advertisement
advertisement
advertisement
advertisement

পদ্মা সেতুতে বসছে ৩৫তম স্প্যান

মাওয়া (মুন্সীগঞ্জ) প্রতিনিধি
৩১ অক্টোবর ২০২০ ১২:১৭ | আপডেট: ৩১ অক্টোবর ২০২০ ১৪:০৩
ছবি : আমাদের সময়
advertisement

পদ্মা সেতুতে ৩৫তম স্প্যান বসছে আজ শনিবার। মাওয়া প্রান্তের ৮ ও ৯ নম্বর পিলারের ওপর স্প্যানটি বসানো হবে। স্প্যানটি স্থাপন হলে পদ্মা সেতুর ৫ হাজার ২৫০ মিটার দৃশ্যমান হবে।

শনিবার সকাল সাড়ে ৭টার দিকে মুন্সীগঞ্জের লৌহজংয়ের মাওয়ায় অবস্থিত কুমারভোগ কন্সট্রাকশন ইয়ার্ডের স্টিল ট্রাস জেটি থেকে স্প্যানটি নিয়ে সেতুর উদ্দেশে রওনা দেয় পৃথিবীর সবচেয়ে বড় ক্রেন তিয়ান-ই। আবহাওয়া অনুকূলে থাকলে দিনের মধ্যেই পিলারের ওপর স্প্যনটি বসিয়ে দেওয়া হবে।

এর আগে গতকাল শুক্রবার পদ্মা সেতুর মাওয়া প্রান্তে ৩৫তম স্প্যান বসাতে গিয়ে চ্যালেঞ্জের মুখে পড়তে হয়েছিল সেতু কর্তৃপক্ষকে। চলতি মাসের ৩০ অক্টোবর ৮ ও ৯ নম্বর পিলারের ওপর ২-বি নামের স্প্যানটি বসানোর কথা ছিল। কিন্তু খরস্রোতা পদ্মা নদীর এই দুই পিলারের নিচে আকস্মিক নাব্য সংকট দেখা দেয়। এমতাবস্থায় ৩২শ টন ওজনের স্প্যানটি নিয়ে পিলারের কাছে যেতে সম্ভব হয়নি স্প্যানবাহী ক্রেন ‘তিয়ান-ই’-এর। তাই একদিন সময় নিয়ে ড্রেজিং করে স্বাভাবিক অবস্থা ফিরিয়ে আনা হয়েছে। ৩৫তম স্প্যানটি বসানো হলে বাকি থাকবে ছয়টি স্প্যান।

পদ্মা সেতুর নির্বাহী প্রকৌশলী দেওয়ান মো. আব্দুল কাদের এসব তথ্য নিশ্চিত করেন। এর আগে ৩৪তম স্প্যান বসানোর পর সেতুর ৫ হাজার ১০০ মিটার বা ৫.১০ কিলোমিটার দৃশ্যমান হয়েছে।

উল্লেখ্য, এই মাসের ১১ অক্টোবর ৩২তম, ১৯ অক্টোবর ৩৩তম, ২৫ অক্টোবর ৩৪তম স্প্যান বসানো হয়েছে। পদ্মা সেতুতে ৩৫তম স্প্যান বসানো হলে বাকি থাকছে আর ৬টা স্প্যান বসানো। আগামী ডিসেম্বরের মধ্যেই সবগুলো স্প্যান বসানোর পরিকল্পনা রয়েছে কর্তৃপক্ষের।

২০১৪ সালের ডিসেম্বরে পদ্মা সেতর নির্মাণ কাজ শুরু করা হয়। ২০১৭ সালের ৩০ সেপ্টেম্বর ৩৭ ও ৩৮ নম্বর পিলারে প্রথম স্প্যানটি বসানোর মধ্য দিয়ে দৃশ্যমান হয় পদ্মা সেতু। এরপর একে একে বসানো হলো ৩৪টি স্প্যান। প্রতিটি স্পেনের দৈর্ঘ্য ১৫০ মিটার। পদ্মা সেতু নির্মাণ করা হবে ৬ দশমিক ১৫ কিলোমিটার দীর্ঘ ।

এর মধ্যে সবকটি পিলারে কাজ সম্পূর্ণ হয়ে মাথা উচুঁ করে দাঁড়িয়ে আছে পদ্মার বুক চিরে। মূল সেতু নির্মাণের জন্য কাজ করছে চীনের ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান চায়না মেজর ব্রিজ ইঞ্জিনিয়ারিং কোম্পানি লিমিটেড (এমবিইসি) ও নদীশাসনের কাজ করছে দেশটির আরেকটি ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান সিনো হাইড্রো করপোরেশন।

দুটি সংযোগ সড়ক ও অবকাঠামো নির্মাণ করেছে বাংলাদেশের আব্দুল মোমেন গ্রুপ লিমিটেড। বহুমুখী এই সেতুর মূল আকৃতি হবে দ্বীতল, যা কংক্রিট ও স্টিল দিয়ে তৈরি করা হচ্ছে। পদ্মা সেতুর ৬ দশমিক ১৫ কিলোমিটার সেতুতে ৪২টি পিলারের ওপর ৪১টি স্প্যান বসানো হচ্ছে। বর্তমানে সেতুর কাজের অগ্রগতি হয়েছে ৯০ ভাগেরও বেশি।

advertisement
Evaly
advertisement