advertisement
advertisement
advertisement
advertisement

হাজী সেলিমের ছেলের ৭ দিনের রিমান্ড চায় পুলিশ

আদালত প্রতিবেদক
২৭ অক্টোবর ২০২০ ১৮:৪৮ | আপডেট: ২৭ অক্টোবর ২০২০ ১৮:৫৫
র‌্যাবের অভিযানে গ্রেপ্তার ইরফান সেলিম। পুরানো ছবি
advertisement

রাজধানীর কলাবাগানে নৌ বাহিনীর কর্মকর্তাকে মারধর ও হত্যাচেষ্টা মামলায় সংসদ সদস্য (এমপি) হাজী সেলিমের ছেলে ইরফান সেলিম এবং তার বডিগার্ড জাহিদের সাত দিনের রিমান্ড আবেদন করেছে পুলিশ। আজ মঙ্গলবার মামলার তদন্ত কর্মকর্তা ধানমন্ডি থানার পরিদর্শক (নিরস্ত্র) আশফাক রাজীব হায়দার মামলাটিতে আসামিদের গ্রেপ্তার দেখানোসহ এ রিমান্ড আবেদন আদালতে পাঠান।

ধানমন্ডি থানার আদালতের সাধারণ নিবন্ধন কর্মকর্তা মো. আশ্রাফ জানান, সিএমএম আদালত বুধবার ঢাকা অতিরিক্ত মুখ্য মহানগর হাকিম আসাদুজ্জামান নূর আসামিদের উপস্থিতিতে শুনানি গ্রহণ করবেন। এদিকে ইরফান সেলিমের ব্যক্তিগত সহকারী এ বি সিদ্দিকী দিপুর একই মামলায় আজ তিন দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেছেন আদালত। ঢাকা মহানগর হাকিম সত্যব্রত শিকদার এ রিমান্ডের আদেশ দেন। ধানমন্ডি থানার পুলিশ আসামি দিপুকে আদালতে হাজির করে মামলার তদন্ত স্বার্থে সাতদিনের রিমান্ডের আবেদন করে। এর আগে গত ২৬ অক্টোবর রাত সাড়ে ৩টার দিকে টাঙ্গাইল থেকে এ বি সিদ্দিকী দিপুকে গ্রেপ্তার করা হয়।

মামলা থেকে জানা যায়, গত ২৫ অক্টোবর নৌবাহিনীর লেফটেন্যান্ট ওয়াসিফ আহমদ খান স্ত্রীকে নিয়ে রাত পৌনে ৮টার দিকে মোটরসাইকেলে করে কলাবাগানের দিকে যাচ্ছিলেন। ল্যাবএইড হাসপাতালের সামনে সংসদ সদস্যের স্টিকার লাগানো একটি কালো রঙের ল্যান্ড রোভার গাড়ী (ঢাকা মেট্রো-ঘ-১১-৫৭৩৬) পেছন থেকে তাদের মোটরসাইকেলে ধাক্কা দেয়। এরপর তিনি সড়কের পাশে মোটরসাইকেলটি থামিয়ে গাড়ির সামনে দাঁড়ান এবং নিজের পরিচয় দেন। তখন গাড়ি থেকে ইরফানের সঙ্গে থাকা অন্যরা একসঙ্গে তাকে কিল-ঘুষি মারেন এবং মেরে ফেলার হুমকি দেন। তার স্ত্রীকে অশ্লীল ভাষায় গালিগালাজ করেন।

এ ঘটনায় গত ২৬ অক্টোবর সকালে এরফান সেলিম, তার বডিগার্ড মো. জাহিদ, এ বি সিদ্দিক দিপু এবং গাড়িচালক মিজানুর রহমানসহ অজ্ঞাত ২-৩ জনকে আসামি করে ওয়াসিফ আহমদ খান বাদী হয়ে ধানমন্ডি থানায় একটি মামলা করেন। মামলাটিতে গত ২৬ অক্টোবর হাজী সেলিমের গাড়িচালক মিজানুর রহমানের এক দিনের রিমান্ডে গেছেন।

advertisement
Evaly
advertisement