advertisement
advertisement
advertisement
advertisement

স্কুলছাত্রকে নির্যাতন করে ভিডিও ধারণ, ইউপি সদস্যসহ গ্রেপ্তার ২

২৬ অক্টোবর ২০২০ ১৯:১০
আপডেট: ২৬ অক্টোবর ২০২০ ১৯:৪২
গ্রেপ্তার ইউপি সদস্য আল মামুন ও নির্যাতনের শিকার তামিম হোসেন। ছবি : আমাদের সময়
advertisement

মুন্সীগঞ্জের গজারিয়া উপজেলার বাউশিয়া ইউনিয়নে স্কুলছাত্রকে নির্যাতনের অভিযোগে করা মামলায় ইউপি সদস্য আল মামুন ও তার শ্বশুর মিলন সরকারকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। আজ সোমবার দুপুরে তাদেরে গ্রেপ্তার করে গজারিয়া থানা পুলিশ।

আল মামুনের বাড়ি বাউশিয়া ইউনিয়নের চর বাউশিয়া ফরাজীকান্দি গ্রামে। জেলা পুলিশ সুপার আব্দুল মোমেন জানান, ওই স্কুলছাত্রের বাবা আলম বেপারীর দায়ের করা মামলায় তাদের গ্রেপ্তার দেখিয়ে জেলে পাঠানো হয়েছে।

জানা গেছে, উপজেলার চরবাউশিয়া বড় কান্দি গ্রামের তামিম হোসেন (১৭)  স্থানীয় একটি স্কুলের দশম শ্রেণির ছাত্র।  ইউপি সদস্য আল মামুনের শ্যালিকার সঙ্গে তার সম্পর্ক রয়েছে। গত ২৪ অক্টোবর সন্ধ্যায় প্রেমিকার সঙ্গে দেখা করতে যান মামুন।  ওই ইউপি সদস্য টের পেয়ে তামিমকে ধরে ৪-৫ জন মিলে বেধড়ক মারধর করেন। মারধরে সে অজ্ঞান হয়ে গেলে তামিমকে উদ্ধার করে গজারিয়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে পাঠানো হয়। সেখানে প্রাথমিক চিকিৎসার দিয়ে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়।

এদিকে মারধরের ভিডিও ধারণ করে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ছড়িয়ে দেওয়া হয়। এতে এলাকায় ব্যাপক সমালোচনা তৈরি হয়। পরে তামিমের বাবা থানায় মামলা দায়ের করেন।

ওই ইউপি সদস্যের দাবি, তামিম ডাকাতির উদ্দেশ্যে তাদের বাড়িতে প্রবেশ করে এবং তার শ্যালিকার শ্লীলতাহানীর চেষ্টা করে। এজন্য যৌন হয়রানির অভিযোগ এনে গজারিয়া থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দিয়েছেন তিনি।

তবে এ বিষয়টি অস্বীকার করে তামিম হোসেন বলেন, ’মামুন মেম্বারের স্ত্রী ও আমার মোবাইলের কললিস্ট এবং এসএমএস চেক করলে বিষয়টা পরিষ্কার হবে। ডাকাতির উদ্দেশ্যে নয়, প্রেমিকার সঙ্গে দেখা করতেই গিয়েছিলাম।’

advertisement
Evaly
advertisement