ঘোষণা দেন এ

অংশের নেতারা। দলীয় শৃঙ্খলাভঙ্গের অভিযোগে ওই ৮ নেতাকে প্রথমে কারণ দর্শানোর নোটিশ দেওয়া হয়। এবার তাদের বহিষ্কার করা হলো। বহিষ্কৃত অন্য নেতারা হলেন- জগলুল হায়দার আফ্রিক, হেলালউদ্দিন, লতিফুল বারী

হামিম, খান সিদ্দিকুর রহমান ও আবদুল হাসিব চৌধুরী।

ড. কামাল হোসেন ও রেজা কিবরিয়ার নেতৃত্বাধীন অংশের কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য মোশতাক আহমদ সভায় লিখিত সিদ্ধান্ত পাঠ করেন। এতে বলা হয়, বর্তমান রাজনৈতিক ও সাংগঠনিক বাস্তবতায় সংগঠনকে শক্তিশালী,

গতিশীল ও সুসংগঠিত করার লক্ষ্যে ১২ ডিসেম্বর ঢাকায় দলের কেন্দ্রীয় কাউন্সিল অনুষ্ঠানের সিদ্ধান্ত হয়েছে।

দলীয় শৃঙ্খলাভঙ্গ ও গঠনতন্ত্রবিরোধী কার্যকলাপে লিপ্ত থাকার অভিযোগের বিষয়ে পাঠানো শোকজ নোটিশের জবাব না দেওয়ায় মন্টু, সাইয়িদ, সুব্রত ও জগলুলকে দলের প্রাথমিক সদস্য পদ থেকে বহিষ্কারের সিদ্ধান্ত নেওয়া

হয়েছে।

লিখিত সিদ্ধান্ত পাঠের সময় মহানগর গণফোরামের নেতা হারুন তালুকদার-এর বিরোধিতা করেন। তবে সভার অন্য সবাই হাততালি দিয়ে সমর্থন জানান। পরে সভার সভাপতি এমপি মোকাব্বির খান বলেন, একজন সমর্থন

করেননি। বাকিরা হাততালি দিয়ে এ সিদ্ধান্তকে সমর্থন করেছেন। ফলে এ সিদ্ধান্ত পাস হলো।

এ সময় গণফোরামের একংশের সাধারণ সম্পাদক ড. রেজা কিবরিয়া বলেন, এক দল ছেড়ে আরেক দল করা বা অন্য দলে চলে যাওয়া গণফোরামে অনেক হয়েছে। কিন্তু দল ছেড়ে দলের ক্ষতি করার চেষ্টা করাটা একটু

অন্যরকম ব্যাপার। যারা এটি করছে ভাগ্য ভালো যে আমরা তাদের চিনতে পেরেছি। চিনতে পারার সুযোগটা তারাই আমাদের দিয়েছে। তারা যে কী প্রকৃতির মানুষ, আমরা সবাই এখন আন্দাজ করতে পারছি, এটি প্রকাশ্যে

চলে এসেছে।

advertisement
Evaly
advertisement