advertisement
advertisement
advertisement
DBBL
advertisement
advertisement

স্বামীর তৃতীয় বিয়ের প্রতিবাদ করায় নির্যাতন সিগারেটের ছ্যাঁকা

বারহাট্টা (নেত্রকোনা) প্রতিনিধি
২২ অক্টোবর ২০২০ ০০:০০ | আপডেট: ২২ অক্টোবর ২০২০ ১০:০৮
মনি আক্তার
advertisement

স্বামীর তৃতীয় বিয়ের প্রতিবাদ করায় অমানুষিক নির্যাতন চালানো হয়েছে এক গৃহবধূর ওপর। জলন্ত সিগারেটের ছ্যাঁকায় আহত হয়ে নেত্রকোনার বারহাট্টা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি হয়েছেন মনি আক্তার (৩০) নামে ওই নারী। মঙ্গলবার উপজেলার মল্লিকপুর গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। অভিযুক্ত মো. হাজিবুল একই গ্রামের খোরশেদ মিয়ার ছেলে।

জানা যায়, মনি নেত্রকোনার মোহনগঞ্জ উপজেলার গাগলাজুর বরহাটি গ্রামের বারেক তালুকদারের মেয়ে। তিনি বলেন, ‘হাজিবুল প্রথমে আমার বড় বোন নাসিমাকে বিয়ে করে। তিনটি সন্তান রেখে বোন মারা গেলে তার সন্তানদের দেখাশোনার কথা বিবেচনা করে ১১ বছর আগে বোনের স্বামীর সঙ্গে পারিবারিকভাবে আমাকে বিয়ে দেওয়া হয়। তার পর থেকেই সে কাজের জন্য ঢাকা চলে যায়। আমার তেমন খবর নিত না। আমি বেশির ভাগ সময় বাবার বাড়িতে থাকতাম। মাঝে মধ্যে বাড়ি আসত সে। সামান্য বিষয়-আশয় নিয়া আমাকে মারধর করত। কিছুদিন আগে সিজারে আমার একটি মেয়ে হয়। সিজারের খরচপাতিও বাবার বাড়ির লোকজন বহন করেছে। এই পরিস্থিতির মাঝেই আমার স্বামী কয়েক দিন আগে নতুন বউ নিয়ে বাড়িতে আসে। এর প্রতিবাদ করায় আমার ওপর নেমে আসে নির্মম নির্যাতন। মঙ্গলবার সকালে আমাকে কিল-ঘুষি শুরু করে। সিজারের সেলাই করা পেটে লাথি মারলে রক্তক্ষরণ শুরু হয়। এক পর্যায়ে সিগারেট দিয়ে আমার মুখে ছ্যাঁকা দেয়। পরে স্থানীয়রা এসে আমাকে উদ্ধার করে। খবর পেয়ে আমার আত্মীয়স্বজনরা হাসপাতালে আনেন।

বারহাট্টা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের চিকিৎসক ডা. মুজাদ্বিদ রহমান কাশফি বলেন, মনি আক্তার মঙ্গলবার দুপুরের দিকে হাসপাতালে আসে। সে শারীরিক নির্যাতনের কারণে আহত হয়েছে বলে জানায়।

বারহাট্টা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মিজানুর রহমান বলেন, বিষয়টা আমি শুনেছি। লিখিত অভিযোগ পেলে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

advertisement
Evaly
advertisement