advertisement
advertisement
advertisement
advertisement
advertisement

তিনজনের বিরুদ্ধে মামলা দুজন কারাগারে

রাঙ্গাবালী (পটুয়াখালী) প্রতিনিধি
১৯ অক্টোবর ২০২০ ০০:০০ | আপডেট: ১৮ অক্টোবর ২০২০ ২৩:৩৮
advertisement

ঢিল ছোড়া নিয়ে দুই শিশুর পরিবারে বিরোধ। এই জেরে ঘরে ঢুকে এক শিশুর মাকে নির্যাতন করে গণধর্ষণ করা হয়। পটুয়াখালীর রাঙ্গাবালী উপজেলার চরমোন্তাজ ইউনিয়নের চরমার্গারেট গ্রামে ঘটে এ ঘটনা। এ ঘটনার বিবরণ দিয়ে শনিবার রাতে রাঙ্গাবালী থানায় একটি মামলা দায়ের করা হয়। নির্যাতনের শিকার গৃহবধূর স্বামী বাদী হয়ে মামলাটি করেন। আসামিরা হলেন চরমোন্তাজের চরমার্গারেট গ্রামের মজিবর শরিফের ছেলে শাকিল শরিফ, চররুস্তুম গ্রামের মৃত সিদ্দিকুর রহমান মুন্সির ছেলে আল হাদি ও চরমার্গারেট গ্রামের আলাউদ্দিন চৌকিদারের ছেলে আরিফ চৌকিদার।

ইতোমধ্যে প্রধান অভিযুক্ত শাকিল ও আল হাদীকে নিজ গ্রাম থেকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। রবিবার সকালে তাদের আদালতে হাজির করা হয়। পরে তাকে কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দেন আদালত। তবে অপর আসামি আরিফ এখনো পলাতক রয়েছেন।

রাঙ্গাবালী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. আলী আহম্মেদ বলেন, দুই আসামিকে আদালতে সোপর্দ

করলে জেলহাজতে পাঠানো হয়। বাকি এক আসামিকে গ্রেপ্তারের চেষ্টা অব্যাহত রয়েছে।

নির্যাতনের শিকার ওই গৃহবধূর স্বামী মামলার এজাহারে উল্লেখ করেন, গত ৩ অক্টোবর তার নয় বছরের ছেলে এবং আসামি শাকিলের আট বছরের ছোট ভাইয়ের ঢিল ছোড়াকে কেন্দ্র করে মতবিরোধ হয়। শুক্রবার সকালে বিষয়টি নিয়ে সালিশ মীমাংসা হলেও সেই সিদ্ধান্ত শাকিলের মনঃপূত হয়নি।

এজাহারে বাদী উল্লেখ করেন, পূর্বশত্রুতার জেরে আসামি শাকিলসহ অন্যরা শুক্রবার রাতে হঠাৎ ঘরে ঢুকে তার স্ত্রীর হাত-মুখ ওড়না দিয়ে পেঁচিয়ে টেবিলের সঙ্গে বেঁধে শারীরিক নির্যাতন করে। নির্যাতনে তার বাঁ হাতের হাড় ভেঙে যায়। একপর্যায় আসামিরা পালাক্রমে তাকে ধর্ষণ করে। পরে ঘরে থাকা দেড় লক্ষাধিক টাকা এবং স্বর্ণালঙ্কার লুটে তাকে বেঁধে ফেলে রেখে যায়। ঘটনার পর বাড়ি গিয়ে হাত-মুখের বাঁধন খুলে স্ত্রীর কাছ থেকে এসব তথ্য জেনেছেন বলে এজাহারে উল্লেখ করেন বাদী। ঘটনার পর অসুস্থ অবস্থায় শনিবার সকালে ওই গৃহবধূকে পটুয়াখালী ২৫০ শয্যা হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।

advertisement
Evaly
advertisement