advertisement
advertisement
advertisement
advertisement

ট্রাম্প-বাইডেন ব্যবধান কত

আমাদের সময় ডেস্ক
৩০ অক্টোবর ২০২০ ০০:০০ | আপডেট: ২৯ অক্টোবর ২০২০ ২৩:১২
advertisement

যুক্তরাষ্ট্রে প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে চলছে শেষ মুহূর্তের হিসেব-নিকেশ। কে কোন রাজ্যে এগিয়ে রয়েছেন, শেষ সময়টুকু কোথায় প্রচারে কাজে লাগাচ্ছেন এ নিয়ে চুলচেরা বিশ্লেষণের কমতি নেই। গতকাল পর্যন্ত জরিপের ফলে দেখা গেছে, গোটা দেশে এখনো এগিয়ে রয়েছেন ডেমোক্র্যাট প্রার্থী জো বাইডেন। যেখানে ট্রাম্পের পক্ষে জুটেছে ৪২% মার্কিন নাগরিকের সমর্থন সেখানে বাইডেনের পক্ষে দেখা যাচ্ছে সমর্থন রয়েছে ৫১%। খবর বিবিসি।

এবার নির্বাচনে বিশেষ দৃষ্টি কেড়েছে দোদুল্যমান অঙ্গরাজ্য ফ্লোরিডা। এই কারণে শেষ মুহূর্তে গতকাল বৃহস্পতিবার দুই প্রার্থীই ফ্লোরিডায় প্রচারে অংশ নিয়েছেন। জরিপের ফলে দেখা গেছে, এই রাজ্যে ট্রাম্প-বাইডেনের সমর্থন সমানে সমান। অর্থাৎ ট্রাম্পের পক্ষে রয়েছে ৪৮.০% আর বাইডেনের দিকেও রয়েছে ৪৮.০%। অর্থাৎ ফ্লোরিডায় একটা হাড্ডাহাড্ডি লড়াই হতে যাচ্ছে এ কথা সহজেই অনুমেয়।

এই ফ্লোরিডাতেই ২০১৬ সালের নির্বাচনে ট্রাম্প জয়ী হয়েছিলেন মাত্র ১.২% ভোটের ব্যবধানে। এই মুহূর্তে আরও একটি অঙ্গরাজ্যে ট্রাম্প-বাইডেন সমান-সমান অবস্থানে রয়েছেন- সেটি হলো জর্জিয়া। সেখানে উভয় প্রার্থী ৪৭.২% ভোটারের সমর্থন পাচ্ছেন। অর্থাৎ এ বছর প্রচারের শুরুর দিকে জরিপের ফলাফলে ট্রাম্প পিছিয়ে থাকলেও নির্বাচন যত এগিয়ে আসছে এই ব্যবধান ততই কমছে। শুধু তাই নয়, ব্যাটেলগ্রাউন্ড রাজ্যের তকমা পাওয়ায় স্থানগুলোয় এই ব্যবধান সামান্য। যেমন অ্যারিজোনায় দেখা যাচ্ছে, বাইডেনের সমর্থন ৪৮.৪% আর ট্রাম্পের রয়েছে ৪৬.২ শতাংশ। এই রাজ্যে গত নির্বাচনে ট্রাম্প জয়ী হয়েছিলেন ৩.৬% ভোটের

ব্যবধানে। অন্যদিকে টেক্সাস রিপাবলিকান ঘাঁটি হিসেবে পরিচিত। গত নির্বাচনে ট্রাম্প এখানে বড় ব্যবধানে জয়ী হয়েছিলেন। কিন্তু এবার সেখানে ডেমোক্র্যাটদের সমর্থন বাড়ছে। গতকাল দেখা গেছে, টেক্সাসে রিপাবলিকানদের সমর্থন রয়েছে ৪৮.০% আর ডেমোক্র্যাটদের সমর্থন রয়েছে ৪৫.৪%।

যুক্তরাষ্ট্রের নির্বাচনে বেশির ভাগ অঙ্গরাজ্যগুলো দুই দলের মধ্যে মোটামুটি ভাগ করা। নির্বাচনের ফলাফলে তেমন হেরফের হয় না। এর বাইরে কয়েকটি দোদুল্যমান অঙ্গরাজ্য রয়েছে। মূলত নির্বাচনের ফলাফল নির্ধারণ করে থাকে এই কয়েকটি অঙ্গরাজ্যই। আর এ কারণে দুই প্রার্থী ঘুরেফিরে এই কয়েকটি স্থান চষে বেড়াচ্ছেন। এবার নির্বাচনে আগাম ইতোমধ্যে পূর্বের রেকর্ড ছাড়িয়েছে। করোনা ভাইরাসের মহামারীর কারণে এবার আগাম ভোট দিচ্ছেন অনেক ভোটার। এখন পর্যন্ত সাত কোটির বেশি ভোটার নিজেদের ভোটাধিকার প্রয়োগ করেছেন। তবে আগাম ভোটের ব্যাপারে ট্রাম্প সব সময় নেতিবাচক মন্তব্য করে আসছেন এবং তিনি এতে কারচুপির আশঙ্কা করছেন। এ কারণে আগাম ভোটে ডেমোক্র্যাটরা এগিয়ে রয়েছে। আর রিপাবলিকান সমর্থকরা বলছেন তারা নির্বাচনের দিন কেন্দ্রে গিয়ে ভোট দেবেন- তখন ডেমোক্র্যাট শিবির হাওয়া হবে।

এবার নির্বাচনে করোনা ভাইরাস ইস্যুটি গুরুত্বপূর্ণ নিয়ামক হিসেবে কাজ করছে। এই ইস্যুতে গতকালও ট্রাম্প বাইডেনকে কড়া ভাষায় সমালোচনা করেন। বাইডেনও তার পাল্টা জবাব দিয়েছেন। সম্প্রতি যুক্তরাষ্ট্রের সব রাজ্যেই করোনা সংক্রমণ আবার বাড়ছে। মৃত্যুর সংখ্যা গড়ে ৮০০ জন। এই পরিস্থিতিতে ট্রাম্প গতকাল লকডাউনের বিরুদ্ধে বক্তব্য দেন। আর বাইডেন বলছেন, তিনি নির্বাচিত হলে বিজ্ঞান ও বিশেষজ্ঞ মতামতের ভিত্তিতে সিদ্ধান্ত নেবেন। শুধু বাইডেন নন, মার্কিন সংক্রমণ বিশেষজ্ঞ অ্যান্থনী ফাউচিও ট্রাম্পের করোনানীতির সমালোচনা করেছেন। এ পরিস্থিতিতে মার্কিন ভোটাররা আসলে কোন প্রার্থীকে বেছে নেবেন সেটাই দেখবার বিষয়।

উল্লেখ্য, ৩ নভেম্বর নির্বাচনের আনুষ্ঠানিক ভোটগ্রহণ চলবে। সাধারণত তার পরদিন নির্বাচনের ফলাফলের আভাস পাওয়া যায়। কিন্তু এবার আগাম ভোট বেশি পড়ায় ধারণা করা হচ্ছে ফলাফল নির্ধারণ হতে কয়েকদিন থেকে সপ্তাহও পার হয়ে যেতে পারে।

 

 

advertisement
Evaly
advertisement