advertisement
advertisement
advertisement
advertisement

সম্মতিতে শিক্ষকের সঙ্গে শারীরিক সম্পর্ক, তদন্তের পর ছাত্রীকে বহিষ্কার

নিজস্ব প্রতিবেদক
৩০ অক্টোবর ২০২০ ১৮:২৩ | আপডেট: ৩০ অক্টোবর ২০২০ ১৮:৫৩
advertisement

কুড়িগ্রামের ভূরুঙ্গামারী মহিলা ডিগ্রি কলেজের এক খণ্ডকালীন শিক্ষকের বিরুদ্ধে বিয়ের প্রতিশ্রুতিতে শারীরিক সম্পর্কের অভিযোগ তুলেছিলেন এক ছাত্রী। পরে তদন্ত শেষে ওই ছাত্রীকে স্থায়ী বহিস্কার করেছে কলেজ কর্তৃপক্ষ। একই সঙ্গে অভিযুক্ত খণ্ডকালীন শিক্ষককে কলেজে প্রবেশে নিষেধাজ্ঞা দেওয়া হয়েছে।

ওই ছাত্রীর অভিযোগ থেকে জানা যায়, ভূরুঙ্গামারী মহিলা ডিগ্রি কলেজের খণ্ডকালীন ইংরেজি শিক্ষক হাবিবুল্লাহ খোকনের কাছে প্রাইভেট পড়তেন এইচএসসি প্রথমবর্ষের ওই ছাত্রী। বাসায় গিয়ে প্রাইভেট পড়ার সুযোগে তাকে বিভিন্ন সময় প্রেমের প্রস্তাব দেন ওই শিক্ষক। পরে প্রেমের সম্পর্ক তৈরি হলে বিভিন্ন স্থানে নিয়ে একাধিকবার ওই ছাত্রীর সঙ্গে শারীরিক সম্পর্ক করেন শিক্ষক হাবিবুল্লাহ। একপর্যায়ে ওই ছাত্রী বিয়ের চাপ দিলে তড়িঘড়ি করে গোপনে অন্যত্র বিয়ে করেন হাবিবুল্লাহ।

এ বিষয়ে গত এপ্রিলে অধ্যক্ষ বরাবর লিখিত অভিযোগ দেন ওই ছাত্রী। অভিযোগের পরিপ্রেক্ষিতে কমিটি গঠন করে তদন্ত শেষে ওই ছাত্রীকে বহিষ্কার করে কলেজ কর্তৃপক্ষ।

কলেজ পরিচালনা কমিটি ও তদন্ত কমিটির সদস্য ইমদাদুল হক মন্টু বলেন, ‘তদন্তে শিক্ষকের অপকর্ম নিশ্চিত হওয়া গেছে। একই সঙ্গে ছাত্রীর সম্মতিতে এ ঘটনা ঘটেছে।’

ভূরুঙ্গামারী মহিলা ডিগ্রি কলেজের অধ্যক্ষ মো. খালেদুজ্জামান বলেন, ‘কলেজ পরিচালনা কমিটি ও তদন্ত কমিটির সিদ্ধান্তে ওই ছাত্রীকে বহিষ্কার করা হয়েছে। যেহেতু সে অন্যায় করেছে। বিষয়টি অন্য শিক্ষার্থীদের উপর প্রভাব পড়তে পারে। এজন্য এ সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।’

কলেজ পরিচালনা কমিটির তৎকালীন সভাপতি স্থানীয় (২৫ কুড়িগ্রাম-১) সংসদ সদস্য আছলাম হোসেন সওদাগর জানান, তদন্ত কমিটি তাদের দুজনের অন্যায় খুঁজে পেয়ে এ সিদ্ধান্ত নিয়েছে। কারও কারণে কলেজ ক্ষতিগ্রস্ত হবে এটা ঠিক না।

ছাত্রীর স্বজনরা জানান, কলেজ থেকে বহিষ্কারের পর ওই ছাত্রীর পড়ালেখা বন্ধের উপক্রম হয়েছে। এ অবস্থায় ছাত্রত্ব ফিরে পেতে দপ্তরের বিভিন্ন কর্মকর্তার কাছে আবেদন করেছেন ওই ছাত্রী।

জেলা শিক্ষা কর্মকর্তা মো. শামছুল আলম বলেন, এ ঘটনায় ছাত্রীটির সঙ্গে দুটি অনৈতিক কাজ সংঘটিত হয়েছে। একে শিক্ষকের ঘৃণিত কাজ, অন্যটি বহিষ্কার। তার পড়ালেখা যাতে বন্ধ না হয়, সে বিষয়টি খতিয়ে দেখা হবে।

advertisement
Evaly
advertisement