advertisement
advertisement
advertisement
advertisement

প্রতিশোধ নিতে মরিয়া সাদ উদ্দিন

ক্রীড়া প্রতিবেদক
২৪ অক্টোবর ২০২০ ১৬:১৭ | আপডেট: ২৪ অক্টোবর ২০২০ ১৬:৩৭
ভারতের বিপক্ষে সেই ম্যাচে গোলের পর সাদ উদ্দিনের বুনো উল্লাস। পুরোনো ছবি।
advertisement

ঠিক এক বছর আগে ফেরা যাক। প্রতিদ্বন্দ্বী বাংলাদেশ-ভারত। মঞ্চ ভারতের পশ্চিমবঙ্গে অবস্থিত যুবভারতী বহুমুখী স্টেডিয়াম। ম্যাচের ৪২ মিনিটের সময় সাদ উদ্দিনের মাথা ছুঁয়ে যখন ভারতের জালে বল জড়ায় তখন ৫৫ হাজার দর্শকে ঠাসা যুবভারতীর পীন-পতন নীরবতা দেখে মনে হচ্ছিল এই যেন ভূতের বাড়ি। সেই সাদ উদ্দিন এখন মরিয়া ঘরের মাঠে নেপালের বিপক্ষে প্রতিশোধ নিতে।

সর্বশেষ দুবারের দেখায় নেপালের কাছে হেরেছে বাংলাদেশ। ২০১৩ ও ২০১৮ সালের সাফ গেমসে দুই ম্যাচেই ২-০ গোলে হারে বাংলাদেশ। সেই ম্যাচগুলোর প্রতিশোধ নিতে চান ফরয়ার্ড সাদ উদ্দিন। নেপাল ম্যাচকে কেন্দ্র করে শুরু হওয়া ফুটবল দলের প্রথম দিনের অনুশীলন শেষে সাদ প্রতিশোধ নেওয়ার কথা জানান।

আজ শনিবার সকালে বঙ্গবন্ধু জাতীয় স্টেডিয়ামে নেপালকে হারানো প্রসঙ্গ আসলে সাদ বলেন, ‘নেপালের বিপক্ষে শেষ দুইটা ম্যাচ হেরেছি। আমি চাই ঘরের মাঠে তাদের বিরুদ্ধে প্রতিশোধ নিতে। আমাদের সবার ইচ্ছা এক রকমই।’

গণমাধ্যমের মুখোমুখি সাদ উদ্দিন

প্রথম দিন অনুশীলনে অংশ নিয়েছেন ১৪ জন ফুটবলার। তাদের কুপার টেস্টে সন্তুষ্ট জাতীয় দলের ফিজিও ফুয়াদ হাসান হাওলাদার। বসুন্ধরা কিংসের ফুটবলাররা ছুটিতে থাকায় যারা জাতীয় দলের ক্যাম্পে ডাক পেয়েছেন তারা যোগ দিতে পারেননি। তাদের যোগ দেওয়ার কথা রয়েছে ২৭ অক্টোবর।

এ ছাড়া অধিনায়ক জামাল ভুঁইয়া এখনো দেশের বাইরে। তার ফেরার কথা রয়েছে ২৯ অক্টোবর। কয়েক দিনের মধ্যেই সবাইকে পাওয়া যাবে ক্যাম্পে। জেমি ডেসহ কোচিং স্টাফের সদস্যদের যোগ দেওয়ার কথা রয়েছে ২৮ অক্টোবরের মধ্যে। এর আগে ৩৬ জনকে রেখে দল ঘোষণা করে বাফুফে। আগামীমাসের ১৩ ও ১৭ নভেম্বর ম্যাচ দুটি অনুষ্ঠিত হবে বঙ্গবন্ধু জাতীয় স্টেডিয়ামে। 

যারা করোনাকালীন সময়ে কঠোর পরিশ্রম করেছে তারা সহজেই প্রস্তুত হতে পারবে বলে মনে করেন সাদ। তিনি বলেন, ‘শেষ ছয়মাস আমরা যা করেছি সেটার ফল সবার সামনে আসবে। কেউ যদি বসে থাকে তাহলে আট-দশদিন অনুশীলন করে ভালো করতে পারবে না। যারা কঠোর পরিশ্রম করেছে তারাই ভালো করতে পারবে। বাংলাদেশ-নেপাল দুই দলের জন্যই একই। আগে থেকে পরিশ্রম করে থাকলে আমরাও এক সপ্তাহের মধ্যে প্রস্তুত হতে পারবো।’

আজ থেকে শুরু হওয়া দলীয় অনুশীলন নিয়ে খুশি সাদ উদ্দিন। তার মতে সব ঠিকঠাক ভাবে করলে সবাই ফিট হয়েই মাঠে নামতে পারবে। ‘আপনারা সবাই জানেন দলীয় অনুশীলন আর একক অনুশীলনের মধ্যে পার্থক্য অনেক। মাত্রই দলীয় অনুশীলন শুরু করেছি। আশা করি সব ঠিকঠাক মতো করলে ইনশাল্লাহ দ্রুত ফিট হয়ে মাঠে নামতে পারব’-ঠিক এভাবেই বলছিলেন জাতীয় দলের এই ফরোয়ার্ড।  

advertisement
Evaly
advertisement